সখীপুরে মাদ্রাসা শিক্ষার্থী প্রেমিক যুগলের আত্মহত্যা

ঢাকা, রবিবার, ৮ ডিসেম্বর ২০১৯ | ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

সখীপুরে মাদ্রাসা শিক্ষার্থী প্রেমিক যুগলের আত্মহত্যা

টাঙ্গাইল প্রতিনিধি ৬:২৮ অপরাহ্ণ, আগস্ট ১৪, ২০১৯

সখীপুরে মাদ্রাসা শিক্ষার্থী প্রেমিক যুগলের আত্মহত্যা

টাঙ্গাইলের সখীপুরে একঘরে বসে একসঙ্গে বিষপান করে ২৩ ঘণ্টার ব্যবধানে প্রেমিক-প্রেমিকার মৃত্যু হয়েছে।

বুধবার বেলা সাড়ে ১১টায় প্রেমিক ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে মারা যায়। এর আগে মঙ্গলবার দুপুর সাড়ে ১২টায় প্রেমিকা টাঙ্গাইল জেনারেল কলেজ হাসপাতালে মারা যায়।

নিহতরা হলো ইছাদিঘী গ্রামের বাঘবেড় পাড়ার মজনু মিয়ার ছেলে প্রেমিক ইব্রাহিম মিয়া (১৫) এবং ওই গ্রামের ফজলুল হকের মেয়ে প্রেমিকা মেঘনা আক্তার (১৪)। তারা দুজনেই উপজেলা ইছাদিঘী দাখিল মাদ্রাসার ৮ম শ্রেণীর শিক্ষার্থী ছিলো।

পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, একই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে একই শ্রেণিতে পড়ার সুবাধে তাদের মধ্যে বছর খানেক ধরে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। মাস খানেক আগে দুই পরিবারের মধ্যেই বিষয়টি জানাজানি হয়। বিষয়টি দুই পরিবার মেনে নিলেও বাল্যবিয়ের কারণে ছেলে-মেয়ের ইচ্ছা পূরণ হয়নি। পরে মেয়েটি ঈদের দিন রাতে বাড়ির কাউকে না জানিয়ে ছেলের বাড়িতে গিয়ে ওঠে। ছেলের পরিবারের পক্ষ থেকে মেনে না নেয়ায় ঈদের পরদিন সকালে ছেলের বাড়িতে উভয়েই বিষপান করে।

পরে ছেলের বাড়ির লোকজন উভয়কেই সখীপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসে।  উভয়েরই অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাদেরকে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। পরে ছেলের স্বজনরা ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ও মেয়ের স্বজনরা টাঙ্গাইল জেনারেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায়।

মেয়েটিকে ওই হাসপাতালে নেয়ার পর মঙ্গলবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায়। এর ২৩ ঘণ্টা পর বুধবার বেলা সাড়ে ১১টায় ছেলেটি ঢামেকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায়।

স্থানীয় ইউপি সদস্য আবুল কালাম আজাদ বলেন, দুই পরিবারের সঙ্গে কথা বলে মেয়ের কবরের পাশে ছেলেকেও কবর দেয়ার ব্যবস্থা করা হবে।

এ ব্যাপারে সখীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আমির হোসেন পরিবর্তন ডটকমকে বলেন, প্রেমঘটিত কারণে এ ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে।

এইচআর

 

ঢাকা: আরও পড়ুন

আরও