শরীয়তপুরে মসজিদের ইমাম ২৮ দিন নিখোঁজ

ঢাকা, রবিবার, ৮ ডিসেম্বর ২০১৯ | ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

শরীয়তপুরে মসজিদের ইমাম ২৮ দিন নিখোঁজ

শরীয়তপুর প্রতিনিধি ৪:৪৭ অপরাহ্ণ, জুলাই ১৭, ২০১৯

শরীয়তপুরে মসজিদের ইমাম ২৮ দিন নিখোঁজ

শরীয়তপুরের জাজিরা উপজেলার বড়কান্দি ইউনিয়নের সুধন্য মণ্ডলের কান্দি গ্রামের আব্দুল করিম মোড়ল জামে মসজিদের ইমাম মাওলানা ফরিদুল ইসলাম সরকার (৪০) ২৮ দিন ধরে নিখোঁজ রয়েছেন।

গত ২০ জুন এশার নামাজের পর এক মুসুল্লির বাড়ি থেকে রাতের খাবার শেষে মসজিদের উদ্দেশে যাওয়ার পর থেকে তাকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না।

এ ঘটনায় শরীয়তপুর পুলিশ সুপার বরাবর অভিযোগ ও জাজিরা থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করা হয়েছে।

নিখোঁজ আব্দুল করিম জামে মসজিদের ইমাম মাওলানা ফরিদুল ইসলাম সরকার (৪০) ময়মনসিংহ জেলার মোক্তাগাছা থানার পূর্ববিরাশী গ্রামের মৃত এরশাদ আলী সরদারের ছেলে। তিনি প্রায় ১৭ বছর যাবত বড়কান্দি ইউনিয়নের বিভিন্ন মসজিদে ইমামতি করে আসছেন। নিখোজের ৩ মাস আগে বড়কান্দি ইউনিয়নের সুধন্য মণ্ডলের কান্দি গ্রামের আব্দুল করিম মোড়ল জামে মসজিদের ইমাম হিসাবে যোগদান করেন। এর আড়ে ৬ বছর একই গ্রামের হোসেন মোড়লদের মসজিদে ইমাম হিসাবে দায়িত্বপালন করেছেন।

স্থানীয়রা জানান, ইমাম ফরিদুল ইসলাম মসজিদের বারান্দায় একটি কক্ষে থাকতেন। গত ২০ জুন এশার নামাজ শেষে স্থানীয় মুসল্লি ইকরাম আলী মোড়লের বাড়িতে রাতের খাবার শেষে মসজিদের উদ্দেশে যান। এরপর ফজরের নামাজ পড়ার জন্য মুসল্লিরা মসজিদে গিয়ে ইমাম সাহেবকে না পেয়ে বিষয়টি মসজিদ কমিটির সদস্যদের জানায়। এ সময় ইমামের থাকার কক্ষটি তালাবন্দ ছিল এবং নিখোঁজ ইমামের মোবাইল ফোনও বন্ধ পাওয়া যায়। স্থানীয়রা অনেক খোঁজাখুঁজি করে তাকে না পেয়ে পরিবারের লোকজন খবর পাঠায় এবং মসজিদ কমিটির লোকজন জাজিরা থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন। এরপর নিখোঁজ ইমামের স্ত্রী সাবিনা ইয়াসমিন গত ৭ জুলাই শরীয়তপুর সুপার বরাবর একটি অভিযোগ দাখিল করেন।

আব্দুল করিম জামে মসজিদের সভাপতি আবুল হোসেন শেখ জানান, ইমামকে না পেয়ে মসজিদ কমিটির পক্ষ থেকে নিখোঁজের পরের দিন ২১ জুন জাজিরা থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করা হয়েছে। এছাড়াও তাদের গ্রামের বাড়ি এবং সম্ভাব্য স্থানে অনেক খোঁজাখুঁজি করা হয়েছে। গত ১০ দিন যাবত মাওলানা ফরিদুল ইসলামের মা ও স্ত্রী সাবিনা ইয়াসমিনসহ পরিবারের অন্য সদস্যরা মসজিদ কমিটির সাধারণ সম্পাদক আকবর আলী মোড়লের বাড়িতে থেকে বিভিন্নস্থানে খোঁজাখুঁজি করে আসছে।

মাওলানা ফরিদুল ইসলামের স্ত্রী সাবিনা ইয়াসমিন বলেন, ঈদুল ফিতরের ছুটি নিয়ে গত ৬ জুন বাড়িতে আসে। পরে ছুটি কাটিয়ে ২০ জুন শরীয়তপুরে কর্মস্থলে যায় আমার স্বামী। ওইদিন রাত থেকে সে নিখোঁজ। আমাদের ফারিয়া আক্তার তামান্না (১০) ও সাদমান শাহরিয়া (৬) নামে দুই ছেলে-মেয়ে রয়েছে। আমার স্বামীকে খুঁজে পেতে সবার সহযোগিতা কামনা করছি।

জাজিরা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. বেলায়েত হোসেন বলেন, অভিযোগ পাওয়ার পর থেকে বিভিন্নভাবে খোঁজ নিচ্ছি এবং বিষয়টি গুরত্ব সহকারে দেখা হচ্ছে।

এইচআর

 

ঢাকা: আরও পড়ুন

আরও