মাদারীপুরে নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতায় যুবলীগ নেতা খুন

ঢাকা, বুধবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৯ | ২৯ কার্তিক ১৪২৬

মাদারীপুরে নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতায় যুবলীগ নেতা খুন

মাদারীপুর প্রতিনিধি ৭:৫২ অপরাহ্ণ, জুন ১৯, ২০১৯

মাদারীপুরে নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতায় যুবলীগ নেতা খুন

মাদারীপুর সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতায় এক যুবলীগ নেতাকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। বুধবার দুপুর ১টার দিকে মাদারীপুর পৌর শহরের সবুজবাগ এলাকায় এই ঘটনা ঘটে।

নিহতের নাম এরশাদ মুন্সী (২২)। তিনি সবুজবাগ এলাকার বেলায়েত মুন্সীর ছেলে, পৌরসভার ৩নং ওয়ার্ড যুবলীগের সদস্য ছিলেন।

ঘটনার পর থেকে অভিযুক্ত জসিম গৌড়া পলাতক রয়েছে।

নিহতের পরিবার জানায়, দুপুর ১টার দিকে সবুজবার এলাকার নদীর পাড় দিয়ে যাচ্ছিলেন নৌকা প্রতীকের সমর্থক এরশাদ মুন্সী (২২)। এসময় বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থক ও যুবলীগ কর্মী জসিম গৌড়ার নেতৃত্বে সন্ত্রাসীরা এরশাদকে কুপিয়ে মারাত্মক জখম করে। এসময় তাকে উদ্ধার করে মাদারীপুর সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়। পরে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

তিনি মঙ্গলবার অনুষ্ঠিত মাদারীপুর সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী কাজল কৃষ্ণ দে’র সমর্থক ছিলেন।

নির্বাচনে জসিম গৌড়া বিদ্রোহী চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে বিজয়ী চেয়ারম্যান ও সাবেক নৌমন্ত্রী শাজাহান খানের ছোট ভাই অ্যাডভোকেট ওবাইদুর রহমান খানের সমর্থক-কর্মী।

তবে এরআগেও এরশাদ এবং জসিম গৌড়ার মধ্যে স্থানীয় প্রভাব নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল বলে জানা যায়।

ঘটনার পর মাদারীপুর পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা ও র্যা ব ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

ওই এলাকাসহ আশ-পাশে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়ন করা হয়েছে।

জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার উত্তম প্রসাদ পাঠক বলেন, নিহতের ঘটনার সাথে কে বা করা জড়িত, তা এখনো বলা যাচ্ছে না। তবে এলাকায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দীর্ঘ দিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল। কোন কারণে খুন হয়েছে, এখন তা বলা যাচ্ছে না। তবে যেই হত্যার সাথে জড়িত থাকুক না কেন, তদন্ত সাপেক্ষে বের করে শাস্তির ব্যবস্থা করা হবে।

তবে নিহতের মামা দাবি করা যুবলীগ নেতা কাওছার হোসেন অভিযোগ করে বলেন, নৌকার সমর্থক হওয়ায় জসিম গৌড়া তার সন্ত্রাসী বাহিনী নিয়ে এরশাদকে নির্মম ভাবে কুপিয়ে হত্যা করেছে। জসিমের বিরুদ্ধে ডাকাতি, খুনসহ একাধিক মামলা রয়েছে। এটা পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড। আমরা জসিমসহ খুনিদের বিচার দাবি করি।

উল্লেখ্য, মঙ্গলবার মাদারীপুর সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে বেসরকারি ভাবে বিজয়ী হন সাবেক নৌমন্ত্রী শাজাহান খানের ছোট ভাই ওবাইদুর রহমান খান কালু। অন্যদিকে নৌকা প্রতীক নিয়ে তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কাজল কৃষ্ণ দে।

এসবি

 

ঢাকা: আরও পড়ুন

আরও