টাঙ্গাইলে স্বামীর নির্যাতনে অন্তঃসত্ত্বার মৃত্যুর অভিযোগ

ঢাকা, বুধবার, ১৯ জুন ২০১৯ | ৪ আষাঢ় ১৪২৬

টাঙ্গাইলে স্বামীর নির্যাতনে অন্তঃসত্ত্বার মৃত্যুর অভিযোগ

টাঙ্গাইল প্রতিনিধি ৬:২০ অপরাহ্ণ, মে ২০, ২০১৯

টাঙ্গাইলে স্বামীর নির্যাতনে অন্তঃসত্ত্বার মৃত্যুর অভিযোগ

টাঙ্গাইলের ধনবাড়ীতে স্বামীর নির্যাতনে ৫ মাসের অন্তঃসত্ত্বা রুমা আক্তার (১৭) নামের এক গৃহবধূর মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। উপজেলার যদুনাথপুর ইউনিয়নের চকভিকি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

সোমবার দুপুরে লাশ ময়নাতদন্তের জন্য টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়েছে পুলিশ।

এর আগে সকালে পুলিশ ওই গৃহবধূর স্বামী বেলাল হোসেনকে (২৮) জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছে।

বেলাল সরিষাবাড়ী উপজেলার মাজালিয়া গ্রামের আব্দুল খালেকের বিদেশ ফেরত ছেলে। নিহত রুমা আক্তার বেলালের দ্বিতীয় স্ত্রী।

অভিযোগ উঠেছে রোববার দাম্পত্য কলহের জেরে স্বামী বেলালের শারীরিক নির্যাতনে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে তার দ্বিতীয় স্ত্রী রুমা আক্তারের মৃত্যু হয়েছে।

স্থানীয়রা জানান, বেলাল হোসেন জামালপুরের সরিষাবাড়ী উপজেলার মাজালিয়া গ্রামের বাসিন্দা ছিলেন। প্রবাসে থাকা অবস্থায় যদুনাথপুরের চকভিকি গ্রামের আপন চাচাতো বোন রোজিনা বেগমকে বিয়ে করে। বিয়ের পর বেলাল বাড়িঘর করে ওই গ্রামের বাসিন্দা হয়ে যান। রোজিনা চকভিকি গ্রামের আব্দুস সামাদের মেয়ে। প্রবাসে থাকা অবস্থায় প্রথম স্ত্রী রোজিনা বেলালকে ছেড়ে পরকীয়ার টানে প্রেমিকের সাথে অন্যত্র চলে যান। বেলাল দেশে ফিরে নতুন করে রংপুরের মেয়ে রাজধানীতে থাকা রুমা আক্তারের সাথে মোবাইলে সম্পর্ক করেন। রুমা এক পর্যায়ে বেলালের কাছে চলে আসেন। বয়স না হওয়ায় বিনা রেজিস্ট্রিতে বিয়ে করেন তারা। বিয়ের কয়েক মাসে সন্তান সম্ভবা হন রুমা।

এদিকে বেলালের প্রথম স্ত্রী রোজিনা আবার সংসারে ফিরে আসবে গুঞ্জনে রুমা বেলালের মধ্যে দাম্পত্য কলহ শুরু হয়। বেলাল নানা সময়ে রুমার ওপর নির্যাতন চালান। খাওয়ার ব্যবস্থা না করেই কয়েকদিনের জন্য বাড়ি ছাড়া হয়ে থাকেন। এ সময় রুমা অন্যের বাড়িতে কাজ করে চেয়ে চিন্তে চলতেন। অত্যন্ত মানবেতর জীবন ছিল রুমার এমনটিই জানালেন ঘটনাস্থলে তদন্তে যাওয়া ধনবাড়ী থানার উপ-পরিদর্শক নূরে আলম।

স্থানীয়রা আরো বলেন, রোববার সন্ধ্যায় রুমা নির্যাতনের শিকার হয়ে অসুস্থ হন। তাকে প্রথমে ধনবাড়ী ও পরে মধুপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে রাত ১০টার দিকে চিকিৎসক রুমাকে মৃত ঘোষণা করেন। খবর পেয়ে মধুপুর থানা পুলিশ হাসপাতালে গিয়ে লাশ উদ্ধার করে এবং স্বামী বেলালকে হেফাজতে নেয়।

এ ব্যাপারে ধনবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মজিবর রহমান বলেন, লাশ উদ্ধার করে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। নিহতের স্বামী বেলালকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। এ ব্যাপারে মামলার প্রক্রিয়া চলছে। তবে ময়নাতদন্তের রির্পোট পাওয়ার মৃত্যুর প্রকৃত কারণ জানা যাবে।

এইচআর