কিশোরীকে গণধর্ষণে কিশোরের দোষ স্বীকার

ঢাকা, বুধবার, ২২ মে ২০১৯ | ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬

কিশোরীকে গণধর্ষণে কিশোরের দোষ স্বীকার

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি ১১:১৪ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১৭, ২০১৯

কিশোরীকে গণধর্ষণে কিশোরের দোষ স্বীকার

ফতুল্লার মাহমুদপুরে ১৪ বছরের কিশোরীকে গণধর্ষণের ঘটনায় গ্রেপ্তার প্রধান আসামি আল আমিন (১৭) আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দিয়ে নিজের দোষ স্বীকার করেছে।

বুধবার বিকেলে নারায়ণগঞ্জ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মাহমুদুল মোহসিনের আদালতে তার জবানবন্দী রেকর্ড করা হয়।

নারায়ণগঞ্জ কোর্ট পুলিশের পরির্দশক হাবিবুর রহমান এর সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, আসামি আল আমিন নিজের দোষ স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দী দিয়েছে। পরে তাকে জেলা কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে।

মামলার তদন্তকারী অফিসার ফতুল্লা মডেল থানার পরিদর্শক (আইসিপি) আজিজুল হক জানান, বেড়াতে আসা কিশোরীকে ছাদে ডেকে নিয়ে আল আমিন (১৭), শরীফ (১৭) এবং বরকত (১৭) পর্যায়ক্রমে ধর্ষণ করে। ভাবির বান্ধবী হওয়ায় ওই কিশোরী শরীফের পূর্ব পরিচিত। এতে শরীফ ওই কিশোরীকে ডাকতেই সে তার সঙ্গে ছাদে যায়। এ মামলার অপর ২ আসামি পলাতক রয়েছে।

উল্লেখ্য, সিদ্ধিরগঞ্জ থানার সানারপাড় এলাকার কিশোরী বৈশাখী মেলায় বেড়াতে যায়। মেলায় বেড়ানোর শেষে পার্শ্ববর্তী ফতুল্লা থানার মাহমুদপুর এলাকার বাসিন্দা রহিমা আক্তার নামে বান্ধবীর বাসায় বেড়াতে আসে।

এ সময় রহিমার দেবর শরীফ তাকে কৌশলে ৪তলা বাড়ির ছাদে নিয়ে যায়। সেখানে পালাক্রমে আল আমিন, শরীফ ও তার ভাগিনা বরকত আলী ধর্ষণ করে। ঘটনাটি সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় অবহিত করলে ১৫ এপ্রিল রাতেই সিদ্ধিরগঞ্জ থানা পুলিশ আল আমিনকে গ্রেফতার করে। ঘটনাটি দুই থানার মাঝামাঝি হওয়ায় পরে সীমানা নির্ধারণ করে আসামিকে ফতুল্লা মডেল থানায় হস্থান্তর করা হয়। এরপর ফতুল্লা মডেল থানায় মামলা দায়ের করা হয়।

এআরই