জুয়েলের ‘মাথা বিচ্ছিন্ন’ নিয়ে নীলাকে জিজ্ঞাসাবাদ

ঢাকা, ১৮ জুলাই, ২০১৯ | 2 0 1

জুয়েলের ‘মাথা বিচ্ছিন্ন’ নিয়ে নীলাকে জিজ্ঞাসাবাদ

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি ৯:৩২ অপরাহ্ণ, মার্চ ২৪, ২০১৯

জুয়েলের ‘মাথা বিচ্ছিন্ন’ নিয়ে নীলাকে জিজ্ঞাসাবাদ

মাদক ব্যবসায়ী খায়রুল ইসলাম জুয়েল হত্যা মামলার আসামি নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের সাবেক কাউন্সিলর জান্নাতুল ফেরদৌস নীলাকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে সিআইডি।

রোববার বিকেলে নারায়ণগঞ্জ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ফাহমিদা খাতুনের আদালতে মামলার তদন্তকারী অফিসার জেলা সিআইডির সহকারী পুলিশ সুপার মো. ছরোয়ার জাহান সরকার তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করেন।

নারায়ণগঞ্জ কোর্ট পুলিশের পরিদর্শক হাবিবুর রহমান জানান, আদালতে নীলার আইনজীবীর উপস্থিতিতে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করেন।

এ মামলায় নীলা জামিনে রয়েছেন।

উল্লেখ্য, ২০১৩ সালের ২৬ অক্টোবর নারায়ণগঞ্জ জেলার সিদ্ধিরগঞ্জ থানাধীন আজিবপুর গ্রাম থেকে অজ্ঞাত পরিচয় মস্তকবিহীন একটি মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। এঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে মামলা দায়ের করে।

পরে মরদেহটি নোয়াখালী জেলার মাসুমপুর গ্রামের ফিরোজ খানের ছেলে খায়রুল ইসলাম জুয়েলের (৩০) বলে শনাক্ত হয়।

জুয়েল হত্যা মামলায় গ্রেফতার তিনজন কিলার লঞ্চ সোহেল, কালা সোহাগ ও মনা ডাকাত দোষ স্বীকার করে আদালতে বলেন, মাদক ব্যবসার দেনা পাওনা নিয়ে নীলার সঙ্গে জুয়েলের বিরোধ দেখা দেয়।

এ কারণে নীলার নির্দেশে জুয়েলকে গলা কেটে হত্যা করে দেহ এক স্থানে ও মাথা আরেক স্থানে ফেলে দেয়।

এই মামলায় নীলাসহ ১৭ জনকে মামলার দায় হতে অব্যাহতি দিয়ে ৮ জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন তৎকালীর মামলার তদন্ত কর্মকর্তা জেলা সিআইডির পরিদর্শক মো. নূরুন নবী।

আদালত সূত্রে জানা যায়, অধিকাংশ আসামিকে কেন অব্যাহতির দেয়া হয়েছে- এর ব্যাখ্যা অভিযোগপত্রে তদন্তকারী কর্মকর্তা বিস্তারিত উল্লেখ করেনি। তাই আদালত মনে করেছেন এ অভিযোগপত্রটি স্পষ্ট ও সন্তোষজনক নয়। 

সূত্রটি জানায়, ২০১৬ সালের ২১ জুলাই নারায়ণগঞ্জ অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট অশোক কুমার দত্তের আদালত মামলাটি অধিকতর তদন্তের জন্য জেলা সিআইডিকে নির্দেশ দেন।

এরপর জেলা সিআইডির সহকারী পুলিশ সুপার মো. ছরোয়ার জাহান অধিকতর তদন্তের দায়িত্ব পেয়ে নীলাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আদালতে আবেদন করেন।

সেই আবেদনের প্রেক্ষিতে আজ আদালতে বিচারের সামনে নীলাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়।

এসবি

 

ঢাকা: আরও পড়ুন

আরও