ডালের বড়ি তৈরিতে ব্যস্ত গ্রামীণ নারীরা

ঢাকা, বুধবার, ১৯ জুন ২০১৯ | ৫ আষাঢ় ১৪২৬

ডালের বড়ি তৈরিতে ব্যস্ত গ্রামীণ নারীরা

মেহেদী হাসান মাসুদ, বালিয়াকান্দি (রাজবাড়ী) ১০:৩৩ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১২, ২০১৯

ডালের বড়ি তৈরিতে ব্যস্ত গ্রামীণ নারীরা

শীত এলেই আবহমানকাল ধরে গ্রাম-বাংলার প্রায় প্রতিটি অঞ্চলে ডালের বড়ি তৈরিতে ব্যস্ত হয়ে পড়ে গ্রামীণ নারীরা।

অনান্য অঞ্চলের ন্যায় রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি উপজেলার বিভিন্ন গ্রামের নারীরা শীত মৌসুমে এ ডালের বড়ি তৈরিতে ব্যস্ত হয়ে পড়েছে।

শীত মৌসুমে গ্রামীণ নারীরা মাশকলাই পানিতে ভিজিয়ে নরম করে চট বা চটজাতীয় কাপড়ে ঘঁষে খোসা আলাদা করেন। এরপর খোসা ছাড়া ডাল পাটায় বেটে বতি (পাকা) চাল কুমড়া কেটে বিচি বের করে ভেতরে অংশ বিশেষ প্রক্রিয়ার মাধ্যমে মিহি করে।

এরপরে তা কাপড়ে মুড়িয়ে চিপে পানি বের করে ফেলা হয় পানি বের হয়ে গেলে পানি নিংড়ানো চাল কুমরার অংশ পাটায় পিশে মিহি করা ডাল মিশিয়ে বিশেষ প্রক্রিয়ায় বড়ি তৈরি করে রোদে শুকানো হয়। বাড়ির আঙ্গিনায়, ঘরের চালে বা রোদ্রুযুক্ত স্থানে সারিবদ্ধভাবে শুকাতে দিতে দেখা যায়। ডালের বড়ি দেয়া তরকারি সুস্বাদু হওয়ায় বহু মানুষ এই বড়ি পছন্দ করে থাকেন।

উপজেলার নবাবপুর ইউনিয়নের কঠুরাকান্দি গ্রামের বড়ি প্রস্তুতকারক সবিতা রাণী দাস জানান, মাশকলাইয়ের ডাল ছাড়াও অন্য ডালে তৈরি করা যায় এই বড়ি। তবে মাশকলাই দিয়ে তৈরি বড়ি বেশি সু-স্বাদু হয়। রোদে মচমচে করে শুকালেই এর ভালো স্বাদ পাওয়া যায়।

তিনি বলেন, বড়ি ভালোভাবে শুকাতে ৩/৪ দিন লাগে। এরপর এটা নিরামিশসহ বিভিন্ন ধরনের তরকারির মধ্যে দিয়ে রান্না করে খেতে মজা। তরকারিতে এই বড়ি দেয়ায় তরকারির স্বাদ অনেকগুণ বৃদ্ধি ও মজার হয়। যার ফলে এই বড়ির তরকারি অনেকের কাছে প্রিয়। ডালের বড়ি অনেকেই তৈরি করে না তারা কিনে নেয়। অনেকেই নিজেদের তৈরি এই বড়ি আত্মীয়-স্বজনদের বাড়িতে পাঠায়। এই বড়ির চাহিদা থাকায় অনেকেই তৈরি করে বিক্রি করে।

উপজেলায় এই ডালের বড়ির ব্যাপক চাহিদা থাকায় বিভিন্ন এলাকায় গ্রামীণ নারীরা ডালের বড়ি বাজারে বিক্রির জন্য তৈরি করে থাকে।

বালিয়াকান্দি বাজার জামালপুর বাজার, বহরপুর বাজার, সোনাপুর বাজার, নারুয়া বাজার, রামদিয়া বাজারসহ বিভিন্ন বাজারে এই বড়ি বিক্রি হয়। বর্তমানে উপজেলার বিভিন্ন এলাকার ছোট-বড় বিভিন্ন মুদি দোকানেও ডালের বড়ি কিনতে পাওয়া যায়।

বর্তমানে ডাল মিহি করার মেশিন তৈরি হওয়ায় কেউ কেউ মিল থেকে ডাল মিহি করে বড়ি তৈরি করে থাকে বলেও জানান তিনি।

এইচআর