চবি ৫ হলে পুলিশের তল্লাশি, দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র উদ্ধার

ঢাকা, ২৩ জুন, ২০১৯ | 2 0 1

চবি ৫ হলে পুলিশের তল্লাশি, দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র উদ্ধার

চবি প্রতিনিধি ৯:৫৭ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১১, ২০১৮

চবি ৫ হলে পুলিশের তল্লাশি, দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র উদ্ধার

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগের দুই পক্ষের মধ্যে টানা দুইদিনের সংঘর্ষের প্রেক্ষিতে হলে তল্লাশি চালিয়ে বিপুল পরিমান দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার বিকাল সাড়ে তিনটার দিকে পুলিশের সহযোগিতায় চবি প্রক্টরিয়াল বডি বিশ্ববিদ্যালয়ের পাঁচটি হলে এ তল্লাশি অভিযান চালায় পুলিশ।

এদিকে গতকালের পর আজ বৃহস্পতিবারও দুপুর ১২টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত দফায় দফায় এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। দিনব্যাপি দফায় দফায় মারামারিতে দুই গ্রুপের তিনজন আহত হয়েছে। সেইসাথে জিঞ্জাসাবাদের জন্য শাখা ছাত্রলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক জাহাঙ্গীর জীবনকে আটক করেছে পুলিশ।

বিচ্ছিন্নভাবে চলা এ সংঘর্ষে ক্যাম্পাসজুড়ে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়লে বিকেল সাড়ে তিনটা থেকে প্রায় আড়াই ঘণ্টা যাবত বিশ্ববিদ্যালয়ের শাহ আমানত, সোহওয়ার্দী, আব্দুর রব, এ এফ রহমান, আলাওল হলে তল্লাশি চালানো হয়। এ সময় চারটি রাম দা, বেশকিছু স্টাম্প, লাঠিসোঠা, পাথর, কাঁচের বোতলসহ বিপুল পরিমাণে দেশীয় অস্ত্রসস্ত্র উদ্ধার করে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরিয়াল বডি ও পুলিশ।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর মোহাম্মদ আলী আজগর চৌধুরী বলেন, আমরা পুলিশের সহযোগিতায় বিশ্ববিদ্যালয়ের পাঁচটি আবাসিক হলে তল্লাশি চালিয়েছি। সময় বেশ কিছু রাম দা, লাঠিসোঠা, পাথর, কাঁচের বোতল উদ্ধার করা হয়েছে। ছাত্ররা ভয়ে রুমে তালা দিয়ে পালিয়ে গেছে। তাই তল্লাশি চলাকালীন কাউকে আটক করা যায়নি।

সন্ধ্যা ৭টায় এ সংবাদ লেখা পর্যন্ত বিজয় গ্রুপের নেতা কর্মীরা সোহরাওয়ার্দী হলে এবং সিএফসি গ্রুপের নেতাকর্মীরা শাহ্ আমানত হলে অবস্থান নিয়েছিল এবং দুই হলের সামনে বিপুল সংখ্যক পুলিশ মোতায়েন ছিল। বর্তমানে ক্যাম্পাস জুড়ে থমথমে পরিবেশ বিরাজ করছে।

আহতরা হলের, ছাত্রলীগকর্মী ও বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলাদেশ স্টাডিজ বিভাগের ২০১৭-১৮ সেশনের শিক্ষার্থী মো. আক্তার ও আবিদ। এরা চবি ছাত্রলীগের বগিভিত্তিক গ্রুপ বিজয় গ্রুপের ও শাখা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক  এইচ এম ফজলে রাব্বি সুজনের অনুসারী হিসেবে ক্যাম্পাসে পরিচিত।

আহত আরেক ছাত্রলীগকর্মী হলেন রাজনীতি বিজ্ঞান বিভাগের ছাত্র ইয়াসিন রুবেল। রুবেল চবি ছাত্রলীগের বগিভিত্তিক গ্রুপ সিএফসি গ্রুপের ও শাখা ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি জামান নূরের অনুসারী হিসেবে ক্যাম্পাসে পরিচিত।

এ ছাড়া ক্যাম্পাসে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে বিবাধমান এই দুটি গ্রুপই আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেলের অনুসারী হিসেবে ক্যাম্পাসে পরিচিত।

এর আগে গতকাল বুধবার ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার রায়ের প্রতিক্রিয়ায় আনন্দ মিছিলকে কেন্দ্র করে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় (চবি)  ছাত্রলীগের দুই পক্ষের মধ্যে দফায় দফায় সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

এতে শাখা ছাত্রলীগের বগিভিত্তিক গ্রুপ বিজয় ও সিএফসি গ্রুপের ছয় নেতাকর্মীসহ ৭ জন আহত হয়। বিকাল সাড়ে পাঁচটায় পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনলেও পরে সন্ধ্যা থেকে বারোটা পর্যন্ত চলে দুই গ্রুপের মধ্যে ইট পাটকেল ছোড়াছুড়ি।

এ বিষয়ে হাটহাজারী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বেলাল উদ্দিন বলেন, জিঞ্জাসাবাদের জন্য একজনকে আটক করা হয়েছে। দিনব্যাপিই পুলিশ ব্যাপক সতর্ক অবস্থানে ছিল। কোন ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা যাতে না ঘটে তাই বর্তমানেও ক্যাম্পাস জুড়ে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়ন রয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর মোহাম্মদ আলী আজগর চৌধুরী বলেন, ক্যাম্পাসে যারা বিশৃঙ্খলা করবে তাদের সাথে সাথে আটক করা জন্য আমরা পুলিশকে বলে দিয়েছি ।

এফআর/আরজি

 

ক্যাম্পাস: আরও পড়ুন

আরও