‘শেখ হাসিনাকে মারার ষড়যন্ত্রে কাদের সিদ্দিকীকে পাবেন না’

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৮ অক্টোবর ২০১৮ | ৩ কার্তিক ১৪২৫

‘শেখ হাসিনাকে মারার ষড়যন্ত্রে কাদের সিদ্দিকীকে পাবেন না’

টাঙ্গাইল প্রতিনিধি ৭:৫৮ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২০, ২০১৮

‘শেখ হাসিনাকে মারার ষড়যন্ত্রে কাদের সিদ্দিকীকে পাবেন না’

কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি কাদের সিদ্দিকী বলেছেন, ‘আগামী ২০-২৫ দিনের জন্য শেখ হাসিনার পতন চাই না। চাই সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ ও বিশ্বাসযোগ্য একটি নির্বাচন। সেই নির্বাচনের জন্য যা যা করার দরকার আমরা তাই করবো। আমাদের দল নির্বাচনে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।’

বৃহস্পতিবার বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে শহরের টাঙ্গাইল ক্লাব চত্বরে কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ টাঙ্গাইল জেলা শাখার কর্মী সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্য তিনি এসব কথা বলেন।  

কাদের সিদ্দিকী বলেন, ২০১৪ সালের মতো নির্বাচন আর বাংলাদেশে হবে না। 

শেখ হাসিনাকে উদ্দেশ করে তিনি বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু মানেই বাংলাদেশ। আপনি বঙ্গবন্ধু কন্যা হিসেবে জনগণের ভোট নিয়ে ১০০ বছর ক্ষমতায় থাকুন আমরা স্বাগত জানাবো। তবে ভোট ছাড়া ক্ষমতায় থেকে মহিলা স্বৈরশাসক হিসেবে নিজের নাম লেখাবেন না।’   

ড. কামালদের বঙ্গবীরের নসীহা 

ড. কামাল, ডা. বদরুদ্দোজা চৌধুরী, আ স ম আব্দুর রব ও মাহমুদুর রহমান মান্নার উদ্দেশ্যে বঙ্গবীর বলেন, ‘শেখ হাসিনাকে মারার ষড়যন্ত্র করবেন, সেই ষড়যন্ত্রে কাদের সিদ্দিকীকে পাবেন না।’

‘রাজনৈতিক প্রতিপক্ষকে অসম্মানজনক কথা বলার জন্য’ আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক হাছান মাহমুদকে দল থেকে বহিষ্কারেরও দাবি জানান তিনি। 

কাদের সিদ্দিকী বলেন, ‘রাজনীতি করেন প্রতিপক্ষকে সম্মান করেন না। রাজনীতিতে প্রতিপক্ষকে সম্মান করতে শিখুন। বঙ্গবন্ধু বেঁচে থাকলে এসব অসম্মানকারীদের লাথি মেরে বুড়িগঙ্গায় ফেলে দিতেন।’ 

পাগলও দ্বিগুণ উন্নয়ন করতে পারত 

কাদের সিদ্দিকী বলেন, ‘আমাদের দেশের প্রতিটি নাগরিকের বিশ্ব ব্যাংকের কাছে ৮শ’ থেকে ১ হাজার টাকা ঋণ ছিলো। বর্তমানে মাথা পিছু ঋণ প্রায় ৬০ হাজার টাকা। বাংলাদেশে এখনও পর্যন্ত কোনো উন্নয়ন হয় নাই। ১০ টাকার ঘোড়াকে ৬০ টাকার খাবার খাওয়াচ্ছেন।’ 

‘আমার বাসার সামনে এক পাগল বসে থাকে। সেই পাগলকে দেশের প্রধানমন্ত্রী করলে দেশের দ্বিগুণ উন্নয়ন করতে পারতো,’ মন্তব্য করেন তিনি। 

কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের টাঙ্গাইল জেলা শাখার সভাপতি অ্যাডভোকেট রফিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে কর্মী সমাবেশে বক্তব্য রাখেন- সংগঠনের কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রহমান তালুকদার খোকা বীরপ্রতীক, কাদের সিদ্দিকীর সহধর্মিনী নাছরিন কাদের সিদ্দিকী, টাঙ্গাইল জেলা শাখার ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক এটিএম সালেক হিটলু, কেন্দ্রীয় যুব আন্দোলনের আহবায়ক হাবিবুন্নবী সোহেল প্রমুখ। 

কর্মী মহাসমাবেশে নাটোর, ময়মনসিংহ, গাজীপুর, জামালপুর, নীলফামারি জেলার ও টাঙ্গাইলের বিভিন্ন উপজেলার নেতৃবৃন্দ বক্তব্য দেন এবং কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।   

এএএন/এএসটি