শরীয়তপুরে ৩ দিনব্যাপী আঞ্চলিক ইজতেমা বৃহস্পতিবার শুরু

ঢাকা, বুধবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৮ | ২৯ কার্তিক ১৪২৫

শরীয়তপুরে ৩ দিনব্যাপী আঞ্চলিক ইজতেমা বৃহস্পতিবার শুরু

শরীয়তপুর প্রতিনিধি ৫:৩৩ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১৪, ২০১৮

শরীয়তপুরে ৩ দিনব্যাপী আঞ্চলিক ইজতেমা বৃহস্পতিবার শুরু

শরীয়তপুরে তিন দিনব্যাপী আঞ্চলিক ইজতেমা বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হবে। দেশি বিদেশী তাবলীগ জামাতের মুসল্লীসহ বিভিন্ন অঞ্চল থেকে ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা এ ইজতেমায় অংশ নেয়ার জন্য ইতোমধ্যে আসতে শুরু করেছেন।

শরীয়তপুর সদর উপজেলার আংগারিয়া বাজারের দক্ষিণ পাশে হাজত খোলা নামক স্থানে কীর্তিনাশা নদীর পূর্ব পাশে আংগারিয়া-মনোহরবাজার বাইপাস রাস্তার পাশে এ ইজতেমার আয়োজন করা হয়েছে।
প্রায় ২৩ একর জমিতে একমাস যাবত তাবলীগ জামাতের লোকজন, স্থানীয় শত শত মুসল্লী ও ধর্মপ্রান মানুষ দিনরাত কাজ করে ইজতেমার জন্য এ মাঠ প্রস্তুত করেছেন।

ইজতেমার আয়োজক কমিটি সূত্রে জানাগেছে, বৃহস্পতিবার সকাল ১০টা থেকে নজমের জামাতের মোজাকারা শুরু হবে। বাদ আসর থেকে আম বয়ানের মধ্যদিয়ে মুল ইজতেমার বয়ান শুরু হবে।
শনিবার সকাল ১১ টায় মোনাজাতের মধ্যদিয়ে শেষ হবে তিন দিনের এ আয়োজন।

বুধবার সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, মুসল্লীদের আগমনে ইজতেমা এলাকা জিকির আসগারে মুখরিত হয়ে উঠছে। ঢাকার কাকরাইল থেকে বিশিষ্ট তাবলীগ জামাতের মুরব্বি মাওলানা মোহাম্মদ হোসাইন, মাওলানা ওমর ফারুক ও মাওলানা বেলাল হোসেন এসে ইজতেমায় বয়ান করবেন বলে জানাগেছে।

পুলিশ জানিয়েছে, ইজতেমা নিরাপত্তার জন্য ২ শতাধিক পুলিশসহ আইনশৃংখলা বাহিনীর সদস্য নিয়োজিত করা হয়েছে।
সিসি ক্যামেরার মাধ্যমে পুরো ইজতেমা মাঠ নিয়ন্ত্রনের ব্যবস্থা রয়েছে। পাশাপাশি শতাধিক যুবককে স্বেচ্ছাস্বেবক হিসেবে সার্বিক কাজ তত্তাবধায়নের জন্য নিয়োজিত রাখা হয়েছে। ইতোমধ্যে মাঠে বিদ্যুৎ, পানি সহ পয়ঃনিস্কাশনের জন্য সার্বিক ব্যবস্থাপনা গ্রহন করা হয়েছে।
শরীয়তপুরের জেলা প্রশাসক মো. মাহমুদুল হোসাইন খান, পুলিশ সুপার সাইফুল্লাহ আল মামুন, পালং মডেল থানার ওসি মো. মনিরুজ্জামানসহ সরকারি কর্মকর্তাগন মাঠের সার্বিক দিক পরিদর্শন করেছেন।

শরীয়তপুরের পুলিশ সুপার সাইফুল্লাহ আল মামুন পরিবর্তন ডটকমকে বলেছেন, ইজতেমার সার্বিক নিরাপত্তা বিধানের জন্য দুই শতাধিক পুলিশ সহ আইন শৃংখলা বাহিনীর সদস্য নিয়োজিত করা হয়েছে। নিরাপত্তার কোন প্রকার সমস্যা হবেনা। মুসল্লিরা নিরাপদে তাদের ধর্মীয় কাজ করতে পারবেন।
জেলা প্রশাসক মো. মাহমুদুল হোসাইন খান পরিবর্তন ডটকমকে বলেছেন, ইজতেমার মাঠের সার্বিক ব্যবস্থাপনা কাজ ইতোমধ্যে শেষ হয়েছে। সাবির্ক নিরাপত্তা দেয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

এআরআর/এএফ