রাচিতেই স্মিথকে ছাড়িয়ে যাবেন কোহলি?

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৯ | ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

রাচিতেই স্মিথকে ছাড়িয়ে যাবেন কোহলি?

পরিবর্তন ডেস্ক ৩:১৫ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১৪, ২০১৯

রাচিতেই স্মিথকে ছাড়িয়ে যাবেন কোহলি?

জমে উঠেছে বিরাট কোহলি ও স্টিভেন স্মিথের মধ্যকার শ্রেষ্ঠত্বের দ্বৈরথ। দীর্ঘ এক বছরের নিষেধাজ্ঞা থেকে ফিরে এক অ্যাশেজেই নিজের শীর্ষস্থান দখল করেন নেন স্মিথ। ফলে দুইয়ে নেমে যেতে হয় কোহলিকে।

এদিকে শীর্ষস্থান থেকে নেমে যাওয়ার বিষয়টি মোটেও ভালো লাগেনি কোহলির। পুনেতে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে দুর্দান্ত এক ডাবল সেঞ্চুরি করে নিজের রেটিং পয়েন্ট বাড়িয়ে স্মিথের ঘাড়ের কাছে নিশ্বাস ফেলছেন কোহলিও।

আইসিসির সর্বশেষ টেস্ট র‌্যাঙ্কিংয়ে কোহলি দুইয়ে থাকলেও স্মিথের চেয়ে মাত্র ১ পয়েন্ট দূরে আছেন তিনি। কোহলির রেটিং পয়েন্ট ৯৩৬। অন্যদিকে স্মিথের ৯৩৭।

ক্যারিয়ারের শুরু থেকেই স্মিথ-কোহলি একে অপরের প্রতিদ্বন্দ্বী। ২০০৮ সালে দুই জন দেশের হয়ে যুব বিশ্বকাপ খেলেছিলেন। কোহলির নেতৃত্ব সেবার শিরোপাও জেতে ভারত। স্মিথ ওই যুব বিশ্বকাপে অস্ট্রেলিয়া দলের সদস্য ছিলেন।

আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারের শুরুতেই নিজ নিজ দেশের হয়ে সমান তালে আলো ছড়াতে থাকেন তারা। এক সময় দুই জনের কাঁধেই ওঠে নিজ নিজ দেশের অধিনায়কত্বের দায়িত্ব।

ফলে আরো জমে ওঠে দ্বৈরথ। কিন্তু গেল বছর হঠাৎ তাল কেটে যায়। ছিটকে পড়েন স্মিথ। গেল মার্চে বল ট্যাম্পারিং কেলেঙ্কারিতে জড়িয়ে সব ধরনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে নিষিদ্ধ হন স্মিথ। ফলে ক্রিকেট সাম্রাজ্যের অপ্রতিদ্বন্দ্বী অধিপতি হয়ে ওঠেন কোহলি।

গত এক বছরের নিজের রেকর্ড ক্রমেই সমৃদ্ধ করতে থাকেন ভারত অধিনায়ক। তবে চলতি বছরের আগস্টে অ্যাশেজ দিয়ে আবার সাদা পোশাকে ফেরেন স্মিথ। যদিও অধিনায়কত্বের আর্ম ব্যান্ড এখনও ওঠেনি তার হাতে।

এই অ্যাশেজেই নিজের শাপমুক্তির গল্প লেখেন স্মিথ। এজবাস্টনের প্রথম টেস্টেই করেছিলেন জোড়া সেঞ্চুরি। লর্ডসে প্রথম ইনিংসে আউট হয়েছিলেন ৯২ রানে। তার আগে অবশ্য আর্চারের বাউন্সিতে মাথায় আঘাত পান তিনি। ফলে দ্বিতীয় ইনিংসে আর ব্যাট করতে পারেননি। একই কারণে খেলতে পারেননি হেডিংলির তৃতীয় টেস্ট। চতুর্থ টেস্টে ফিরেই করলেন ডাবল সেঞ্চুরি। পঞ্চম টেস্টেও পেয়েছেন রান।

সিরিজে তার ইনিংসগুলো এরকম— এজবাস্টন (১৪৪ ও ১৪৩), লর্ডস (৯২), ওল্ড ট্রাফোর্ড (২১১ ও ৮২) ও দ্য ওভাল (৮০ ও ২৩)। অর্থাৎ মোট সাত ইনিংসে একবারই পঞ্চাশের নিচে আউট হয়েছেন তিনি। পুরো টেস্টে সেঞ্চুরি করেছেন ৩টি, যার একটি আবার ডাবল সেঞ্চুরি। সব মিলিয়ে মোট রান ৭৭৪, গড় ১১০.৫৭। এমন অবিশ্বাস্য পারফরম্যান্সে আবারে র‌্যাঙ্কিংয়ে নিজের শীর্ষস্থান ফিরে পান তিনি। দুই নেমে আসেন কোহলি।

তবে একমাস বাদেই জবাব দিলেন কোহলি। পুনে টেস্ট শুরুর আগে তার রেটিং পয়েন্ট ছিল ৮৯৯। এই টেস্টে ক্যারিয়ারের সপ্তম ডাবল সেঞ্চুরি (২৫৪*) তুলে নিজের রেটিং পয়েন্ট বাড়িয়ে নেন। কোহলি রেটিং পয়েন্ট এখন ৯৩৬। মানে স্মিথের চেয়ে মাত্র ১ পয়েন্ট পেছনে।

এই দূরত্বও কমিয়ে নেওয়ার সুযোগ পাচ্ছেন কোহলি। রাচিতে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে সিরিজের তৃতীয় ও শেষ টেস্টে মাঠে নামবে ভারত। ওই টেস্টেই হয়তো স্মিথকে হটিয়ে নিজের শীর্ষস্থান দখল করে নেবেন ভারত অধিনায়ক।

পিএ

 

 

ক্রিকেট: আরও পড়ুন

আরও