জাসপ্রিত বুমরাহকে এত ভয় লারার!

ঢাকা, ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ | 2 0 1

জাসপ্রিত বুমরাহকে এত ভয় লারার!

পরিবর্তন ডেস্ক ৫:৩১ অপরাহ্ণ, মে ২৫, ২০১৯

জাসপ্রিত বুমরাহকে এত ভয় লারার!

ওয়াসিম আকরাম, ওয়াকার ইউনুস, শোয়েব আখতার, ইয়ান বোথাম, ডেনিস লিলি, গ্লেন ম্যাকগ্রা, ব্রেট লি, অ্যালান ডোনাল্ড, শন পোলক-ক্যারিয়ারজুড়ে কত বিধ্বংসী ফাস্ট বোলারদেরই তো মুখোমুখি হয়েছেন ব্রায়ান লারা। ব্যাট হাতে মাঠের বাইশগজি জমিনে সব গতিদানবের বিরুদ্ধেই লড়াই করেছেন বুক চিতিয়ে। ভয় পাওয়া দূরের কথা, ছেড়ে কথা বলেননি কাউকে। আজন্ম লড়াকু সেই লারার এত ভয় জাসপ্রিত বুমরাহকে!

ক্যারিবীয় বরপুত্র নিজেই বললেন, বুমরাহর মুখোমুখি হতে চাইছেন না তিনি!

গতি আর ব্যতিক্রমী অদ্ভূত অ্যাকশন দিয়ে বুমরাহ নিজেকে ভয়ঙ্কর একজন পেসার হিসেবেই প্রমাণ করেছেন। অনেকের মতেই, ওয়ানডে ফরম্যাটে বর্তমান বিশ্বের সেরা বোলার ভারতীয় এই পেসার। আইসিসির ওয়ানডে বোলিং র‍্যাংকিংয়েও সেই স্বাক্ষই দিচ্ছে। ওয়ানডের বোলিং র‍্যাংকিংয়ে বুমরাহই এখন এক নম্বরে।

সব ব্যাটসম্যানেরই বুমরাহর মোকাবিলা করতে গিয়ে ঝামেলা পোহাতে হয়। সেই দিক থেকে লারা ভাগ্যবানই! বুমরাহর মুখোমুখি কখনোই হতে হয়নি তাকে। কি করে মুখোমুখি হবেন, আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে বুমরাহর অভিষেকের অনেকে অনেক আগেই যে লারা আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় বলেছেন!

কিন্তু যদি লারা এখনো খেলতেন? তাহলে? পারত পক্ষে বুমরাহ’র মুখোমুখি হতে চাইতেন না! বিশ্বকাপ আলোচনায় সাবেকদের মধ্যে সবচেয়ে সরবদের একজন লারা। প্রতিনিয়তই বিশ্বকাপ প্রসঙ্গে কথা বলছেন। এই বিশ্বকাপ সম্পর্কিত এক আলোচনা প্রসঙ্গেই বুমরাহকে নিয়ে নিজের এই ভয়ের কথা জানিয়েছেন ক্যারিবীয় কিংবদন্তি, ‘যদি সম্ভব হতো, আমি বুমরার মুখোমুখিই হতে চাইতাম না! সে খুবই ভালো একজন পেসার। যার অদ্ভূত একটা অ্যাকশন আছে।’

তার এই কথাতেই প্রমাণিত, পেসার বুমরায় কতটা মুগ্ধ তিনি। তবে সেই মুগ্ধতা থেকে কল্পনায় শুধু ভয়ের ছবিই নয়, বাইরে বসে বুমরাহর দুর্বলতাটাও খুঁজে বের করেছেন লারা। যা কিনা প্রতিনিয়ত ‍বুমরাহর মুখোমুখি হওয়া হালের ব্যাটসম্যানরা পারেননি!

নিজের আবিষ্কৃত বুমরাহকে মোকাবিলার করার কৌশলটা প্রকাশ্যে বাতলেও দিয়েছেন লারা। বলেছেন, বুমরাহকে পাল্টা আক্রমণ করলে লাভ হবে না, তাতে হিতে বিপরীতই হবে। নিজের উইকেটটা খোয়াতে হবে। ‘আমি ওর মুখোমুখি হলে ওর চোখের দিকে তাকিয়ে ওর প্রতিটা পদক্ষেপ তীক্ষ্ম দৃষ্টিতে প্রত্যক্ষ করতাম। প্রতি আক্রমণ না করে বারবার স্ট্রাইক বদল করতাম। টি-টোয়েন্টির তুলনায় ওয়ানডেতে স্ট্রাইক বদলের সুযোগ অনেক বেশি। কাজেই আপনি দরকার হলে অন্য বোলারদের উপার চড়াও হন। কিন্তু ‍বুমরাহর উপর চড়াও হয়ে লাভ হবে না।’

শ্রীলঙ্কার কিংবদন্তি স্পিনার মুত্তিয়া মুরালিধরন ও নিজ দেশের সুনীল নারাইনের সঙ্গে তুলনা করে লারা বলেছেন, ‘আগে দেখা যেত, মুরালিধরন, নারাইনের মতো বোলারদেরও ব্যাটসম্যানরা পাল্টা আক্রমণ করতে চাইত। কিন্তু পারত না। বুমরাহও ঠিক সে রকমই। আপনি প্রতি-আক্রমণ করে ওর সঙ্গে পারবেন না। আমি তাই ব্যাটসম্যানদের পরামর্শ দিব, চার-ছয় মারার চেষ্টা না করে বুমরাহ’র ৬ বলে ৬টি সিঙ্গেলস নাও। এতেই ওর উপর চাপ সৃষ্টি করা যাবে। মনে রাখতে হবে, ওর মতো বোলারের প্রতিটা দিন খারাপ যাবে না। এ আশা করাটাই বড় ভুল হবে!’

কেআর/

 

ক্রিকেট: আরও পড়ুন

আরও