চিকিৎসকদের এমন আচরণ কাম্য নয়

ঢাকা, রবিবার, ২৬ মে ২০১৯ | ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬

চিকিৎসকদের এমন আচরণ কাম্য নয়

পরিবর্তন প্রতিবেদক ৯:২৬ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ২৯, ২০১৯

চিকিৎসকদের এমন আচরণ কাম্য নয়

নড়াইল-২ আসনের সংসদ সদস্য ও জাতীয় ওয়ানডে ক্রিকেট দলের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজাকে প্রতি অশালীন ক্ষোভ কাম্য নয় বলে জানিয়েছেন সাবেক দুই ক্রিকেটার।

মাশরাফির এক সময়ের সতীর্থ জাভেদ ওমর বেলিম ও মোহাম্মদ রফিক বলেছেন, ‘সমাজের সবচেয়ে মেধাবীরাই চিকিৎসক হন। তারা এমন কুরুচিপূর্ণ আক্রোশ কিভাবে প্রকাশ করতে পারছেন? একজন জনপ্রতিনিধিকে তাদের জনগণের স্বার্থই দেখতে হবে সবার আগে।’

প্রসঙ্গত, বাংলাদেশ ওয়ানডে ক্রিকেট দলের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা এমপি দু’দিনের সফরে গত ২৫ এপ্রিল নিজ আসন নড়াইল যান। সেখানে তিনি সদর হাসপাতাল পরিদর্শনে গিয়ে রোগীদের অবর্ণনীয় কষ্ট দেখে ক্ষুব্ধ হন।

তার হঠাৎ পরিদর্শনের সময় চিকিৎসক না পেয়ে হাজিরা খাতা দেখেন। তাতে আরও চমকে যান তিনি। দেখতে পান ছুটি ছাড়াই টানা অনুপস্থিত চিকিৎসকরা।

এতে ক্ষোভটা আরও বেড়ে যায়। নিজেই রোগী সেজে এক চিকিৎসককে ফোন করেন। কিন্তু, চিকিৎসক রোববার হাসপাতালে এসে তাকে চিকিৎসা নিতে পরামর্শ দেন।

পরে নিজের জনপ্রতিনিধি পরিচয় দিয়ে ছুটি ছাড়া তার কর্মস্থলে অনুপস্থিতির বিষয়ে আশানুরূপ জবাব চান। কিন্তু, ওই চিকিৎসক সদুত্তর না দিলে কথা বলার এক পর্যায়ে নড়াইল এক্সপ্রেসখ্যাত মাশরাফি একটু চড়াও হন। বলে ফেলেন, আপনি কি আমার সঙ্গে ফাজলামো করছেন? আপনার কি সাজা হওয়া উচিত আপনিই বলেন?

মাশরাফির ফোনের এই কথোপকথন কেউ রেকর্ড করে সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে দেন। এরপরই চিকিৎসক সমাজের পক্ষ থেকে মাশরাফির প্রতি ক্ষোভ উগরে দেয়া হচ্ছে, অনেক অকথ্য ভাষায় সোশ্যাল মিডিয়ায় তার বিরুদ্ধে লেখালেখি করা হচ্ছে।

তবে মাফরাফির প্রতি চিকিৎসকদের এমন আচরণকে আনাকাঙ্খিত বলেছেন সাবেক ক্রিকেটার জাভেদ ওমর বেলিম ও মোহাম্মদ রফিক।

পরিবর্তন ডটমকের সঙ্গে আলাপকালে জাতীয় দলের সাবেক ওপেনার জাভেদ ওমর বলেন, ‘মাশরাফি ওই (নড়াইল) এলাকার প্রতিনিধি। সেখানে সে ভিজিট করবে, সরাসরি যাবে, আদেশ দিবে, এটাইতো এখন তার কাজ। অন্যথায় তারতো এমপি হওয়া কিংবা রাজনীতি করার দরকার ছিল না।’

তিনি বলেন, ‘চিকিৎসকরা সমাজের সবচেয়ে মেধাবী। তাদের এক্সটা কোয়ালিটি থাকতে হয়। কিন্তু, তারা যদি নিজেদের স্বার্থে এমন আচরণ করে থাকেন, তা অত্যন্ত দুঃখজনক। মাশরাফিকে জনপ্রতিনিধি হিসেবে যথাযথভাবে কাজ করতে দিতে হবে।’

বিশ্বকাপের আগ মুহূর্তে মাশরাফির সঙ্গে এমন আচরণ খেলায় কোনো প্রভাব ফেলবে কিনা- এমন প্রশ্নে জাভেদ ওমর বলেন, ‘মাশরাফি পেশাদার খেলোয়াড়। মনে হয় না, এমন কথাবার্তায় তার কিছু হবে। এমপি নির্বাচন করতে চাওয়ার পর থেকেইতো তার বিরুদ্ধে নানা কথা বলা হচ্ছে। কিন্তু, মাশরাফি তার খেলায় পূর্ণ মনোনিবেশই রেখেছে।’

এ বিষয়ে সাবেক বাম-হাতি স্পিনার মোহাম্মদ রফিক পরিবর্তন ডটকমকে বলেন, ‘চিকিৎসকেরা যদি সঠিকভাবে তাদের দায়িত্ব পালন না করেন, তাহলে তাদের ভুল ধরিয়ে দিতে হবে, বলতে হবে। আমিতো মনে করি মাশরাফি ঠিক কাজই করেছে।’

তিনি বলেন, ‘আল্লাহর পরে সুস্থতার জন্য আমাদের চিকিৎসক দরকার। এখন যদি চিকিৎসা করাতে গিয়ে তাদেরই না পাই, তাহলে কি হবে ভাবা যায়? তখনতো কথা উঠবে।’

রফিক আরও বলেন, ‘যারা মাশরাফির বিরুদ্ধে উল্টা-পাল্টা লিখছেন, তাদের আরেকটু চিন্তা-ভাবনা করা দরকার। আর মাশরাফি হাসপাতাল পরিদর্শনে গিয়ে যে কথাগুলো বলেছে, তা মানুষের মঙ্গলের জন্যেই বলেছে।’

টিএটি/আইএম