প্রমাণ, নাকি স্বপ্নের দরজা খুললেন তাসকিন?

ঢাকা, শুক্রবার, ২৪ মে ২০১৯ | ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬

প্রমাণ, নাকি স্বপ্নের দরজা খুললেন তাসকিন?

পরিবর্তন প্রতিবেদক ৫:৩৮ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১৯, ২০১৯

প্রমাণ, নাকি স্বপ্নের দরজা খুললেন তাসকিন?

তাসকিনের এই অগ্নি-ঝরা বোলিংয়ের অর্থ কি? নিজেকে প্রমাণ করলেন? নাকি বিশ্বকাপ স্বপ্নের দরজা খুললেন নতুন করে?

‘যথেষ্ট ম্যাচ ফিটনেস নেই’— এই যুক্তি দেখিয়েই বিশ্বকাপের দলে রাখা হয়নি অভিজ্ঞ পেসার তাসকিনকে। সেই দুর্বল ফিটনেস নিয়েই কিনা তিনি আজ ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে বল হাতে ঝলসে উঠলেন। ঝলসানো বোলিংয়ে প্রাইম দোলেশ্বরের বিপক্ষে তুলে নিলেন ৪ উইকেট।

মঙ্গলবার বিশ্বকাপের দল ঘোষণা করেছে বিসিবি। দল ঘোষণার পরই কান্নায় ভেঙে পড়েন তাসকিন আহমেদ। বিসিবি ঘোষিত ১৫ সদস্যের দলে যে তার নাম নেই। নাম না থাকা মানে বুকের ভেতর লালন করা স্বপ্নের মৃত্যু। ‘মৃত্যু’ শোকতো মানুষকে কাঁদায়ই!

শুধু বিশ্বকাপ দলেই নয়, আয়ারল্যান্ডে ত্রিদেশীয় সিরিজের দলেও জায়গা হয়নি ২৪ বছর বয়সী তাসকিনের। তবে হতাশায় কেঁদে ফেললেও ভেতরের স্বপ্নটা একেবারে মরে যায়নি। এখনো বিশ্বকাপে খেলার আশার বাতি টিপটিপ করে তার বুকে জ্বলছে। সেটি বোঝা গেছে গতকাল বৃহস্পতিবার ফেসবুকে দেয়া পোস্টেও।

নিজের ফেসবুকে তাসকিন লেখেন, ‘স্বপ্ন তোমার পিছু ছাড়ব না। আমি অবিচল ছুটে যাব, হারব না।’

আগের দিন ফেসবুকে দেয়া লড়াইয়ের ঘোষণাটা আজ মাঠেও প্রমাণ করলেন তাসকিন। ৪ উইকেট নিয়ে দোলেশ্বরের ব্যাটিং মেরুদণ্ড ভেঙে দিয়ে প্রমাণ করলেন, লড়াই তিনি সত্যিই চালিয়ে যাবেন। পরে যা হওয়ার হবে।

অনেকেই প্রশ্ন তুলতে পারেন, দল ঘোষণা করে দেয়ার পর আর কি হবে?

হ্যাঁ, হওয়ার সুযোগ আছে। আইসিসির বাইলজ অনুযায়ী আগামী ২৩ মে পর্যন্ত ঘোষিত দলে পরিবর্তন আনার সুযোগ পাবে দলগুলো।

মঙ্গলবার দল ঘোষণার পর বিসিবির প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নুও আভাস দিয়েছেন, তাসকিনের সম্ভাবনা এখনো শেষ হয়ে যায়নি। বলেছেন, ‘এখনো সময় আছে। বিশ্বকাপের আগে আয়ারল্যান্ডে ত্রিদেশীয় সিরিজ আছে। কোনো কারণে পেস বোলার দরকার হলে আমরা তাসকিনকে বিবেচনা করব।’

যে সিরিজের পারফরম্যান্সের ভিত্তিতে দলে পরিবর্তনের সিদ্ধান্ত হতে পারে, সেই ত্রিদেশীয় সিরিজের দলেও তাসকিন নেই। ফলে নিজেকে পুরো ফিট প্রমাণ করতে হলে তাসকিনকে তা করতে হবে ঘরোয়া ক্রিকেট খেলেই। আজ প্রথম সুযোগেই সেই প্রমাণটা দিলেন ঢাকার ছেলে।

বিকেএসপির ৩ নম্বর মাঠে টস জিতে প্রথমে ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নেন দোলেশ্বরের অধিনায়ক মার্শাল আইয়ুব। কিন্তু, তার সেই সিদ্ধান্তকে বুমেরাং প্রমাণ করে দিয়েছেন তাসকিন। বল হাতে পেয়েই ৯ ওভারে ৫৪ রান দিয়ে একে একে ৪ উইকেট তুলে নিয়েছেন তাসকিন। দল লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জকেও এনে দিয়েছেন জয়।

৪টিই খুব গুরুত্বপূর্ণ উইকেট। আউট করেছেন দোলেশ্বরের হয়ে দুর্দান্ত মৌসুম কাটানো সাইফ হাসান (৩৭), আজকের ম্যাচে দোলেশ্বরের পক্ষে সর্বোচ্চ রান করা (৭২) সৈকত আলি, দোলেশ্বরের অধিনায়ক মার্শাল আইয়ুব (২) ও তাইবুর রহমানকে (২৭)।

তাসকিনের তোপের মুখে দোলেশ্বর ৪৫ ওভারে মাত্র ২০৫ রানেই অলআউট হয়ে যায়। জবাবে তাসকিনের রূপগঞ্জ ৪৪.২ ওভারে মাত্র ৩ উইকেট হারিয়েই পৌঁছে গেছে জয়ের লক্ষ্যে (২০৮/৩)। পেয়েছে ৭ উইকেটের জয়।

রূপগঞ্জের এই জয়ে তাসকিনের চেয়েও অবশ্য বড় অবদান শাহরিয়ার নাফীসের। দুর্দান্ত এক সেঞ্চুরি করে দলকে সহজেই জয়ের বন্দরে পৌঁছে দিয়েছেন তিনি। শেষ পর্যন্ত অপরাজিত ১১৩ রানে। ১৪২ বলের ইনিংসটিতে তিনি একটি ছক্কা ও ১১টি চার মেরেছেন।

এ ছাড়া মেহেদী মারুফ ৪১ ও অধিনায়ক নাঈম ইসলাম করেছেন অপরাজিত ২ রান।

অপরাজিত সেঞ্চুরির সুবাদে ম্যাচ সেরার পুরস্কারটি পেয়েছেন শাহরিয়ার নাফীসই। তবে দুর্দান্ত বোলিংয়ে দোলেশ্বরকে কম রানে বেঁধে ফেলে রূপগঞ্জের জয়ের পথটা তৈরি করে দিয়েছিলেন তাসকিনই।

শেষ পর্যন্ত কী হবে, সেটি পরের বিষয়। তবে তাসকিনের এই আগুন-ঝরা বোলিং নিশ্চিতভাবেই নির্বাচকদের বাড়তি চাপে ফেলল!

কেআর/আইএম