প্রস্তুতি ম্যাচে হারলেও ‘মুশফিক-মাহমুদউল্লাহ’ স্বস্তি

ঢাকা, শুক্রবার, ৬ ডিসেম্বর ২০১৯ | ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

প্রস্তুতি ম্যাচে হারলেও ‘মুশফিক-মাহমুদউল্লাহ’ স্বস্তি

পরিবর্তন ডেস্ক ২:৩৫ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১০, ২০১৯

প্রস্তুতি ম্যাচে হারলেও ‘মুশফিক-মাহমুদউল্লাহ’ স্বস্তি

বাংলাদেশের নিউজিল্যান্ড সফরের শুরুটা হলো হার দিয়ে। আজ লিংকনের বার্ট সাটক্লিফ ক্রিকেট গ্রাউন্ডের প্রস্তুতি ম্যাচটিতে বাংলাদেশ হেরে গেছে ২ উইকেটে। টস হেরে প্রথমে ব্যাটিংয়ে নামা বাংলাদেশ ২৪৭ রানেই অলআউট হয়ে যায়। জবাবে নিউজিল্যান্ড একাদশ ৮ উইকেট হারিয়ে পৌঁছে গেছে জয়ের লক্ষ্যে।

১৩ ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু হতে যাচ্ছে ৩ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ। তার আগে প্রস্তুতি ম্যাচে হারটা এক দিক থেকে হতাশারই। তবে সেই হতাশার ফাঁকে স্বস্তিও আছে। স্বস্তির নাম মুশফিকুর রহীম ও মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। দলের চরম বিপদের মুখে দাঁড়িয়ে দুই ভায়রাভাই যেভাবে ব্যাটিং করেছেন তা সত্যিই প্রশংসনীয়। পাশাপাশি দলের বাকিদের জনর‌্য আত্মবিশ্বাস্য খুঁজে নেওয়ার দাওয়াইও।

নিউজিল্যান্ড সিরিজের জন্য ঘোষিত দলের অর্ধেক খেলোয়াড় এখনো নিউজিল্যান্ডে গিয়ে পৌঁছাননি। তারা আছেন রাস্তায়। প্রথম যাত্রায় যারা গেছেন, তাদের নিয়েই কোনো রকমে জোড়াতালি দিয়ে একাদশ সাজায় বাংলাদেশ। যে দলটির নেতৃত্বভার ছিল মেহেদী হাসান মিরাজের ওপর।

একে তো জোড়াতালির দল। তার ওপর ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুতেই চরম বিপর্যয়। দলীয় ১২ রানেই ২ উইকেট হাওয়া। ফিরে যান মুমিনুল হক ও লিটন দাস। এই অবস্থায় সৌম্য সরকার ও মোহাম্মদ মিঠুনদের দায়িত্ব ছিল দলকে টেনে তোলা। উল্টো তারাও মুমিনুল-লিটনকে অনুসরণ করে ফিরে যান দ্রুতই। স্কোরবোর্ডে ৩১ রান উঠতেই ৪ উইকেট নেই। নিউজিল্যান্ডের সিমিং কন্ডিশনের চ্যালেঞ্জটা তখন বাংলাদেশের জন্য আরও বড়।

সেই চ্যালেঞ্জ জয় করে দলকে টেনে তুলেছেন মুশফিক ও মাহমুদউল্লাহ। বিপর্যয়ের মুখে দাঁড়িয়ে দুজনে গড়েন ১০৮ রানের জুটি। লড়াই করে শতরানের এই জুটি গড়ার পথে দুজনেই তুলে নিয়েছেন হাফসেঞ্চুরি। দলকে ১৩৯ রানে রেখে আউট হন মুশফিক। এসএম সোলিয়ার শিকার হওয়ার আগে মুশফিক ৬১ বলে খেলেছেন ৬২ রানের ইনিংস। যে ইনিংসটিতে ৮টি চার মেরেছেন তিনি।

মুশফিকের বিদায়ের পর মাহমুদউল্লাহ জুটি বাঁধেন সাব্বির রহমানের সঙ্গে। এই জুটিতে তারা যোগ কনে ৩৫ রান। দলকে ১৭৪ রানে রেখে আউট হন মাহমুদউল্লাহ। ১০ চারে তিনি ৮৮ বলে খেলেছেন ৭২ রানের ইনিংস। এরপর সাব্বিরের ৪১ বলে ৪০ ও শেষ দিকে নাঈম হাসানের ২৩ বলে ১৭ রানের ইনিংসে আড়াই শর কাছাকাছি পৌঁছায় বাংলাদেশ।

জবাবে নিউজিল্যান্ড একাদশ এক পর্যায়ে ৩৫ ওভারে মাত্র ৩ উইকেট হারিয়েই তুলে ফেলে ১৮২ রান। সেখান থেকে ৫ উইকেটে ২২৭। সহজ জয়ের দিকেই হাঁটছিল নিউজিল্যান্ড একাদশ। কিন্তু শেষ দিকে মুহূর্তের এক ভেল্কিতে নিউজিল্যান্ড একাদশের জয়টা ২ উইকেটের। ২৪১ থেকে ২৪৫-এই ৫ রানে নিউজিল্যান্ড একাদশ হারায় আরও ৩ উইকেট। তবে ওই ছোট্ট ঝড়ের পরও তাদের জয় পেতে অসুবিধা হয়নি।

ব্যাটিংয়ের পর বল হাতেও নিজ দক্ষতা দেখিয়েছেন মাহমুদউল্লাহ। ৩৭ রান খরচায় নিয়েছেন ২টি উইকেট। ২টি করে উইকেট নিয়েছেন মোস্তাফিজুর রহমান এবং অধিনায়ক মেহেদী হাসান মিরাজও। মোস্তাফিজ ৯ ওভারে ৩ মেডেনসহ ৩৬ রান দিয়ে নিয়েছেন ২ উইকেট। মিরাজের খরচা হয়েছে ৪৬ রান। একটি করে উইকেট নিয়েছেন নাঈম হাসান ও সৌম্য সরকার।

কেআর

 

ক্রিকেট: আরও পড়ুন

আরও