তারপরও পাকিস্তানই ব্যাকফুটে

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৭ জানুয়ারি ২০১৯ | ৪ মাঘ ১৪২৫

তারপরও পাকিস্তানই ব্যাকফুটে

পরিবর্তন ডেস্ক ৯:১২ পূর্বাহ্ণ, জানুয়ারি ১২, ২০১৯

তারপরও পাকিস্তানই ব্যাকফুটে

প্রথম দুই টেস্টে হেরে এরই মধ্যে সিরিজ খুইয়েছে পাকিস্তান। জোহানেসবার্গের শেষ টেস্টে হারলে পাকিস্তানিদের গায়ে মাখতে হবে হোয়াইটওয়াশের লজ্জা। অবস্থা দৃষ্টি মনে হচ্ছে, হোয়াইটওয়াশ লজ্জাই যেন ডাকছে সফরকারী পাকিস্তানকে। জোহানেসবার্গ টেস্টের প্রথম দিনেই যে ব্যাকফুটে পাকিস্তান।

অথচ টস জিতে ব্যাটিং নেওয়া স্বাগতিক দক্ষিণ আফ্রিকাকে ২৬২ রানেই গুটিয়ে দেয় পাকিস্তানি বোলাররা। কিন্তু জবাব দিতে নেমে পাকিস্তানের শুরুটা হয়েছে ভয়ঙ্কর। দিন শেষে মাত্র ১৭ রানের মধ্যেই হারিয়ে ফেলেছে ২ উইকেট। ফলে এখনো দক্ষিণ আফ্রিকার চেয়ে ২৪৫ রানে পিছিয়ে পাকিস্তান। হাতে রয়েছে ৮টি উইকেট।

জবাব দিতে নেমে পাকিস্তান অবশ্য ২ উইকেট হারায় ৬ রানের মাথায়ই। পর পর দুই বলে শান মাসুদ ও আজহার আলিকে ফিরিয়ে দিয়ে হ্যাটট্রিক সম্ভাবনা জাগিয়েছিলেন ভারলন ফিল্যান্ডার।

কিন্তু প্রোটিয়া পেসারের হ্যাটট্রিক স্বপ্ন পূরণ হয়নি। তবে সফরকারীদের ঠিকই কাঁপিয়ে দিয়েছেন। শান মাসুদ ফিরেছেন ২ রান করে। আজহার আলি মেরেছেন গোল্ডেন ডাক! মানে প্রথম বলেই আউট। দিন শেষে ইমাম-উল-হক ১০ ও নাইটওয়াচম্যান হিসেবে নামা মোহাম্মদ আব্বাস উইকেটে আছেন শূন্য রানে।

এর আগে টস জিতে ব্যাটিং নেওয়া দক্ষিণ আফ্রিকার শুরুটা ভালো ছিল না। দলীয় ৬ রানেই আউট হন ডিন এলগার। ৫ রান করা এলগারকে বিদায় করে পাকিস্তানকে উল্লাসে মাতান আব্বাস। কিন্তু পাকিস্তানের সেই উল্লাস মিলিয়ে যায় হাওয়ায়। দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে মারকরাম ও হাশিম আমলা গড়েন ১২৬ রানের জুটি।

৯০ রান করা মারকরামকে ফিরিয়ে দিয়ে এই জুটি ভাঙেন ফাহিম আশরাফ। একটু পর ৪১ রান করা আমলাকে ফেরান শাদাব খান। এরপর চতুর্থ উইকেটে টেম্বা ডি ব্রুইন ও জুবাইর হামজা গড়েন ৭৫ রানের জুটি। তবে আব্বাস ও মোহাম্মদ আমিরের শিকার হয়ে এই ‍দুজনই যুগপতই বিদায় নেন। তাদের বিদায়ের পর বাকিদের কাউকেই দাঁড়াতে দেয়নি পাকিস্তানি বোলাররা। ফলে ৩ উইকেটে ২২৯ রান করে ফেলা দক্ষিণ আফ্রিকা মাত্র ২৬২ রানেই অলআউট হয়ে যায়। মানে স্বাগতিকরা শেষ ৭ উইকেট হারায় মাত্র ৩৫ রানের ব্যবধানে!

কিন্তু বোলিংয়ের এই সাফল্যের হাসি দিন শেষে ধরে রাখতে পারেননি পাকিস্তানি ব্যাটসম্যানরা। দ্রুত দুই উইকেট হারিয়ে তারাই বরং শঙ্কায় কাঁপছে। হোয়াইটওয়াশের লজ্জা এড়াতে চাইলে আজ দ্বিতীয় দিনে ব্যাট হাতে জ্বলে উঠতে হবে পাকিস্তানি ব্যাটসম্যানদের।

কেআর