‘ইনজামামের ভাতিজা হওয়া তো আমার অপরাধ নয়’

ঢাকা, বুধবার, ২১ নভেম্বর ২০১৮ | ৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৫

‘ইনজামামের ভাতিজা হওয়া তো আমার অপরাধ নয়’

পরিবর্তন ডেস্ক ৫:৩৮ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১৪, ২০১৮

‘ইনজামামের ভাতিজা হওয়া তো আমার অপরাধ নয়’

ইমাম-উল-হক (ফাইল ফটো)

এক বছর আগে প্রথম যখন জাতীয় দলে ডাক পেলেন ইমাম-উল-হক, তখন থেকেই ব্যাপারটা যেন তার নামের সঙ্গে অপবাদের মতো জুড়ে আছে। ‘অপবাদ’ই তো। পাকিস্তানের সাবেক অধিনায়ক ইনজামাম-উল-হকের ভাতিজা তিনি। ইনজামাম আবার পাকিস্তান দলের প্রধান নির্বাচক। মিডিয়ায় তাই বরাবরই স্বজনপ্রীতির বিষয়টি এসেছে। যদিও অভিষেকের পর থেকে এখন পর্যন্ত দুর্দান্ত পারফরম্যান্স করে গেছেন পাকিস্তানি ওপেনার।

সংযুক্ত আরব আমিরাতে শনিবার থেকে শুরু এশিয়া কাপে পাকিস্তান দলের অন্যতম সারথি ইমাম। সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে এখানেও ইনজামামের সঙ্গে তার সম্পর্কের কথা আসছে। কিন্তু এ প্রসঙ্গে কথা বলতে গিয়ে এবার একটু ছাঁচাছোলা মন্তব্যই করলেই ইমাম। এক কথায় বলতে গেলে ধুয়ে দিয়েছেন তিনি সংবাদমাধ্যমকে। বলেছেন, ‘ইনজামামের ভাতিজা হওয়া তো আমার অপরাধ নয়।’

ইমাম পাকিস্তান দলে এক বছর হয়ে গেছে। কিন্তু আবারো ইনজামামের সঙ্গে তার চাচা-ভাতিজা সম্পর্কের বিষয়টি আসছে অন্য কারণে। ইনজামামের বিরুদ্ধে আসলে নতুন অভিযোগ, নিজের ছেলেকে অনূর্ধ্ব-১৯ দলে নিতে প্রভাব খাটিয়েছেন তিনি। তাই ইমামকেও নতুন করে প্রশ্ন শুনতে হচ্ছে। ইমাম উত্তর দিলেন এভাবে, ‘আমি স্বীকার করছি মিডিয়া অপ্রয়োজনে আমার সমালোচনা করছে। কিন্তু আমি চুপ থেকে শুধু পারফরর্ম করে গেছি এবং আগের মতো করে যেতে চাই।’

জাতীয় দলে ডাক পাওয়ার আগে নিজের পারফরম্যান্সে কথা উল্লেখ করে ইমাম বলেন, ‘যখন আমি ডাবল সেঞ্চুরি করলাম (প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেটে) তখন মিডিয়া আমার পক্ষে ছিল না। যখন আমি পাকিস্তান ‘এ’ দলের হয়ে বাংলাদেশের বিপক্ষে খেলি তখনও সংবাদমাধ্যম পক্ষে ছিল না। যখন আমি জাতীয় দলে নির্বাচিত হলাম, তখনই আমাকে ইনজামামের ভাতিজা ডাকা শুরু হলো। যখন আমি প্রথম সেঞ্চুরি করলাম (অভিষেক ওয়ানডেতে) সেটিকে সুযোগ বলে অভিহিত করা হয়েছিল।’

ইনজামামের ভাতিজা অভিহিত করে ইমামের পারফরম্যান্সগুলোকে আড়াল করা হয় বলেও একরকম অভিযোগ আনছেন ২২ বছরের এই ক্রিকেটার। ইমাম বলেন, ‘ডাবলিনে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে যখন জয়ে আমি দলকে সহায়তা করলাম, মিডিয়া কিছু বলেনি। আমি যখন ১১০, ১১৩, ০, ৪৪ ও ১২৮ রান করলাম জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে, আমার পারফরম্যান্সের কিন্তু প্রশংসা করেনি।’

সমালোচনা তাকে আরো শক্তিশালী করে উল্লেখ করে ইমাম বলেন, ‘এটা আমার দোষ নয় যে আমি তার আত্মীয়। আমি শুধু ইমাম উল হক হতে চাই। এই সমলোচনাগুলো শুধু আমাকে শক্তিশালী করে এবং আমি এশিয়া কাপে ভালো পারফরম্যান্স করতে চাই। আমি এশিয়া কাপকে স্মরণীয় করে রাখতে চাই যেন মানুষ আমার পারফরম্যান্সকে মনে রাখে।’

টিএআর/এমএসআই