হঠাৎ করেই আলোচনায় লেগি লিখন

ঢাকা, শুক্রবার, ১৭ আগস্ট ২০১৮ | ২ ভাদ্র ১৪২৫

হঠাৎ করেই আলোচনায় লেগি লিখন

পরিবর্তন প্রতিবেদক ৫:৫৩ অপরাহ্ণ, মে ০৭, ২০১৮

print
হঠাৎ করেই আলোচনায় লেগি লিখন

হঠাৎ করেই সংবাদ মাধ্যমের আলোচনায় জুবায়ের হোসেন লিখন। না, কোথাও কোনো আহামরি পারফরম্যান্স করেননি তিনি। সেই ২০১৫ সাল থেকে জাতীয় দলের বাইরে। সদ্য শেষ হওয়া ঘরোয়া ক্রিকেট মৌসুমে কোনো আসরেই তার সুযোগ মেলে নি একটা ম্যাচও খেলার। তারপরও লিখনকে নিয়ে আলোচনা। কারণ তিনি লেগ স্পিনার। বাংলাদেশ ক্রিকেট দলে একজন লেগির জন্য যে দীর্ঘ কালের হাহাকার।

সেই হাহাকার ঘুচিয়ে দেওয়ার সম্ভাবনা লিখনের মধ্যেই দেখেছিলেন অনেকে। ২০১৪ সালে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে তাই টেস্ট অভিষেকও হয়ে যায় তার। কিন্তু ৬ টেস্ট, ২ ওয়ানডে আর ১টি মাত্র টি-টুয়েন্টিতে থমকে আছে তার ক্যারিয়ার। প্রত্যাশা পূরণ করতে পারেননি তানভীর হায়দারও। কিন্তু ঘুরে ফিরে টাইগার একাদশে একজন লেগ স্পিনারের প্রয়োজন পড়ে। জুনে আফগানিস্তানের বিপক্ষে সিরিজ দিয়ে লম্বা ব্যস্ততায় পা দিচ্ছে টাইগাররা। যে ব্যস্ততায় থাকবে ২০১৯ বিশ্বকাপের ড্রেস রিহার্সেলও। তাই সব ঘাটতি নিয়ে তো ভাবতেই হয়।

বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক ও বিসিবির ক্রিকেট অপারেশন্স কমিটির প্রধান আকরাম খানের মনেও দলে লেগির অভাবটা খেলা করছে। তাই এই কর্তা সোমবার বললেন, ‘আমাদের মাথায় আছে বিষয়টা। একমাত্র বাংলাদেশ ছাড়া নন টেস্ট প্লেয়িং দেশেও লেগ স্পিনার আছে। সেটা নিয়ে আমরা গত দুই-তিন বছর ধরে চেষ্টা করছি।’

আর এখানে লিখনের প্রসঙ্গ আসছে স্বাভাবিকভাবে। ক্লেমন ইউনি ক্রিকেটের একটা অনুষ্ঠানে এসে আকরাম খানকে যখন লিখনকে নিয়ে প্রশ্ন শুনতে হলো, তখন তিনি বলছেন, ‘ও যদি ভালো করে এবং সিরিয়াস থাকে ইনশা আল্লাহ ও টিমে সুযোগ পাবে। আমাদের লেগি দরকার। শুধু আমাদের চাওয়াতে হবে না। ওকেও ভালো পারফর্ম করতে হবে। ভালো প্র্যাকটিস করতে হবে। ফিটনেস কি অবস্থাতে আছে সেগুলো আমরা বিবেচনা করে সিদ্ধান্ত নেব।’

প্রতিষ্ঠিত লেগ স্পিনারের অভাব দলে। তাই বলে লেগে ব্রেক পারলেই যে বাংলাদেশের জার্সি গায়ে উঠবে না এই চিরন্তন সত্যটাও মনে করিয়ে দিচ্ছেন আকরাম, ‘আমাদের আগের মতো কিন্তু এখন স্পিনার নেই। এটা আমাদের চিন্তায় আছে। যারা জুনিয়র আছে বয়সভিত্তিক দলে, নির্বাচকদের তাদের কথা বলেছি। কিছু নাম আসছে। শুধু যে লেগ ব্রেক করলেই বাংলাদেশ দলে সুযোগ পাবে তা না। কোয়ালিটিতো থাকতেই হবে। তার সঙ্গে কিন্তু ফিটনেস ও অন্যান্য জিনিস আমরা কাউন্ট করবো।’

লেগ স্পিনারের জন্য বাংলাদেশের হাহাকার কতটা প্রমাণ পাওয়া যায় আরেক সাবেক অধিনায়ক ও বোর্ড পরিচালকের কথায়। বিসিবি একাডেমি কাপ শুরু হচ্ছে সামনে। সে উপলক্ষে এদিন আলাদা একটি সংবাদ সম্মেলনে কথা বলেন খালেদ মাহমুদ সুজন। গেম ডেভেলপমেন্ট কমিটির চেয়ারম্যান এই আয়োজন নিয়ে বলার সময় জানালেন, ‘যত বেশি প্রতিভা আসবে ততোই আমাদের লাভ। এখানে আমাদের লক্ষ্যণীয় হচ্ছে তাদের প্রতিভা। আমরা অনেকদিন ধরেই লেগ স্পিনার খুঁজছি। বিশ্বের সবদেশেই ভালো একজন লেগ স্পিনার থাকলেও আমাদের দেশে নেই। ওখানে আমাদের লক্ষ্য। আমাদের ভালো চায়নাম্যান বোলার নেই। আমদের ৮-৯ ভালো ব্যাটসম্যান লাগবে। আমরা এগুলোর দিকে কিছুটা নজর রাখবো। তাদের যদি কিছুটা সামর্থ্যও থাকে, তাদের আমরা পিক করবো।’ অর্থাৎ লেগির হাহাকার ঘুচাতে তৎপর বিসিবি।

একজন লেগির হাহাকার নিয়ে আকরামের তাই শেষ কথা, ‘আমারাও পাব। এর জন্য একটু সময় দরকার। হয়তো বা দুয়েক বছরের মধ্যেই পেতে পারি।’

টিএআর/ক্যাট

 
.


আলোচিত সংবাদ