পন্টিংয়ের ১৬ বছর আগের সেই রেকর্ড ভাঙলেন রুট

ঢাকা, ১৪ জুলাই, ২০১৯ | 2 0 1

পন্টিংয়ের ১৬ বছর আগের সেই রেকর্ড ভাঙলেন রুট

পরিবর্তন ডেস্ক ১১:২৩ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ১২, ২০১৯

পন্টিংয়ের ১৬ বছর আগের সেই রেকর্ড ভাঙলেন রুট

গতকাল দ্বিতীয় সেমিফাইনালে অস্ট্রেলিয়াকে ৮ উইকেটে হারিয়ে চতুর্থ বারের মতো ফাইনালে উঠেছে ইংল্যান্ড। ফাইনালের পথে কাল অস্ট্রেলিয়ার সাবেক অধিনায়ক রিকি পন্টিংয়ের একটা রেকর্ডও ভেঙে দিয়েছেন ইংলিশ ব্যাটসম্যান জো রুট। যে রেকর্ডটি পন্টিং গড়েছিলেন ১৬ বছর আগে ২০০৩ বিশ্বকাপে।

তা রেকর্ডটা কী? বিশ্বকাপের এক আসরে সর্বোচ্চ ক্যাচ নেওয়ার রেকর্ড। ২০০৩ বিশ্বকাপে দলকে শিরোপা জেতানোর পথে পন্টিং ১১ ম্যাচে ১১টি ক্যাচ নিয়েছিলেন। কাল সেটিই ভেঙে দিয়ে জো রুট গড়লেন ১২ ক্যাচ নেওয়ার নতুন রেকর্ড। ফাইনাল ম্যাচটি যেহেতু খেলার এখনো বাকি, জো রুটের সুযোগ আছে, নিজের সদ্য গড়া রেকর্ডটাকে আরও উঁচুতে নিয়ে যাওয়ার।

এবারের বিশ্বকাপটা মূলত ব্যাটসম্যানদের কৃতিত্বের স্বাক্ষী হয়েই থাকবে ইতিহাসের পাতায়। প্রতিটা ম্যাচেই কোনো না কোনো রেকর্ডের জন্ম দিয়েছেন ব্যাটসম্যানরা। ব্যাটসম্যানদের সেই বিশ্বকাপে ব্যাটিংয়ের পাশাপাশি জো রুট ফিল্ডিার হিসেবেও নিজেকে তুলে ধরলেন অনন্য উচ্চতায়।

গ্রুপপর্বেই পন্টিংয়ের ১১ ক্যাচ ছুঁয়ে ফেলেন রুট। ফলে পন্টিংকে পেছনে ফেলতে কাল তাই রুটের দরকার ছিল একটা ক্যাচ। আদিল রসিদের বলে প্যাট কামিন্সের ক্যাচ নিয়ে সেই কোটা পূরণ করেছেন জো রুট।

তবে রেকর্ডটি গড়ার থেকে আরও এক দিক থেকে পন্টিংকে পেছনে ফেলেছেন জো রুট। পন্টিং ১১ ক্যাচ নিয়েছিলেন ১১ ম্যাচে। সেখানে জো রুট ১০ ম্যাচেই নিয়ে ফেললেন ১২ ক্যাচ। এক বিশ্বকাপে সর্বোচ্চ ক্যাচ নেওয়ার তালিকার তিন নম্বরে দক্ষিণ আফ্রিকার অধিনায়ক ফ্যাফ ডু প্লেসি। এবারের বিশ্বকাপেই তিনি ৯ ম্যাচে ১০টি ক্যাচ নিয়েছেন।

এক আসরের সর্বোচ্চ ক্যাচের রেকর্ডটি হাতছাড়া হলো বটে। তবে বিশ্বকাপের ইতিহাসে সর্বোচ্চ ক্যাচের রেকর্ডটি এখনো পন্টিংয়ের দখলেই রয়েছে। অস্ট্রেলিয়ার সাবেক অধিনায়ক সব মিলে বিশ্বকাপে সর্বোচ্চ ২৮টি ক্যাচ নিয়েছেন। তার সেই রেকর্ড সহসাই কেউ ভাঙতে পারবে বলে মনে হয় না।

কেআর

 

ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৯: আরও পড়ুন

আরও