ইতিহাসেরই পুনরাবৃত্তি হল ওল্ড ট্রাফোর্ডে

ঢাকা, ১৪ জুলাই, ২০১৯ | 2 0 1

ইতিহাসেরই পুনরাবৃত্তি হল ওল্ড ট্রাফোর্ডে

পরিবর্তন ডেস্ক ১২:৩৩ পূর্বাহ্ণ, জুন ১৭, ২০১৯

ইতিহাসেরই পুনরাবৃত্তি হল ওল্ড ট্রাফোর্ডে

ওল্ড ট্রাফোর্ডে ইতিহাসেরই পুনরাবৃত্তি হল আবার। বিশ্বকাপে পাকিস্তানের কাছে অজেয়ই থেকে গেল ভারত। রোববার পাকিস্তানের বিপক্ষে বৃষ্টি আইনে ৮৯ রানের জয় তুলে নিয়েছে বিরাট কোহলির দল।

এদিন পাকিস্তানের ইনিংসের ৩৫ ওভার শেষে বৃষ্টি নামে। ডি/এল মেথড বলছিল বৃষ্টির কারণে যদি খেলা আর মাঠে না গড়ায় তবে ম্যাচটি ৮৬ রানে জিতে যাবে ভারত। তা অবশ্য হয়নি। কিছুক্ষণ পর আবার শুরু হয় ম্যাচ।

কিন্তু ততক্ষণে পাকিস্তানের যা সর্বনাশ হওয়ার হয়ে গেছে। আবার খেলা শুরু হলে পাকিস্তানের জন্য নতুন লক্ষ্য স্থির হয় ৪০ ওভারে ৩০২ রান। মানে ৫ ওভারে তাদের নিতে হবে আরো ১৩৬ রান।

সর্বশেষ ৪০ ওভারে ব্যাট করে ৬ উইকেটে ২১২ রান পর্যন্ত তুলতে পারে পাকিস্তান। আর তাতেই বিশ্বকাপে ভারতের বিপক্ষে দলটির টানা সপ্তম হার নিশ্চিত হয়।

বৃষ্টির আগেই অবশ্য ধস নামে পাকিস্তানের ইনিংসে। যদিও তাদের শুরুটা একেবারে খারাপ হয়নি। ফখর জামান ও বাবর আজম জুটিতে আশা দেখছিল পাকিস্তান।

কিন্তু কুলদিপ যাদব ও হার্দিক পান্ডিয়ার সাড়াশি আক্রমণে হঠাৎই খেই হারিয়ে ফেলে পাকিস্তান। দলীয় ১১৭ থেকে ১৬৫, অর্থাৎ ৪৮ রানের মধ্যে ৫ উইকেট হারিয়ে বসে দলটি। দলীয় ১৬৬ রানে নেই ৬ উইকেট। ওভার তখন ৩৫।

পাকিস্তান তাদের প্রথম উইকেট হারায় দলীয় ১৩ রানে। বিজয় শঙ্করের বলে এলবিডাব্লুর শিকার হয়ে মাঠ ছাড়েন ইমাম-উল-হক (৭)।

এরপর দারুণ এক জুটি গড়েন ফখর জামান ও বাবার আজম। কিন্তু শতরান পার হওয়ার পর ভেঙে যায় জুটিতে। বাবর আজমকে আউট করে এই জুটি ভাঙেন কুলদিপ যাদব। তার আগে একটি ছক্কা ও ৩টি চারে সাজিয়ে ৪৮ রান করেন বাবর। দলীয় রান তখন ১১৭।

বাবরের বিদায়ের পরই ধস নামে পাকিস্তানের ইনিংসে। তার কিছুক্ষণ পর আউট হয়ে যান ফখর জামানও। তিনিও শিকার হন কুলদিপের। তার ৬২ রানই পাকিস্তানের ইনিংসের সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত রান।

এরপর মোহাম্মদ হাফিজ (৯) ও শোয়েব মালিক হার্দিক পান্ডিয়ার করা ২৭তম ওভারের পর পর দুই বলে বিদায় নেন। এরপর ইমাদ ওয়াসিম অধিনায়ক সরফরাজের সাথে কিছুটা প্রতিরোধের চেষ্টা করেন।

কিন্তু দলীয় ১৬৫ রানে পান্ডিয়ার শিকার হয়ে মাঠ ছাড়েন সরফরাজ (১২)। পাকিস্তানের ইনিংসের ৩৫ ওভার শেষে নামে বৃষ্টি।

বৃষ্টি থেকে ফিরে আসলে ইমাদ ওয়াসিম ও শাদাব খানের কিছু করার ছিল না। তাদের সামনে লক্ষ্যটা তো ছিল অসম্ভবই। ৫ ওভারে তুলতে হবে ১৩৬ রান! তা স্বভাবতই হয়নি। ইমাদ ৪৬* রানে ও শাদাব ২০* রানে অপরাজিত থাকেন শেষ পর্যন্ত।

ভারতের হয়ে ২টি করে উইকেট নিয়েছেন বিজয় শঙ্কর, হার্দিক পান্ডিয়া ও কুলদিপ যাদব। ম্যান অব দ্য ম্যাচ হয়েছেন রোহিত শর্মা।

পিএ

 

ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৯: আরও পড়ুন

আরও