আফ্রিদির চড় খেয়ে সত্য স্বীকার করেন আমির!

ঢাকা, বুধবার, ১৯ জুন ২০১৯ | ৪ আষাঢ় ১৪২৬

আফ্রিদির চড় খেয়ে সত্য স্বীকার করেন আমির!

পরিবর্তন ডেস্ক ৮:১৫ অপরাহ্ণ, জুন ১২, ২০১৯

আফ্রিদির চড় খেয়ে সত্য স্বীকার করেন আমির!

টন্টনে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে আজ রীতিমতো আগুন ঝরালেন মোহাম্মদ আমির। ৩০ রান খরচায় নিয়েছেন ৫ উইকেট। যা তার ক্যারিয়ারেরই সেরা বোলিং। আমিরের তোপেই রানের পাহাড় গড়তে পারেনি অস্ট্রেলিয়া।

অথচ আমিরের ক্যারিয়ারের শুরুটাই ছিল কালো অন্ধকারে ঢাকা। জাতীয় দলে ঢুকেই ২০১০ সালে জড়িয়ে পড়েন ম্যাচ ফিক্সিংয়ে। ওই সময়ের টেস্ট অধিনায়ক সালমান বাটের প্ররোচনায় ম্যাচ ফিক্সিংয়ে জড়ান আমির ও মোহাম্মদ আসিফ।

এর জন্য ক্যারিয়ারে অনেক ক্ষতির মুখেও পড়তে হয় আমিরকে। নিষিদ্ধ হন ৫ বছরের জন্য। তবে শুরুতেই ম্যাচ ফিক্সিংয়ের সাথে নিজের সংশ্লিষ্টতার কথা স্বীকার করেননি আমির। সেই সময়ের ওয়ানডে অধিনায়ক শহীদ আফ্রিদি তাকে বাধ্য করেন অপরাধ স্বীকার করতে।

আমির কিভাবে আফ্রিদির কাছে অপরাধ স্বীকার করেছিলেন সম্প্রতি তা জানালেন আব্দুর রাজ্জাক। পাকিস্তানের সাবেক এই পেস অল রাউন্ডার সেসময় এই ঘটনা সাক্ষী ছিলেন।

ইংল্যান্ডের আদালতে ২০১১ সালে নিজের অপরাধের স্বীকার করেন আমির। তার আগে আফ্রিদির কাছে স্বীকার করেন তিনি। আফ্রিদি আমিরকে নিয়ে আলাদা করে বসেছিলেন। সেখানে প্রথমে কিছু বলতে রাজি হননি তিনি। পরে আফ্রিদি তাকে চড় দিলে সব সত্য স্বীকার করেন আমির।

ওই ঘটনার বর্ণনা দিয়ে রাজ্জাক পাকিস্তানের একটি চ্যানেলকে বলেছেন, ‘সে (আফ্রিদি) আমাকে রুমের বাইরে যেতে বলেছিল। কিন্তু কিছুক্ষণ পরই একটা থাপ্পড়ের শব্দ শুনতে পেলাম। এরপর আমির পুরো সত্যটা জানালো।’

রাজ্জাক আরো জানান, ইংল্যান্ডে কেলেঙ্কারি প্রকাশ হওয়ার আগে সালমান বাট ইচ্ছে করেই আউট হচ্ছিল এবং স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি ডট বল খেলছিল। এই বিষয়টিও তিনি আফ্রিদিকে জানান।

রাজ্জাকের কথায়, ‘আমি আমার চিন্তার কথা আফ্রিদিকে বলেছিলাম কিন্তু সে বললো ওসব আমার ভুল ধারণা এবং সব ঠিক আছে। কিন্তু যখন আমি ওয়েস্ট ইন্ডিজে অনুষ্ঠিত টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে বাটের সঙ্গে এক ম্যাচে ব্যাট করছিলাম, আমি বুঝতে পারছিলাম সে আমাদের দলকে ডোবাচ্ছে।’

পিএ