স্মিথের সেঞ্চুরিতে শক্তি জানান দিল অস্ট্রেলিয়া

ঢাকা, ১৪ জুলাই, ২০১৯ | 2 0 1

বিশ্বকাপ প্রস্তুতি ম্যাচ

স্মিথের সেঞ্চুরিতে শক্তি জানান দিল অস্ট্রেলিয়া

পরিবর্তন ডেস্ক ১:৪৪ অপরাহ্ণ, মে ২৬, ২০১৯

স্মিথের সেঞ্চুরিতে শক্তি জানান দিল অস্ট্রেলিয়া

বিশ্বকাপের গত ৫ আসরের মধ্যে চার আসরের চ্যাম্পিয়নই অস্ট্রেলিয়া। ১৯৯৯ সালে স্টিভ ওয়াহর হাত ধরে শুরু হয়েছিল অস্ট্রেলিয়ার জয়যাত্রা। এরপর রিকি পন্টিংয়ের নেতৃত্বে টানা দুইবার বিশ্বকাপ জেতে তারা। মাঝে ২০১১ সালে সেই মুকুট ছিনিয়ে নেয় মহেন্দ্র সিং ধোনির ভারত তবে ২০১৫ সালের সর্বশেষ আসরে মাইকেল ক্লার্কের নেতৃত্বে আবার তা পুনরুদ্ধার করে তারা।

এর মধ্যে অনেক জল গড়িয়েছে গঙ্গায়। ক্লার্কের হাত থেকে অস্ট্রেলিয়া দলের নেতৃত্ব পান স্টিভেন স্মিথ। বিশ্বের অন্যতম সেরা এই ব্যাটসম্যানের নেতৃত্বেও ক্রিকেট বিশ্বে নিজেদের দাপট ধরে রাখে অজিরা। কিন্তু ২০১৮ সালের এক দুর্ঘটনায় বদলে যায় অনেক কিছু। নেমে আসে অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেটে কালো অধ্যায়। ওই বছরের মার্চে দক্ষিণ আফ্রিকায় বল ট্যাম্পারিং কেলেঙ্কারিতে জড়িয়ে ছন্দ হারিয়ে ফেলে তারা। ১২ মাসের জন্য নিষিদ্ধ হন সেই সময়ের অধিনায়ক স্টিভেন স্মিথ ও তার ডেপুটি ডেভিড ওয়ার্নার।

যার প্রভাব পড়ে দলের পারফরম্যান্সেও। একের পর এক সিরিজ হারতে থাকে তারা। একটা সময় বিশ্বকাপের ফেভারিট হিসেবেও বিবেচনার বাইরে চলে যায় বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা। তবে টুর্নামেন্ট ঘনিয়ে আসতে আবার স্বরূপে হাজির হতে শুরু করে রেকর্ড ৫ বারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা।

বদলটা শুরু ভারত সফর দিয়ে। ভারতের মাটিতে বিরাট কোহলির ভারতকে হারিয়ে ওয়ানডে সিরিজ জেতে অ্যারন ফিঞ্চের অস্ট্রেলিয়া। এরপর সংযুক্ত আরব আমিরাতে গিয়ে হারায় পাকিস্তানকে। এর মধ্যে নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ শেষ হয় স্মিথ ও ওয়ার্নারের। সব মিলিয়ে বিশ্বকাপের আগে নিজেদের দ্রুত গুছিয়ে নেয় অজিরা।

শনিবার টুর্নামেন্টের হট ফেভারিট ইংল্যান্ডের বিপক্ষে প্রস্তুতি ম্যাচে মাঠে নাম অস্ট্রেলিয়া। আর ওই ম্যাচে দীর্ঘদিন পর জাতীয় দলের জার্সি গায়ে দিয়ে ভালোই গা গরম করেছেন স্মিথ। দুর্দান্ত এক সেঞ্চুরি তুলে লিখলেন নিজের প্রত্যাবর্তনের গল্প। জানিয়ে দিলেন শিরোপার দাবী এখনো ছাড়েনি অস্ট্রেলিয়া।

শনিবার সাউদাম্পটনে প্রথমে ব্যাট করে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ২৯৭ রান তোলে অস্ট্রেলিয়া। ৩টি ছক্কা ও ৮টি চারে সাজিয়ে ১০২ বলে ১১৬ রান করেন স্মিথ। দলের হয়ে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রান এসেছে ওয়ার্নারের ব্যাট থেকে। সদ্য আইপিএল মাতানো ওয়ার্নার করেছেন ৪৩ রান। এছাড়া শন মার্শ ৩০, উসমান খাজা ৩১ ও অ্যালেক্স ক্যারি ৩০ (১৪ বলে) রান করেছেন।

জবাবে জেমস ভিঞ্চ ও জস বাটলারের ব্যাটে চড়ে ভালোই জবাব দিচ্ছিল ইংল্যান্ড। কিন্তু অজি বোলারদের সম্মিলিত আক্রমণের ‍মুখে জয় থেক ১২ রান দূরেই থেমে যায় ইংলিশদের ইনিংস। ৪৯.৩ ওভারে ২৮৫ রান করে অল আউট হয়ে যায় তারা। ভিঞ্চ ৫৪ ও বাটলার ৫২ রান করেন। এছাড়া ক্রিস ওকস করেন ৪০ রান।

পিএ

 

ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৯: আরও পড়ুন

আরও