ওয়াহাব স্বপ্নে দেখেছিলেন, বিশ্বকাপ দলে ডাক পেয়েছেন!

ঢাকা, ১৪ জুলাই, ২০১৯ | 2 0 1

ওয়াহাব স্বপ্নে দেখেছিলেন, বিশ্বকাপ দলে ডাক পেয়েছেন!

পরিবর্তন ডেস্ক ৬:২৬ অপরাহ্ণ, মে ২২, ২০১৯

ওয়াহাব স্বপ্নে দেখেছিলেন, বিশ্বকাপ দলে ডাক পেয়েছেন!

কখনো কখনো ঘুমের ঘোরে দেখা স্বপ্নও সত্যি হয়। ওয়াহাব রিয়াজের ক্ষেত্রে ঘটেছে ঠিক তেমনটাই। বিভোর ঘুমে নিজেকে নিয়ে যে রঙিন স্বপ্নটা দেখেছিলেন পাকিস্তানি পেসার, ১০ দিন পর সেটাই সত্য হয়েছে। প্রথমে বিশ্বকাপ স্বপ্ন গুঁড়িয়ে যাওয়ার পরও ওয়াহাব স্বপ্ন দেখেছিলেন তিনি পাকিস্তানের বিশ্বকাপ দলে ডাক পাবেন! শেষ পর্ন্ত তার সেই স্বপ্ন সত্যিও হয়েছে। ঠিকই পাকিস্তানের বিশ্বকাপ দলে ডাক পেয়েছেন ৩৪ ছুঁইছুঁই ওয়াহাব।

পাকিস্তানের বাঁ-হাতি পেসার নিজেই জানিয়েছেন এই স্বপ্ন-বিস্ময়ের কথা। অনেক দিন ধরেই পাকিস্তানের পেস আক্রমণের অন্যতম প্রধান অস্ত্র ওয়াহাব। বাঁ-হাতি পেসার নিজের সামর্থের প্রমাণ দিয়ে পাকিস্তানের হয়ে ২০১১ ও ২০১৫ বিশ্বকাপেও খেলেছেন। স্বাভাবিকভাবেই ২০১৯ বিশ্বকাপ নিয়েও স্বপ্নের মালাই গেথেছিলেন তিনি।

কিন্তু সাম্প্রতিক অফফর্মের কারণে প্রথমে তার সেই স্বপ্ন গুঁড়িয়ে যায়। ২০১৯ ইংল্যান্ড বিশ্বকাপের জন্য প্রথমে যে দল ঘোষণা করেছিল পাকিস্তান, তাতে ওয়াহাবের জায়গা হয়নি। তাকে ছাড়াই বিশ্বকাপ জয়ের স্বপ্ন নিয়ে ইংল্যান্ডে পাড়ি জমায় পাকিস্তান।

কিন্তু আইসিসির নিয়ম ছিল ২৩ মে পর্ন্ত দলে পরিবর্তন করা যাবে। সেই নিয়মের সুযোগেই সম্প্রতি বিশ্বকাপ দলে ৩টি পরিবর্তন এনেছে পাকিস্তান। তাতে মোহাম্মদ আমির, আসিফ আলির সঙ্গে কপাল খুলেছে ওয়াহাবেরও। আরেক বাঁ-হাতি পেসার জুনাইদ খানের পরিবর্তে বিশ্বকাপ দলে ডাক পেয়েছেন তিনি।

নিজের এই স্বপ্ন-বিস্ময়ের কথা জানিয়ে ওয়াহাব বলেছেন, ‘আমি কিছুটা আশাবাদী ছিলাম। কারণ, আমি স্বপ্নে দেখেছিলাম যে আমি মিকি আর্থার (প্রধান কোচ) ও ইনজি (প্রধান নির্বাচক ইনজামাম-উল-হক) ভাইয়ের সঙ্গে দেখা করেছি। স্বপ্নে আমি সরফরাজের (অধিনায়ক) সঙ্গেও দেখা করেছি। তারা কখনো আমাকে গ্রহণ করেছে, আবার কখনো ফিরিয়ে দিয়েছে। এরপর প্রায় ১০ দিন আগে আবার একই স্বপ্ন দেখি। আমি দেখি যে ইনজি ভাই আমাকে ফোন করেছেন। তিনি আমাকে বলছেন, আমি সুযোগ পেয়েছি এবং এটাই আমার শেষ সুযোগ। কি কাকতাল, বাস্তবেও ঘটল সেটাই।’

বিস্ময়কর হলো, স্বপ্নের মতো বাস্তবেও ইনজামাম-উল-হকই ফোন করে ওয়াহাবকে বিশ্বকাপ দলে ডাক পাওয়ার সুখবরটা দিয়েছেন! ওয়াহাব জানিয়েছেন প্রথমে বিশ্বাসই করতে পারছিলেন না, ‘সেদিন (গত রোববার) মধ্য রাতে আমি জানতে পারি যে, আমি ইংল্যান্ডে৩ বিশ্বকাপ খেলতে যাচ্ছি। বিশ্বাসই করতে পারছিলাম যে, ইনজি ভাই আমাকে ফোন করেছেন। আমি উনাকে জিজ্ঞাস করি, আমি কোথায় যাব? উনি আমাকে বলেন, তোমাকে নিশ্চয় রাওয়ালপিন্ডিতে কোনো ম্যাচ খেলার জন্য ফোন করিনি। তুমি বিশ্বকাপ খেলতে যাচ্ছ!’

অফফর্ম সত্ত্বেও ওয়াহাবকে দলে নেওয়া হয়েছে অভিজ্ঞতার কথা ভেবেই। দেশের হয়ে দুটি বিশ্বকাপ খেলেছেন ওয়াহাব। দুটি বিশ্বকাপেই বল হাতে দারুণ বোলিং করেছেন। ২০১১ বিশ্বকাপে ভারতের বিপক্ষে সেমিফাইনালে হারলেও সেই ম্যাচে ৫ উইকেট নিয়েছিলেন ওয়াহাব। ২০১৫ বিশ্বকাপে অস্ট্রেলিয়ার কাছে হেরে যাওয়া কোয়ার্টার ফাইনালেও দলের সেরা বোলার ছিলেন তিনিই। অস্ট্রেলিয়ার যে ৪টি উইকেট পড়েছিল, তার দুটিই নিয়েছিলেন ওয়াহাব।

স্বপ্ন সত্যি হওয়ায় এবারও নিজের সেই অভিজ্ঞতা দিয়েই দলকে সাহায্য করতে চান তিনি, ‘আমি যেহেতু অভিজ্ঞতার কারণে সুযোগ পেয়েছি, কাজেই অভিজ্ঞতা কাজে লাগিয়েই ভালো কিছু করার চেষ্টা করব।’

কেআর

 

ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৯: আরও পড়ুন

আরও