যে বিশ্বকাপ থেকে শুরু অস্ট্রেলিয়ার স্বর্ণযুগের

ঢাকা, ২১ মে, ২০১৯ | 2 0 1

ক্রিকেটের বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা— ৭

যে বিশ্বকাপ থেকে শুরু অস্ট্রেলিয়ার স্বর্ণযুগের

পরিবর্তন ডেস্ক ১২:৪৮ অপরাহ্ণ, মে ২১, ২০১৯

যে বিশ্বকাপ থেকে শুরু অস্ট্রেলিয়ার স্বর্ণযুগের

বিশ্বকাপের প্রথম তিন আসর বসেছিল ইংল্যান্ডে। পরের আসর যৌথভাবে আয়োজন করেছিল ভারত ও পাকিস্তান। পঞ্চম আসর বসে অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ডে। ষষ্ঠ আসর যৌথভাবে আয়োজন করে ভারত, পাকিস্তান ও শ্রীলঙ্কা। ওই আসরে অস্ট্রেলিয়াকে হারিয়ে বিশ্বচ্যাম্পিয়ন হয় শ্রীলঙ্কা।

দীর্ঘদিন পর আবার বিশ্বকাপের আয়োজন করে ইংল্যান্ড। টুর্নামেন্টের সপ্তম আসর, ১৯৯৯ সালের বিশ্বকাপ অনুষ্ঠিত হয় গ্রেট ব্রিটেন ও নেদারল্যান্ডসে। এই আসরে অংশ নেয় ১২টি দল। ৯টি সদস্য দেশের পাশাপাশি ৩টি সহযোগী দেশ অংশ নেয় এবারের আসরে।

এই আসরেই প্রথমবারের মতো অংশ নেয় বাংলাদেশ। কেনিয়াকে হারিয়ে আইসিসি ট্রফি জিতে বিশ্বকাপে খেলার যোগ্যতা অর্জন করে টাইগাররা। এছাড়া অংশ নেয় কেনিয়া ও স্কটল্যান্ড। আর সদস্য ৯টি দেশ তো আছেই।

আসরে বাংলাদেশ পড়েছিল ‘বি’ গ্রুপে। তাদের গ্রুপসঙ্গী অস্ট্রেলিয়া, পাকিস্তান, নিউজিল্যান্ড, ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও স্কটল্যান্ড। আর ‘এ’ গ্রুপে ছিল দক্ষিণ আফ্রিকা, ভারত, জিম্বাবুয়ে, ইংল্যান্ড, শ্রীলঙ্কা ও কেনিয়া।

গ্রুপপর্ব শেষে সুপার সিক্স ওঠে অস্ট্রেলিয়া, পাকিস্তান, দক্ষিণ আফ্রিকা, নিউজিল্যান্ড, ভারত ও জিম্বাবুয়ে। গেলবারের চ্যাম্পিয়ন শ্রীলঙ্কা গ্রুপপর্ব থেকেই বিদায় নেয়।

আর প্রথমবার অংশ নিয়েই স্কটল্যান্ডের পাশাপাশি পাকিস্তানের বিপক্ষে ঐতিহাসিক জয় পায় বাংলাদেশ। যদিও সুপার সিক্সে উঠতে পারেনি টাইগাররা।

সুপার সিক্স শেষে সেমি ফাইনাল নিশ্চিত করে নিউজিল্যান্ড, পাকিস্তান, দক্ষিণ আফ্রিকা ও অস্ট্রেলিয়া। সেখান থেকে ফাইনালে ওঠে পাকিস্তান ও অস্ট্রেলিয়া।

তবে অস্ট্রেলিয়ার ফাইনালে ওঠা ছিল বেশ নাটকীয়তায় ভরপুর। সেমি ফাইনালে দক্ষিণ আফ্রিকার সাথে রুদ্ধশ্বাস ম্যাচটি তাদের ড্র হয়। কিন্তু ম্যাচ টাই হলেও সুপার-সিক্স পর্বে রান রেটে এগিয়ে থাকায় ফাইনালে উঠে যায় অস্ট্রেলিয়া।

২৯ জুন, ঐতিহাসিক লর্ডসে ওয়াসিম আকরামের পাকিস্তানের মুখোমুখি হয় স্টিভ ওয়াহর অস্ট্রেলিয়া। কিন্তু টস জিতে ব্যাট করতে নেমে শেন ওয়ার্নের লেগ স্পিনে টালমাটাল হয়ে পড়ে পাকিস্তান। মাত্র ৩৯ ওভারে ১৩২ রান করতেই অল আউট হয়ে যায় তারা।

দলের হয়ে সর্বোচ্চ ২২ রান আসে ইজাজ আহমেদের ব্যাট থেকে। ইনজামাম উল হক করেন ১৫ রান। ওপেনার সাঈদ আনোয়ার ১৫ ও শহীদ আফ্রিদি করেন ১৩ রান।

পাকিস্তানের ইনিংস তছনছ করা ওয়ার্ন ৩৩ রানে নেন ৪ উইকেট। এছাড়া গ্লেন ম্যাকগ্রা ও টম মুডি নিয়েছেন ২২টি করে উইকেট। একটি করে উইকেট নিয়েছেন ডেমিন ফ্লেমিং ও পল রেইফেল।

জবাবে অ্যাডামস গিলক্রিস্টের দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ে ২০.১ ওভারেই ১৩৩ রান করে জয় তুলে নেয় অস্ট্রেলিয়া। গিলক্রিস্ট ৩৬ বলে ৫৪ রান করেন। এছাড়া মার্ক ওয়াহ অপরাজিত ৩৭* ও রিকি পন্টিং ২৪ রান করেন।

এর মধ্যে দিয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজের পর দ্বিতীয় দল হিসেবে দ্বিতীয়বার বিশ্বকাপ জেতে অস্ট্রেলিয়া। সেই সাথে বিশ্ব ক্রিকেটে শুরু হয় নতুন যুগের। প্রতিষ্ঠিত হয় অস্ট্রেলিয়ার একক আধিপত্য। আর অজিদের এই স্বর্ণযুগের দ্বার উন্মোচন হয় স্টিভ ওয়াহর হাত ধরে। যা বজায় ছিল পরবর্তী এক দশকেরও বেশি সময় ধরে।

পিএ

আরো পড়ুন :

লাহোরে শ্রীলঙ্কার বিজয় হুঙ্কার
রঙিন জার্সির প্রথম বিশ্বচ্যাম্পিয়ন পাকিস্তান
ইডেন গার্ডেন্সে অস্ট্রেলিয়ার অপেক্ষার অবসান
বিশ্বকে চমকে দিয়ে ভারতের বিশ্ব জয়
সেই লর্ডসে আবারো ক্যারিবীয়ানদের বিশ্ব জয়
লর্ডসকে সাক্ষী রেখে ক্যারিবিয়ানদের প্রথম বিশ্বজয়

 

ইতিহাস: আরও পড়ুন

আরও