ওয়েস্টিনে ‘স্যামসাং এন্টারপ্রাইজ ইভিনিং ২০১৮’ অনুষ্ঠিত 

ঢাকা, সোমবার, ২০ আগস্ট ২০১৮ | ৫ ভাদ্র ১৪২৫

ওয়েস্টিনে ‘স্যামসাং এন্টারপ্রাইজ ইভিনিং ২০১৮’ অনুষ্ঠিত 

পরিবর্তন প্রতিবেদক ৬:০৮ অপরাহ্ণ, আগস্ট ০৯, ২০১৮

ওয়েস্টিনে ‘স্যামসাং এন্টারপ্রাইজ ইভিনিং ২০১৮’ অনুষ্ঠিত 

সম্প্রতি রাজধানীর দ্য ওয়েস্টিনে দেশের সরকারি ও বেসরকারি নানা সংস্থার ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে ‘স্যামসাং এন্টারপ্রাইজ ইভিনিং ২০১৮’- এর আয়োজন করেছে স্যামসাং ইলেক্ট্রনিক্স।

অনুষ্ঠানে স্যামসাং বাংলাদেশ, বাংলাদেশের ন্যাশনাল ডিস্ট্রিবিউটর, স্যামসাং-এর রিজিওনাল হেড কোয়ার্টার (ভারত) এবং গ্লোবাল হেড কোয়ার্টার (দক্ষিণ কোরিয়া)- এর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

স্যামসাংয়ের এন্টারপ্রাইজ সল্যুশনগুলো বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের সফল কার্যক্রম পরিচালনায় সহায়ক হিসেবে কাজ করবে। ব্যবসায়িক নেতৃবৃন্দ ও বিশেষজ্ঞদের সামনে তা তুলে ধরাই ছিলো এ অনুষ্ঠান আয়োজনের উদ্দেশ্য।

অনুষ্ঠানে মাল্টি টাস্কিং বা একসঙ্গে অনেকগুলো কাজ করার লক্ষ্যে নির্মিত ৪৯ ইঞ্চি সুপার আল্ট্রা ওয়াইড কিউএলইডি মনিটর থেকে শুরু করে বিশ্বের প্রথম ৩৬০ ক্যাসেট এয়ার কন্ডিশনারসহ অসংখ্য এন্টারপ্রাইজ সম্পর্কিত প্রযুক্তিপণ্য প্রদর্শন করেছে স্যামসাং।

স্যামসাং ফ্লিপ, ভিডিও ওয়াল, এলইডি সাইনেজ, ডিভিএম এবং হসপিটালিটি ডিসপ্লেও প্রদর্শিত হয়। এছাড়াও, শক্তিশালী ডাটা নিরাপত্তা নিশ্চিৎকারী সল্যুশন ‘স্যামসাং নক্স’- এরও প্রদর্শন করে স্যামসাংয়ের মোবাইল বিজনেস ইউনিট।

অনুষ্ঠানে স্যামসাং বাংলাদেশের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সাংওয়ান ইউন বলেন, ‘প্রতিনিয়ত সক্রিয় পরিবর্তনের মধ্য দিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশের কর্পোরেট খাত। অগ্রসরমান পরিবেশে টিকে থাকতে হলে ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানগুলোকে পর্যায়ক্রমে নিত্যনতুন প্রযুক্তির সঙ্গে খাপ খাওয়াতে হবে। বর্তমানের ডিজিটাল সময়ে ব্যবসাকে সক্রিয় রাখতে আমাদের অত্যাধুনিক প্রযুক্তি সম্বলিত সল্যুশনগুলো প্রস্তুত রয়েছে এবং আমাদের প্রযুক্তির প্রত্যক্ষ অভিজ্ঞতা নেয়ার উপযুক্ত প্ল্যাটফর্ম ছিলো গতকালের আয়োজন।

প্রতিষ্ঠানসমূহের নিজেদের লক্ষ্য অর্জনে স্যামসাং-এর সল্যুশনগুলো যুগান্তকারী ভূমিকা রাখবে বলে আমাদের বিশ্বাস।’

উল্লেখ্য, গত ২০০৯ সাল থেকে বাংলাদেশে ব্যবসা পরিচালনা করে আসছে বিশ্বখ্যাত প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান স্যামসাং ইলেক্ট্রনিক্স। দক্ষিণ কোরিয়াভিত্তিক এ প্রতিষ্ঠানটি এর মোবাইল ও কনজ্যুমার ইলেক্ট্রনিক পণ্য উভয় ক্ষেত্রেই সমভাবে বাংলাদেশসহ সারাবিশ্বেই সুপরিচিত। 

এফএ/এএসটি