১২ মোবাইল ৪ চাকুসহ গ্রেপ্তার ১৫ ছিনতাইকারী

ঢাকা, শনিবার, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৯ | ৩০ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

১২ মোবাইল ৪ চাকুসহ গ্রেপ্তার ১৫ ছিনতাইকারী

চট্টগ্রাম ব্যুরো ৬:২৪ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ০২, ২০১৯

১২ মোবাইল ৪ চাকুসহ গ্রেপ্তার ১৫ ছিনতাইকারী

চট্টগ্রাম মহানগরের সংঘবদ্ধ মোবাইল ছিনতাইকারী চক্রের ১৫ সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে সিএমপির কোতোয়ালী থানা পুলিশ। এ সময় তাদের কাছ থেকে ১২টি মোবাইল ফোন ও ৪টি দেশীয় অস্ত্র (চাকু) উদ্ধার করে।

রোববার রাতে নগরের ষ্টেশন রোডের বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করা হয় বলে জানান নগর পুলিশের উপ-কমিশনার (দক্ষিণ) এস এম মেহেদী হাসান।

নগর পুলিশের এই কর্মকর্তা বলেন, গ্রেপ্তারকৃতরা প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে পুলিশকে জানিয়েছে, চট্টগ্রাম রেলস্টেশন এলাকার কয়েকজন মোবাইল বিক্রেতার আশ্রয়ে থেকে তারা ছিনতাই করে। ছিনতাইয়ের পর মোবাইল তুলে দেয় ওই বিক্রেতাদের হাতে। বিনিময়ে তাদের হাতখরচ এবং যাদের বয়স কম তাদের পথশিশুদের স্কুলে পড়ালেখার সুযোগ করে  দেন ওই বিক্রেতারা।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন, রাব্বি আল আহম্মদ (২০), মো. মামুন (২৯), মো.  সোহাগ (২৬), জয় বড়–য়া প্রকাশ আব্দুল (১৮), মো. আজিম প্রকাশ আজম (২২), দেলোয়ার হোসেন (৩৭), মো. মামুন (১৮), মো. আল আমিন শেখ (২১), মো. রুবেল (৩০), মো. বশির (২৫), মো. মিন্টু (৩০), মো. শাহাদাত হোসেন বাবু (২৮), জয়নাল আবেদীন (১৯),  মো. জহির (২৮) ও লেদু প্রকাশ আলাউদ্দিন প্রকাশ হাসান (৩০)।

নগর পুলিশের উপ-কমিশনার (দক্ষিণ) এর কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে কোতোয়ালী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোহাম্মদ মহসীন বলেন, ‘এরা ৩-৪ গ্রুপে ভাগ হয়ে চুরি-ছিনতাই করে। একেকটি দলে ৩-৪ জন করে থাকে। এরা জনাকীর্ণ স্থান যেমন- রেলস্টেশন, বাস স্টপেজ, গণপরিবহন যেখানে থামিয়ে যাত্রী তোলা হয় সেখানে থাকে আর সুযোগ বুঝে ছিনতাই করে। প্রথমে টার্গেট করা ব্যক্তিকে ধাক্কা দিয়ে বা যে কোনো উপায়ে বিব্রত করে এবং কথা বলা বা ঝগড়ার ফাঁকে পকেট থেকে মোবাইল নিয়ে নেয়। নারীকে একা পেলে তার আশপাশে ভিড় তৈরি করে ভ্যানিটি ব্যাগ থেকে মোবাইল নিয়ে নেয়।’

পুলিশ জানায়, ‘এরা প্রত্যেকেই প্রশিক্ষিত। ৩০সেকেন্ড থেকে এক মিনিটের মধ্যে মোবাইল ছিনতাইয়ে সক্ষম তারা। রেলস্টেশনের আশপাশের এলাকায় ভাসমান কিছু দোকানে মোবাইল সেট বিক্রি হয়। চোরাই মার্কেট হিসেবে সেগুলো পরিচিত। মূলত সেই দোকানদারদের কয়েকজনের আশ্রয়ে-প্রশ্রয়ে এরা ছিনতাই করে।’

ওসি মোহাম্মদ মহসীন বলেন, ‘বিভিন্ন সময় আমরা চোরাই মোবাইলের সূত্র ধরে দোকানগুলোতে অভিযান চালিয়ে কয়েকজন বিক্রেতাকে  গ্রেপ্তার করেছি। এখন যে ১৫ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে তাদের কাছে ১২টি মোবাইল সেট ও ৪টি ছুরি পাওয়া গেছে। সেই  মোবাইলগুলোর সূত্র ধরে এবং জিজ্ঞাসাবাদে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে আমরা অভিযান চালাব।’

নগর পুলিশের উপ-কমিশনার (দক্ষিণ) এসএম মেহেদী হাসান বলেন, ‘মোবাইল ছিনতাইয়ের পর অনেকেই অভিযোগ নিয়ে থানায় আসে না। মোবাইলটি উদ্ধার করে দেয়ার জন্য ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেয় কিংবা ওসিকে ফোন করে অনুরোধ করে। আমরা আশা করব, ভুক্তভোগী সবাই থানায় গিয়ে মামলা করবেন। এখন যাদেরকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে, কয়েকজনের ফেসবুকের স্ট্যাটাস দেখেই তাদের গ্রেপ্তার করি। সুনির্দিষ্ট মামলা থাকলে আমাদের কাজ করতে সুবিধা হয়।’

এমএইচ

 

চট্টগ্রাম: আরও পড়ুন

আরও