কুমিল্লা ও চট্টগ্রাম কারাগারে অধ্যক্ষ সিরাজসহ চার আসামি

ঢাকা, শনিবার, ৭ ডিসেম্বর ২০১৯ | ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

কুমিল্লা ও চট্টগ্রাম কারাগারে অধ্যক্ষ সিরাজসহ চার আসামি

ফেনী প্রতিনিধি ৬:২১ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১৩, ২০১৯

কুমিল্লা ও চট্টগ্রাম কারাগারে অধ্যক্ষ সিরাজসহ চার আসামি

আলোচিত ফেনীর সোনাগাজী ইসলামিয়া ফাজিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ নুসরাত নুসরাত জাহান হত্যা মামলায় মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত চার আসামিকে ফেনী থেকে কুমিল্লা ও চট্টগ্রাম কারাগারে পাঠানো হয়েছে আজ বুধবার।

মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত সোনাগাজী উপজেলা আ'লীগের সাবেক সভাপতি রুহুল আমিন ও মাদ্রাসার অধ্যক্ষ সিরাজ উদ দৌলাকে ফেনী কারাগার থেকে কুমিল্লা কারাগারে, কামরুন নাহার মনি ও উম্মে সুলতানা পপিকে চট্রগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগারে স্থানান্তর করা হয়েছে। কড়া নিরাপত্তার মধ্যদিয়ে তাদের দুটি কারাগারে স্থানান্তর করা হয়।

এর আগে গত মঙ্গলবার কুমিল্লা কারাগারে পাঠানো হয়েছিল নুসরাত হত্যা মামলায় ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত ১২ আসামিকে।

ফেনী জেলা কারাগারের সিনিয়র জেল সুপার মোহাম্মদ রফিকুল কাদের জানান, ফেনীর সোনাগাজীর মাদ্রাসা ছাত্রী নুসরাত জাহান রাফি হত্যা মামলার মৃত্যুদণ্ডাদেশপ্রাপ্ত ১৬ আসামিকে চট্টগ্রাম ও কুমিল্লা কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

তিনি আরো জানান, ফেনী জেলা কারাগারে পৃথক কনডেম সেল ও ফাঁসির মঞ্চ না থাকায় নুসরাত হত্যা মামলায় মৃত্যু দণ্ডাদেশ প্রাপ্ত আসামিদের কুমিল্লা ও  চট্টগ্রাম কারাগারে পাঠানো হয়েছে। বিষয়টি অনুমোদন দিয়েছেন কারা মহাপরিদর্শক (আইজি প্রিজন)। কারা বিধি অনুযায়ী ফাঁসির আসামিকে জেলা কারাগার থেকে কেন্দ্রীয় কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে।

মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- সোনাগাজী ইসলামিয়া সিনিয়র ফাজিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ সিরাজ উদ দৌলা, ওই মাদ্রাসার ছাত্র নূর উদ্দিন, শাহাদাত হোসেন শামীম, সোনাগাজী পৌরসভার কাউন্সিলর মাকসুদ আলম, ছাত্র সাইফুর রহমান মোহাম্মদ জোবায়ের, জাবেদ হোসেন ওরফে সাখাওয়াত হোসেন জাবেদ, হাফেজ আব্দুল কাদের, আবছার উদ্দিন, কামরুন নাহার মনি, উম্মে সুলতানা ওরফে পপি ওরফে তুহিন ওরফে শম্পা ওরফে চম্পা, আব্দুর রহিম শরীফ, ইফতেখার উদ্দিন রানা, ইমরান হোসেন ওরফে মামুন, মোহাম্মদ শামীম, মাদরাসার গভর্নিং বডির সহ-সভাপতি, সোনাগাজী উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সভাপতি রুহুল আমীন ও মাদ্রাসার সাবেক ছাত্র মহিউদ্দিন শাকিল।

২৪ অক্টোবর আলোচিত নুসরাত হত্যা মামলার ১৬ আসামির সবাইকে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের নির্দেশ দেন ফেনীর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মো. মামুনুর রশিদ।

এএএম/এমকে

 

চট্টগ্রাম: আরও পড়ুন

আরও