কিশোর মিলন হত্যায় এসআই আকরামসহ ১১ জন কারাগারে

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৯ | ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

কিশোর মিলন হত্যায় এসআই আকরামসহ ১১ জন কারাগারে

নোয়াখালী প্রতিনিধি ৮:০৯ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১৬, ২০১৯

কিশোর মিলন হত্যায় এসআই আকরামসহ ১১ জন কারাগারে

নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে ‘ডাকাত সাজিয়ে’ কিশোর শামছুদ্দিন মিলনকে (১৬) পিটিয়ে হত্যা মামলার আসামি পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) আকরাম উদ্দিন শেখকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত।

বুধবার দুপুরে নোয়াখালীর ৪ নম্বর আমলি আদালতের জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম নবনীতা গুহ এ আদেশ দেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করে কোর্ট পুলিশ পরিদর্শক নাজমূল হক জানান, মিলন হত্যা মামলায় গ্রেপ্তারি পরোয়ানা থাকায় এসআই আকরাম উদ্দিন দুপুরে আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন আবেদন করেন। আদালত শুনানি শেষে জামিন নামঞ্জুর করে তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

আদালত সূত্রে জানা যায়, একই আদালতে মঙ্গলবার বিকেলে ১০ জন আসামি আত্মসমর্পণ করলে তাদেরও কারাগারে পাঠানো হয়।

আসামিরা হলেন, আজিজুল হক, আহছান উল্যা, আকবর হোসেন ওরফে সুমন, দেলোয়ার হোসেন ওরফে স্বপন, সালাহ উদ্দিন ওরফে মিলন, ওমর ফারুখ, মো. সবুজ, আবুল খায়ের ওরফে লিটু, নুর উদ্দিন ওরফে বাবু ও মো. সেলিম।

সূত্র আরো জানায়, এ মামলায় আটজন আসামি ইতিপূর্বে গ্রেপ্তার হয়ে জামিনে আছেন। আর বুধবার ও মঙ্গলবার পর্যন্ত ১১ আসামি আত্মসমর্পণ করেন। বাকি নয়জন আসামি পলাতক আছেন।

উল্লেখ্য, ২০১১ সালের ২৭ জুলাই কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার চর কাঁকড়া এলাকায় ডাকাত সাজিয়ে কিশোর শামছুদ্দিন মিলনকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়। পুলিশ গাড়িতে করে এনে জনতার হাতে এই কিশোরকে ছেড়ে দেয়। সেখানে পুলিশের উপস্থিতিতেই মিলনকে নির্মমভাবে পিটিয়ে হত্যা করা হয়।

এ ঘটনার পর ওই বছরের ৩ আগস্ট মিলনের মা কোহিনুর বেগম আদালতে একটি পিটিশন মামলা করেন।

মামলায় তিনি পুলিশের উপস্থিতিতে তার ছেলেকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ করেন। পরে ৫ নভেম্বর ২ নম্বর আমলি আদালতের জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম ফারহানা ভূঁইয়া চূড়ান্ত প্রতিবেদন গ্রহণ না করে মামলাটি অধিকতর তদন্তের জন্য পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগকে (সিআইডি) নির্দেশ দেন।

সিআইডি দীর্ঘ তিন বছর ৪ মাসের তদন্ত শেষে অভিযোগপত্র দিলেও পুলিশকে বাদ দিয়ে গত  ৯ মার্চ ২০১৯ আদালতে ২৮ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল করে। পরে গত ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯ আদালত মামলার নথি পর্যালোচনা করে অভিযোগপত্রের সাক্ষীর তালিকায় থাকা পুলিশের এসআই আকরাম উদ্দিন শেখকে আসামি করে তার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন।

এইচআর

 

চট্টগ্রাম: আরও পড়ুন

আরও