যৌতুক না পেয়ে স্ত্রীকে খুন, স্বামীর মৃত্যুদণ্ড

ঢাকা, রবিবার, ২০ অক্টোবর ২০১৯ | ৪ কার্তিক ১৪২৬

যৌতুক না পেয়ে স্ত্রীকে খুন, স্বামীর মৃত্যুদণ্ড

চট্টগ্রাম ব্যুরো : ৩:৫১ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ০১, ২০১৯

যৌতুক না পেয়ে স্ত্রীকে খুন, স্বামীর মৃত্যুদণ্ড

চট্টগ্রামের বোয়ালখালীতে স্ত্রীকে খুনের দায়ে জাহাঙ্গীর আলম নামক এক ব্যক্তিকে ফাঁসিতে ঝুঁলিয়ে মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের আদেশ দিয়েছে জেলার একটি আদালত। একই রায়ে তাকে ৫০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড দেয় আদালত।

মঙ্গলবার চট্টগ্রামের প্রথম নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মো. মশিউর রহমান খান এ রায় দিয়েছেন। ট্রাইব্যুনালে দায়িত্বরত রাষ্ট্রপক্ষের কৌঁসুলি জেসমিন আক্তার এই খবর নিশ্চিত করেন।

জেসমিন জানান, রাষ্ট্রপক্ষের আনিত অভিযোগ আদালতে সন্দেহাতিতভাবে প্রমাণিত হওয়ায় আসামি জাহাঙ্গীর আলমকে মৃত্যুদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত। এছাড়া অভিযোগ প্রমাণ না হওয়ায় তার ভাইকে বেকসুর খালাস দেয়া হয়েছে। রায় ঘোষণার সময় আসামি জাহাঙ্গীর আদালতের কাঠগড়ায় হাজির ছিলেন। পরে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

দণ্ডিত জাহাঙ্গীর আলম চট্টগ্রামের বোয়ালখালী উপজেলার অহল্যা-কড়লডেঙ্গা ইউনিয়নের সাধারপাড়া এলাকার বাসিন্দা। শ্বশুরপক্ষের কাছে বিদেশ যাওয়ার খরচ দাবি করে না পেয়ে নিজ বাড়িতেই স্ত্রীকে খুন করে গরুর ঘরে নিয়ে ঝুলিয়ে রাখে।

মামলার অভিযোগ ও নথিপত্রে উল্লেখ করা হয়, জাহাঙ্গীর বিয়ের পর থেকে বিদেশ যাবার জন্য স্ত্রী শামীমা আক্তারের পরিবারের কাছে টাকা দাবি করতে থাকেন। টাকা না পেয়ে ২০১০ সালের ২৯ ডিসেম্বর বিকেলে শামীমাকে পিটিয়ে হত্যা করেন জাহাঙ্গীর। পরে তার মরদেহ গোয়ালঘরে ঝুঁলিয়ে  রেখে শামীমা আত্মহত্যা করেছেন বলে প্রচার করতে থাকেন। সে সময় শামীমার ভাই মো. সোলেমান বাদি হয়ে বোয়ালখালী থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

পুলিশ তদন্ত দীর্ঘ এক বছর তদন্ত করে জাহাঙ্গীর ও তার ভাই আব্দুল আলমকে আসামি করে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। মামলায় ২০১২ সালের ২৩ মার্চ আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের মধ্যদিয়ে বিচার কাজ শুরু হয়। ২৩ জন সাক্ষীর মধ্যে ১৪ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ ও যুক্তিতর্ক শেষে মঙ্গলবার (১ অক্টোবর) আদালত এই রায় দেন।

জেডএস/

 

চট্টগ্রাম: আরও পড়ুন

আরও