আদালতে ছুরি নিয়ে প্রবেশের সময় কুমিল্লায় নারী আটক

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৭ অক্টোবর ২০১৯ | ২ কার্তিক ১৪২৬

আদালতে ছুরি নিয়ে প্রবেশের সময় কুমিল্লায় নারী আটক

কুমিল্লা প্রতিনিধি: ২:০৩ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১৬, ২০১৯

আদালতে ছুরি নিয়ে প্রবেশের সময় কুমিল্লায় নারী আটক

ছুরি নিয়ে কুমিল্লার আদালতে প্রবেশকালে রোজিনা আক্তার (৩৬) নামের নামে এক নারীকে আটক করেছে পুলিশ। রোববার দুপুরে আদালতের প্রধান ফটকে তল্লাশিকালে ব্যাগের ভেতরে থাকা ধারালো একটি ছুরিসহ তাকে আটক করা হয়।

আটক রোজিনা আক্তারের বাড়ি কুমিল্লার লালমাই উপজেলার তুলাতলী গ্রামে। বিয়ের কাবিননামা সংগ্রহের জন্য তিনি আদালতে আসেন বলে জানিয়েছে পুলিশ। তবে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদেও সঙ্গে ছুরি রাখার বিষয়ে মুখ খুলছেন না তিনি।

বিষয়টি নিশ্চিত করে কুমিল্লার পুলিশ সুপার সৈয়দ নুরুল ইসলাম বলেন, রোববার দুপুরে আটকের পর সোমবার দুপুর পর্যন্ত ওই নারীকে কয়েক দফা জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। সাথে ছুরি রাখার বিষয়ে তিনি কোনো সদোত্তর দিতে পারেননি। জিজ্ঞাসাবাদের পাশাপাশি তার বিষয়ে খোঁজখবর নেয়া হচ্ছে। পরবর্তীতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

তিনি বলেন, প্রাথমিকভাবে আমরা জানতে পেরেছি ওই নারীর প্রথম বিয়ের ডিভোর্স হয়েছে। দ্বিতীয় বিয়ের কাগজপত্রের জন্য তিনি আদালতে এসেছিলেন।

কুমিল্লার আদালতের নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে উল্লেখ করে পুলিশ সুপার বলেন, সাম্প্রতিকালে কুমিল্লার আদালতে একটি হত্যাকান্ডের ঘটনায় পুলিশ আদালতে নিরাপত্তা জোরদার করেছে। এরই অংশ হিসেবে গতকাল আদালতের প্রধান ফটকে তল্লাশি চালিয়ে ওই মহিলার ব্যাগে একটি ছোরা পেয়ে তাকে আটক করা হয়।

উল্লেখ্য, চলতি বছরের ১৫ জুলাই কুমিল্লার অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ ৩য় আদালতের বিচারক বেগম ফাতেমা ফেরদৌসের আদালতে প্রকাশ্যেই খুনের ঘটনা ঘটে। একটি হত্যা মামলার সাক্ষ্য গ্রহণের সময় হঠাৎই ধারালো ছুরি হাতে ওই মামলার ৬নং আসামি হাসান একই মামলার ৪নং আসামি ফারুককে হত্যা করতে উদ্যত হয়। এক পর্যায়ে ফারুক দৌঁড়ে বিচারকের খাস কামরায় আশ্রয় নিলে সেখানেই উপর্যুপরি ছুরিকাঘাত করা হয় তাকে।

পরে কুমেক হাসপাতালে নেয়ার পর তার মৃত্যু হয়। নিহত ফারুক কুমিল্লার মনোহরগঞ্জ উপজেলার কান্দি গ্রামের অহিদ উল্লাহর ছেলে। ঘাতক হাসান কুমিল্লার লাকসাম উপজেলার ভোজপাড়া গ্রামের শহিদ উল্লাহর ছেলে।

জেডএস/জেডএস/

 

চট্টগ্রাম: আরও পড়ুন

আরও