ফের অনির্দিষ্টকালের কর্মবিরতিতে লাইটারেজ জাহাজের শ্রমিকরা

ঢাকা, রবিবার, ৮ ডিসেম্বর ২০১৯ | ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

ফের অনির্দিষ্টকালের কর্মবিরতিতে লাইটারেজ জাহাজের শ্রমিকরা

চট্টগ্রাম ব্যুরো ১০:৪৩ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ২৪, ২০১৯

ফের অনির্দিষ্টকালের কর্মবিরতিতে লাইটারেজ জাহাজের শ্রমিকরা

ফাইল ছবি

ফের ১৩ ও ১৪ দফা দাবি আদায়ে কর্মবিরতি শুরু করেছেন লাইটারেজ জাহাজে কর্মরত শ্রমিকরা। আজ বুধবার ভোর ৬টা থেকে চট্টগ্রাম বন্দরের বহির্নোঙ্গর থেকে পণ্য খালাস বন্ধসহ অনির্দিষ্টকালের জন্য দেশের সকল নৌরুটে লাইটারেজ জাহাজ চলাচল বন্ধ রেখে এই আন্দোলন শুরু করেন শ্রমিকরা।

দুই ভাগে বিভক্ত দুটি শ্রমিক সংগঠন বাংলাদেশ লাইটারেজ শ্রমিক ইউনিয়ন ও জাহাজী শ্রমিক ফেডারেশর ব্যানারে শ্রমিকরা এই আন্দোলন করছেন। এর মধ্যে বাংলাদেশ লাইটারেজ শ্রমিক ইউনিয়ন ১৩ দফা এবং জাহাজী শ্রমিক ফেডারেশন ১৪ দফা দাবিতে কর্মবিরতি শুরু করে।

বাংলাদেশ লাইটারেজ শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ শাহাদাত হোসেন বলেন, ভারতগামী জাহাজের নাবিকদের ল্যান্ডিং পাস নিশ্চিত এবং অভ্যন্তরীণ নৌপথে চাঁদাবাজি বন্ধ, শ্রমিকদের খোরাকি ফি, মধ্যবর্তী ভাতা, পূর্বে অমীমাংসিত দাবি পূরণসহ আমাদের সংগঠনের ১৩ দফা দাবিতে জানিয়ে আসছি অনেক আগ থেকেই। তবে আমাদের এসব দাবি এখনও বাস্তবায়নে কোনো আশ্বাসও পাচ্ছি না। একইভাবে জাহাজী শ্রমিক ফেডারেশনের ১৪ দফা দাবি জানিয়েছে।

চলতি বছরের এপ্রিলের মাঝামাঝি সময়ে জাহাজের শ্রমিকরা অনির্দিষ্টকালের জন্য আন্দোলনে গেলে শ্রম অধিদফতরে ত্রিপক্ষীয় বৈঠকে ফলপ্রসূ আলোচনা ও দাবি পূরণের চুক্তিতে নৌযান শ্রমিকরা আন্দোলন স্থগিত করে কাজে যোগ দেয়।

সৈয়দ শাহাদাত হোসেন বলেন, ওই সময় শ্রম-প্রতিমন্ত্রী বেগম মুন্নুজান সুফিয়ানের উপস্থিতিতে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধি, নৌযান শ্রমিক ও মালিক পক্ষের নেতাদের যৌথ সভায় ৪৫ দিনের মধ্যে ১১ দফা দাবি পূরণের সিদ্ধান্ত ও চুক্তি স্বাক্ষরের পরই কর্মবিরতি স্থগিত ঘোষণা করা হয়েছিলো।

শ্রমিক নেতাদের অভিযোগ, দাবি আদায়ের জন্য শ্রমিক সংগঠনকে বেঁধে দেয়া ৪৫ দিন সময়ের চেয়ে আরো অধিক সময় অতিবাহিত হয়েছে। এ সময়ে আমাদের দাবি বাস্তবায়ন না করায় ফের কর্মবিরতিতে যেতে হলো।

জেএইচ/আরপি 

 

চট্টগ্রাম: আরও পড়ুন

আরও