বান্দরবানে ফের আ’লীগ নেতাকে কুপিয়ে হত্যা, যুবক আটক

ঢাকা, ২৪ আগস্ট, ২০১৯ | 2 0 1

বান্দরবানে ফের আ’লীগ নেতাকে কুপিয়ে হত্যা, যুবক আটক

বান্দরবান প্রতিনিধি ১০:০২ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ২৪, ২০১৯

বান্দরবানে ফের আ’লীগ নেতাকে কুপিয়ে হত্যা, যুবক আটক

বান্দরবানের লামা উপজেলার সরই ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সম্পাদক মো. আলমগীরকে কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। মঙ্গলবার দিবাগত রাত ১১টার দিকে উপজেলার সরই ইউনিয়নের লোহাগড়া সীমান্তের হাসনা ভিটা এলাকায় দুর্বৃত্তরা তাকে নৃশংসভাবে কুপিয়ে হত্যা করে।

হত্যাকাণ্ডের সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে পুলিশ মং সৈ মারমা (২৩) নামের এক যুবককে আটক করেছে। তাকে সরই ইউনিয়নের পার্শ্ববর্তী লোহাগাড়া থেকে আটক করে লামা থানায় নিয়ে আসা হয়েছে।

জানা গেছে, মো. আলমগীর মঙ্গলবার দিবাগত রাত ১১টার দিকে তার খামার বাড়ি থেকে ফিরছিলেন। এ সময় উল্লিখিত স্থানে দুর্বৃত্তরা তার ওপর হামলা চালায় এবং নৃশংসভাবে কুপিয়ে হত্যা করে।

স্থানীয়রা জানান, ঘটনার পর তার চিৎকারে দুর্বৃত্তরা পালিয়ে যাওয়ার সময় একটি মোটরসাইকেল ফেলে যায়। পুলিশ ওই মোটরসাইকেলটি জব্দ করেছে। পরে মোটরসাইকেলটির সূত্র ধরেই পুলিশ ও স্থানীয়রা ওই যুবককে আটক করে।

এদিকে, নিহত আওয়ামী লীগ নেতা মোহাম্মদ আলমগীরের লাশ বুধবার সকালে সরই থেকে ময়নাতদন্তের জন্য বান্দরবান সদর হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়েছে।

জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সম্পাদক লক্ষী পদ দাশ জানিয়েছেন, দুর্বৃত্তরা জনপ্রিয় এই নেতাকে নৃশংসভাবে কুপিয়ে হত্যা করেছে। বান্দরবানে চলমান আওয়ামী লীগের উন্নয়ন কর্মকাণ্ড ও সাংগঠনিক তৎপরতা দমাতে একটি কুচক্রী মহল এসব ঘটনা ঘটাচ্ছে বলে তিনি মনে করেন।

লামা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আপেল্লা রাজু নাহা জানিয়েছেন, কী কারণে মো. আলমগীরকে হত্যা করা হয়েছে তা এখনো স্পষ্ট নয়। তবে এ ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে পুলিশ এক যুবককে আটক করেছে।

উল্লেখ্য, বান্দরবানে গত দুই দিনের ব্যবধানে রোয়াংছড়ি ও লামা উপজেলায় আওয়ামী লীগের দুই নেতাকে দুর্বৃত্তরা হত্যা করেছে। ২২ জুলাই দুপুরে রোয়াংছড়ির তারাছা ইউনিয়নের আওয়ামী লীগ নেতা মং মং থোয়াইকে দুর্বৃত্তরা গুলি করে হত্যা করে। এ ঘটনার প্রতিবাদে আওয়ামী লীগ অর্ধ দিবস হরতাল পালন করে রোয়াংছড়িতে।

এ ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতেই লামা উপজেলার সরই ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের আরেক নেতাকে কুপিয়ে হত্যা করলো সন্ত্রাসীরা।

এমএইচ/আরপি

 

চট্টগ্রাম: আরও পড়ুন

আরও