ফেনীতে যৌতুক মামলায় স্বামীর কারাদণ্ড

ঢাকা, বুধবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৯ | ২৯ কার্তিক ১৪২৬

ফেনীতে যৌতুক মামলায় স্বামীর কারাদণ্ড

ফেনী প্রতিনিধি ৯:১৮ অপরাহ্ণ, জুলাই ১৫, ২০১৯

ফেনীতে যৌতুক মামলায় স্বামীর কারাদণ্ড

ফেনীতে স্ত্রীর যৌতুকের মামলায় স্বামীর দুই বছরের সশ্রম কারাদণ্ড, পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও দুই মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।

সোমবার ফেনীর জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম মো. জাকির হোসাইন এ রায় দেন। রায় ঘোষণার সময় আসামি অনুপস্থিত ছিলেন। গ্রেফতার বা আত্মসমর্পণের পর থেকে এ রায় কার্যকর হবে।

দণ্ডপ্রাপ্ত ব্যক্তির নাম মো. রবিউল হোসাইন (৩০)। তিনি চট্টগ্রামের ডাবল মুরিং থানার আসকারাবাদ এলাকার মৃত আবদুল হাফেজের ছেলে।

মামলার এজাহার ও আদালত সূত্র জানায়, ফেনীর দাগনভূঞা উপজেলার সিন্দুরপর ইউনিয়নের কৌশুল্যা গ্রামের রাশেদা আক্তারের সাথে ২০১৩ সালের ৪ অক্টোবর চার লাখ টাকা দেন মোহরে মো. রবিউল হোসাইনের বিয়ে হয়। বিয়ের পর স্বামী রবিউল হোসাইন ধার হিসেবে রাশেদা আক্তারের ভাই থেকে এক লাখ টাকা নেন। ২০১৭ সালের ১ সেপ্টেম্বর স্বামী রবিউল হোসাইন বিদেশ যাওয়ার জন্য স্ত্রী রাশেদার ভাইয়ের কাছে চার লাখ টাকা যৌতুক দাবি করে। যৌতুকের টাকা দিতে অপরাগতা প্রকাশ করায় রাশেদাকে বাপের বাড়ি পাঠিয়ে দেয়া হয়। ওই বছরের ২০ নভেম্বর স্ত্রী রাশেদার বাপের বাড়িতে সালিশ বৈঠক হয়। কিন্তু স্বামী রবিউল ওই সালিশ পণ্ড করে চলে যায়। সম্প্রতি সে চট্টগ্রামে আরও একটি বিয়ে করে।

দীর্ঘদিন স্ত্রীকে বাপের বাড়িতে রেখে দেয়া ও যৌতুক দাবি করায় ২০১৭ সালে ১ নভেম্বর ফেনীর আমলি আদালতে একটি মামলা (সিআর মামলা নং ১৭৩/১৭) করেন। মামলার পর সমন জারি ও পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হলেও আসামি (স্বামী) রবিউল হোসাইন আদালতে উপস্থিত হননি। ফলে তার অনুপস্থিতেই আদালত এ রায় দেন।

ফেনী আদালত পুলিশের জিআরও (সাধারণ নিবন্ধন) উপ-পরিদর্শক (এসআই) মোহাম্মদ উল্যা এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি মো. রবিউল হোসাইন পলাতক রয়েছেন।

এইচআর

 

চট্টগ্রাম: আরও পড়ুন

আরও