বৃষ্টি অব্যাহত : চেঙ্গী নদীর পানি কমছে, অপরিবর্তিত মাইনী নদী

ঢাকা, ২০ জুলাই, ২০১৯ | 2 0 1

বৃষ্টি অব্যাহত : চেঙ্গী নদীর পানি কমছে, অপরিবর্তিত মাইনী নদী

খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি ৯:৩১ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ১২, ২০১৯

বৃষ্টি অব্যাহত : চেঙ্গী নদীর পানি কমছে, অপরিবর্তিত মাইনী নদী

গত কয়েক দিনের টানা বর্ষণ ও পাহাড়ী ঢলে খাগড়াছড়ির নিচু এলাকাগুলো প্লাবিত হয়েছে। তবে শুক্রবার সকাল থেকে চেঙ্গী নদীর পানি কমতে শুরু করলেও অপরিবর্তিত রয়েছে মাইনী নদীর পানি। বৃষ্টি অব্যাহত থাকায় বন্যা পরিস্থিতির অবনতি হওয়ার শংকা রয়েছে।

সরেজমিন ঘুরে দেখা যায়, এখন পর্যন্ত দিঘীনালা উপজেলার বন্যা পরিস্থিতি অপরিবর্তিত রয়েছে। এদিকে পানি নামার সাথে সাথে দেখা গেছে এলাকার বিভিন্ন রাস্তা ঘাট ও বসতবাড়ী ভেংগে গেছে। এতে জন সাধারণকে নানা দূর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।

গত ৫দিনে খাগড়াছড়িতে ৩৪২ দশমিক ৬মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে। এদিকে জেলার ৩৮টি আশ্রয় কেন্দ্রের মধ্যে ১২টি কেন্দ্রে প্রায় ৩ হাজার পানি বন্দি মানুষ আশ্রয় নিয়েছে। সেখানে খাবারসহ বিশুদ্ধ পানি সরবরাহ করছে প্রশাসন।

খাগড়াছড়ির মধুপুর এলাকায় টানা বৃষ্টির কারণে দোকানপাটসহ সড়কের একটি অংশ দেবে গেছে। দীঘিনালা -মেরুং সড়কের বড়মেরুং এলাকায় ষ্টীলব্রিজ নামক সড়ক ডুবে যাওয়ায় মেরুং এবং লংগদুর সাথে দীঘিনালার সড়ক যোগাযোগ এখনো বন্ধ রয়েছে। পানছড়ির দুদুকছড়া ব্রীজে ফাটল দেখা দিয়েছে।

এদিকে পাহাড় ধসের শংকায় ঝুঁকিতে বসবাসরত কিছু পরিবারকে সরিয়ে নিয়েছে প্রশাসন। ইতিমধ্যে বেশ কিছু স্থানে পাহাড় ধসের ঘটনা ঘটলেও কোন হতাহতের ঘটনা ঘটেনি। খাগড়াছড়িতে ক্ষতিগ্রস্থ বন্যার্তদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করেছে খাগড়াছড়ির সংসদ সদস্য ও উপজাতীয় শরর্ণাথী বিষয়ক টাস্কফোর্স চেয়ারম্যান কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা। ত্রাণ বিতরণ কালে উপস্থিত ছিলেন, খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কংজরী চৌধুরী, সদস্য জুয়েল চাকমা, খোকশ্বের ত্রিপুরা, পার্থ ত্রিপুরা জুয়েল ও খাগড়াছড়ি জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক নির্মলেন্দু চৌধুরী।

এ সময়  খাগড়াছড়ির স্বনির্ভর, শব্দমিয়াপাড়া, গোলাবাড়ী, মুসলিমপাড়া, আরামবাগ, দক্ষিণবাজার এলাকাসহ বিভিন্ন এলাকার বন্যা ও পাহাড় ধসে ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে জেলা পরিষদের পক্ষ থেকে প্রতি পরিবারকে ১০ কেজি করে চাউল, আলু, সোয়াবিন তেল, ডাল, লবন, চিনি, মুড়ি, বিস্কুট, মোমবাতি, ম্যাচসহ ১১ পদের ত্রাণ বিতরণ করা হয়। এতে মোট প্রায় ৩ হাজার বন্যা কবলিতদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করা হবে বলে সূত্রটি নিশ্চিত করেন।

এ ছাড়া গত মঙ্গলবার সন্ধায় বাবুছড়াতে পাহাড়ধসে নিহত যোগেন্দ্র চাকমার পরিবারকে আর্থিক সহায়তা দিয়েছে জেলা প্রশাসক মো. শহিদুল ইসলাম।

জেবি/এইচকে

 

চট্টগ্রাম: আরও পড়ুন

আরও