দেড় বছর ধরে চাচাতো ভাইয়ের ধর্ষণের শিকার মাদ্রাসাছাত্রী

ঢাকা, বুধবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৯ | ২৯ কার্তিক ১৪২৬

দেড় বছর ধরে চাচাতো ভাইয়ের ধর্ষণের শিকার মাদ্রাসাছাত্রী

কুমিল্লা প্রতিনিধি ৯:৫৩ অপরাহ্ণ, জুন ১৮, ২০১৯

দেড় বছর ধরে চাচাতো ভাইয়ের ধর্ষণের শিকার মাদ্রাসাছাত্রী

কুমিল্লার দেবীদ্বারে মাদ্রাসা পড়ুয়া ১১ বছরের শিশু ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে মো. সোহেল (২৪) নামে এক যুবককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলার এলাহাবাদ ইউনিয়নের মোহাম্মদপুর গ্রাম থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতার সোহেল মোহাম্মদপুর (ডাবপার) গ্রামের সাফিকুল ইসলামের ছেলে ও ধর্ষণের শিকার শিশুটির আপন চাচাতো ভাই। পেশায় সিএনজিচালিত অটোরিকশার চালক।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, অটোরিকশার চালক সোহেল শিশুটিকে হুমকি ও ভীতি প্রদর্শনের মাধ্যমে প্রায় দেড় বছর ধরে নিয়মিত ধর্ষণ করে আসছে। শিশুটির বাবা না থাকায় এবং পাশাপাশি ঘর হওয়ায় প্রায়ই সে মেয়েটিকে কৌশলে অথবা ধমকিয়ে ডেকে নিয়ে ধর্ষণ করতো। এর ‘ধারাবাহিকতায়’ গত রোববারও ধর্ষণের শিকার হয় শিশুটি।

পরে বিষয়টি ধর্ষক সোহেলের স্ত্রী নূরজাহান বিষয়টি স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান, মেম্বারসহ গণ্যমান্য ব্যক্তিদের অবগত করেন। বিষয়টি গড়ায় থানা-পুলিশে। অভিযোগ পেয়ে মঙ্গলবার দুপুরে দেবীদ্বার থানার উপ-পরিদর্শক নাফিজ আহমেদ সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করে।

শিশুটির মা জানান, স্বামী নিখোঁজ হওয়ার পর থেকে কখনো ভিক্ষা করে, কখনো অন্যের বাড়িতে কাজ করে দুই সন্তান নিয়ে কোনোরকমে বেঁচে আছি। এরই মধ্যে আজ থেকে প্রায় দেড় বছর আগে আমার মেয়ের কান্নাকাটির শব্দে সোহেলের ঘরে গিয়ে দেখি মেয়েকে নির্যাতন করেছে। বিষয়টি আমার ভাসুর-জা’কে (সোহেলের বাবা-মা) জানালেও তারা উল্টো আমাকে ধমক দিতে থাকে। পরে বাধ্য হয়ে ঘটনাটি মেয়েকে গোপন রাখতে বলি। কারণ আমার বুদ্ধি প্রতিবন্ধী স্বামীর অনুপস্থিতিতে ভাসুরের ছেলে (সোহেলের বড় ভাই বর্তমানে সৌদি প্রবাসী) সামসুদ্দিন কর্তৃক যৌন হয়রানির শিকার হই। এ নিয়ে তখন আমার ভাসুর সফিকুল ইসলাম ও জা’ রাবেয়া বেগমের কাছে বিচার চাওয়ায় তারা আমাকে অমানুষিকভাবে শারীরিক নির্যাতন করে এবং বাড়াবাড়ি করলে বাড়ি থেকে বের করে দেয়ার হুমকি দেয়। এরপর থেকে ভয়ে সব যন্ত্রণা সহ্য করে আসছি। আর সে কারণেই মাথা গুঁজার ঠাঁই হারানোর ভয়ে বিষয়টি গোপন রাখি। কিন্তু আজ তার স্ত্রীই এতোদিন ধরে আমার মেয়েকে ধর্ষণের বিষয়টি প্রকাশ করেছে।

শিশুটি জানায়, মা প্রায়ই ভিক্ষাবৃত্তি ও অন্য বাড়িতে কাজ করার কারণে আমাদের ঘর খালি থাকতো। সোহেল ভাই আমার মা ও ছোট ভাইকে মেরে ফেলার হুমকি ও বাড়ি ছাড়ার ভয় দেখিয়ে গত দেড় বছর ধরে মাঝে মাঝে নির্যাতন করত। তখন ভাবী (সোহেলের স্ত্রী নূরজাহান) সৌদি আরব ছিল। পরে ভাবী দেশের আসলেও তিনি আমাকে নির্যাতন বন্ধ করেননি। আর গত রোজার ঈদের পর থেকে প্রতিদিনই নির্যাতন করতেন। প্রতিবারই আমাকে ২০ টাকা করে দিতেন। কিন্তু আমি আর নির্যাতন সইতে না পেরে নূরজাহান ভাবীকে বিষয়টি জানাই। পরে ভাবীই এলাকার মাতবরদের মাধ্যমে বিষয়টি প্রকাশ করেন।

এ প্রসঙ্গে দেবীদ্বার থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) নাফিজ আহমেদ জানান, অভিযুক্ত সোহেল শিশুটিকে ধর্ষণের দায় স্বীকার করেছে। গ্রেফতার করে তাকে এবং শিশুটিকে থানায় নিয়ে আসা হয়েছে। এ ঘটনায় শিশুটির মা বাদী হয়ে সোহেলকে একমাত্র আসামি করে মামলা করেছেন।

বুধবার সকালে আসামি সোহেলকে কোর্ট হাজতে চালান করা হবে এবং শিশুটির ডাক্তারি পরীক্ষা ও জবানবন্দী রেকর্ড করা হবে বলেও জানান এসআই।

জেডএস/এইচআর

 

চট্টগ্রাম: আরও পড়ুন

আরও