দেশ-বিদেশ থেকে পাঠানো ৫৮ হাজার টাকা দেয়া হলো সেই ভিক্ষুক লাতু মিয়াকে

ঢাকা, ২২ জুলাই, ২০১৯ | 2 0 1

দেশ-বিদেশ থেকে পাঠানো ৫৮ হাজার টাকা দেয়া হলো সেই ভিক্ষুক লাতু মিয়াকে

ফেনী প্রতিনিধি ১০:২০ অপরাহ্ণ, জুন ১৫, ২০১৯

দেশ-বিদেশ থেকে পাঠানো ৫৮ হাজার টাকা দেয়া হলো সেই ভিক্ষুক লাতু মিয়াকে

ফেনীতে ভিক্ষুক লাতু মিয়ার টাকা ছিনতাইয়ের ঘটনায় দুই ছিনতাইকারীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

এদিকে শনিবার দুপুরে দেশ-বিদেশ থেকে পাঠানো ৫৭ হাজার ৮শ টাকা লাতু মিয়ার হাতে তুলে দিয়েছেন ফেনী জেলা প্রশাসক মো. ওয়াহিদুজ্জামান।

ফেনী মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আবুল কালাম আজাদ জানান, ফেনী সদর হাসপাতাল মোড় হতে ভিক্ষুকের টাকা ছিনতাইয়ের ঘটনায় ২ ছিনতাইকারীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এর আগে গত ১১ জুন মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে ফেনী সদর হাসপাতাল মোড় এলাকায় ভিক্ষুক লাতু মিয়ার কাছ থেকে ১৯ হাজার ৫শ টাকা ছিনতাই করে নিয়ে যায়। এ ঘটনায় পুলিশ ভিক্ষুক লাতু মিয়াকে খুঁজে বের করে তার কাছ থেকে বিষয়টি জানে।

পরে ভিক্ষুক লাতু মিয়া বাদী হয়ে ফেনী মডেল থানায় লিখিত এজাহার দায়ের করলে তা নিয়মিত মামলা হিসেবে নিয়ে মাঠে নামে পুলিশ। ঘটনাস্থলে থাকা সিসি ক্যামেরার ফুটেজ দেখে প্রত্যক্ষদর্শী ও স্থানীয় লোকজনদের সনাক্তের পর ১৪ জুন শুক্রবার রাতে এ ঘটনায় জড়িত মো. অলি (৪০) ও মো. আনোয়ার (৩২) নামে দুইজনকে আটক করে। আটকের পর তারা ছিনতাইয়ের ঘটনায় জড়িত কথা স্বীকার করে।

আটক আলি ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার বাঞ্ছারামপুরের পদ্মবাজ বেপারী বাড়ির মৃত জসিম উদ্দিনের ছেলে ও অপর আটক মো. আনোয়ার (৩২) নোয়াখালী জেলার সুধারাম থানার মাছিমপুরের মৃত নূর মোহাম্মদের ছেলে। তারা দুইজনেই ফেনী রেলওয়ে কলোনীতে থাকে।

এদিকে ভিখারীর প্রায় সাড়ে ১৯ হাজার টাকা ছিনতাইয়ের ঘটনার সংবাদ ফেসবুকে ভাইরাল হলে দেশ-বিদেশ থেকে সহযোগিতা হিসেবে পাঠানো ৫৭ হাজার ৮শ টাকা শনিবার দুপুরে লাতু মিয়ার হাতে তুলে দিয়েছেন ফেনী জেলা প্রশাসক মো. ওয়াহিদুজ্জামান।

উল্লেখ্য, গত মঙ্গলবার ফেনী শহরের সাবেক হাসপাতাল মোড় নতুন একরাম চত্বরে বয়োবৃদ্ধ ভিখারী লাতু মিয়ার প্রায় সাড়ে ১৯ হাজার টাকা ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটে। বিষয়টি ফেসবুকে ভাইরাল হলে পুলিশ ওই টাকা উদ্ধারের পদক্ষেপ গ্রহণ করে। বৃদ্ধ লাতু মিয়া কুমিল্লা জেলার চৌদ্দগ্রাম উপজেলার আলি আজমের ছেলে। ফেনীতে লাতু মিয়ার আপনজন বলতে কেউ নেই। তাই এ বয়সেও তিনি ভিক্ষা করে ওই টাকা জমিয়ে তার সঙ্গে রেখে দিয়েছিলেন।

এইচআর

 

চট্টগ্রাম: আরও পড়ুন

আরও