ছাত্রীদের যৌন নিপীড়নকারী দুই শিক্ষককে খুঁজছে পুলিশ

ঢাকা, ২৬ জুন, ২০১৯ | 2 0 1

ছাত্রীদের যৌন নিপীড়নকারী দুই শিক্ষককে খুঁজছে পুলিশ

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি ৫:৩৪ অপরাহ্ণ, জুন ১২, ২০১৯

ছাত্রীদের যৌন নিপীড়নকারী দুই শিক্ষককে খুঁজছে পুলিশ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলার সলিমগঞ্জ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রদীপ কুমার দাস (৪৮) নামের এক সহকারী প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে ছাত্রীদের যৌন নিপীড়ন অভিযোগে মামলা হয়েছে।

ইন্ধন জোগানোর অভিযোগে আসামি করা হয়েছে স্কুলের প্রধান শিক্ষককেও। এ ঘটনায় মামলার পর দুই শিক্ষকই পলাতক। তাদের গ্রেফতারে একাধিক স্থানে অভিযান চালিয়েছে পুলিশ।

সলিমগঞ্জ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, স্কুলের সহকারী প্রধান শিক্ষক প্রদীপ কুমার দাস তার কাছে প্রাইভেট পড়তে যাওয়া মেয়েদের দীর্ঘদিন ধরে নানা কৌশলে যৌন নিপীড়ন করে আসছিলেন। এ কথা ফাঁস করলে পরীক্ষায় ফেল করানোর হুমকি দিতেন তিনি। শিক্ষার্থীরা প্রধান শিক্ষক আজহারুল ইসলামের কাছে একাধিকবার এ বিষয়ে অভিযোগ করলেও তিনি কোনো ব্যবস্থা না নিয়ে সহকর্মীর পক্ষেই অবস্থান নেন। শেষ পর্যন্ত মোবাইল ফোনে তার কথোপকথন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফাঁস হলে ক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে শিক্ষার্থী, শিক্ষক, অভিভাবক মহলে।

দুই শিক্ষকেরই শাস্তি দাবি করছেন শিক্ষার্থী ও এলাকাবাসী। সহপাঠীদের যৌন হয়রানির প্রতিবাদে বিক্ষুব্ধ হয়ে ওঠে সলিমগঞ্জ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। স্থানীয় সংসদ সদস্য এবাদুল করিম বুলবুলের বাড়িতে গিয়ে দুই শিক্ষকের বিচার দাবি করে তারা। এসময় স্থানীয় এমপি অভিযুক্ত দুই শিক্ষকের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নিতে প্রশাসনকে নির্দেশ দেন।

গত ৮ মে সহকারী প্রধান শিক্ষক প্রদীপ কুমার দাস এবং প্রধান শিক্ষক আজহারুল ইসলামের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেছেন যৌন হয়রানির শিকার এক শিক্ষার্থীর ভাই।

নবীনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রণোজিত রায় জানান, মামলার পর থেকে দুই আসামিই পলাতক। অভিযুক্ত শিক্ষকদের গ্রেফতার করতে একাধিক স্থানে অভিযান চালানো হয়েছে। পাশাপাশি ঘটনার তদন্ত চলছে।

এইচআর

 

চট্টগ্রাম: আরও পড়ুন

আরও