গোলা বিস্ফোরণে নিহত সেনা সদস্যের শেষকৃত্য সম্পন্ন

ঢাকা, ১৬ আগস্ট, ২০১৯ | 2 0 1

গোলা বিস্ফোরণে নিহত সেনা সদস্যের শেষকৃত্য সম্পন্ন

রাঙ্গামাটি প্রতিনিধি ৮:০৬ অপরাহ্ণ, মে ১৯, ২০১৯

গোলা বিস্ফোরণে নিহত সেনা সদস্যের শেষকৃত্য সম্পন্ন

বান্দরবানে সেনাবাহিনীর প্রশিক্ষণ রেঞ্জে পরিত্যক্ত গোলা বিস্ফোরণে নিহত সেনা সদস্য নিপন চাকমার মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। হস্তান্তরের পর ধর্মীয় রীতিতে তার শেষকৃত্য (দাহক্রিয়া) সম্পন্ন করা হয়।

নিহত সেনা সদস্য নিপন চাকমা (২৩) রাঙ্গামাটি সদর উপজেলার কুতুকছড়ি মধ্যমপাড়া ধর্মঘর পাড়ার কৃপাধন চাকমার ছেলে। তার মায়ের নাম সুরুঙ্গিনি চাকমা।

নিপন চাকমা ২০১৪ সালের ৯ আগস্ট বাংলাদেশ সেনাবাহিনীতে সৈনিক পদে যোগদান করেন। মৌলিক প্রশিক্ষণ শেষে ২০১৫ সালের ৬ আগস্ট এডহক ১৬ প্যারা পদাতিক ব্যাটালিয়নে যোগদান করেন।

রোববার বিকেল তিনটায় মরদেহ তার গ্রামের বাড়ি কুতুকছড়ি মধ্যমপাড়া ধর্মঘর পাড়ায় আনা হয়। পরে সেখানে সেনাবাহিনীর সম্মান প্রদর্শনে গার্ড সশস্ত্র সালাম, পুষ্পস্তবক অর্পণ, মরণোত্তর সালামসহ নিহতের স্মরণে নীরবতা পালন করা হয়।

এ সময় সেনাবাহিনী রাঙ্গামাটি রিজিয়ন কমান্ডার বিগ্রেডিয়ার জেনারেল সৈয়দ রিয়াদ মেহমুদ ও নানিয়ারচর জোন কমান্ডার লে. কর্নেল মোহাম্মদ কাইয়ুমসহ অন্যান্য সেনা কর্মকর্তা ও সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

শেষে সেনাবাহিনী নানিয়ারচর জোনের পক্ষ থেকে নিহত সেনা সদস্যের শেষকৃত্য অনুষ্ঠানের জন্য পরিবারের সদস্যদের হাতে আর্থিক সহায়তা তুলে দেন জোন কমান্ডার মোহাম্মদ কাইয়ুম।

নিহতের পরিবারের সদস্যরা জানিয়েছেন, গত বিজুতে (পাহাড়ের বসবাসরত নৃ-গোষ্ঠীদের প্রধান সামাজিক অনুষ্ঠান) বাড়িতে বেড়াতে আসে নিপন চাকমা। তখনই শেষ দেখা হয়েছিলো পরিবারের সবার সাথে। তিনমাস পর বাড়িতে গিয়ে বিবাহ অনুষ্ঠান সম্পন্ন করার কথা ছিলো তার। অথচ ভাগ্যের নির্মম পরিহাসে অকালেই পৃথিবী ছেড়ে দূরদেশে পাড়ি জমাতে হলো নিপন চাকমাকে।

উল্লেখ্য, গত ১৭ মে বান্দরবানের সূয়ালক ইউনিয়নে সেনাবাহিনীর প্রশিক্ষণ রেঞ্জে জঙ্গল পরিষ্কার করার সময় পরিত্যক্ত গোলা বিস্ফোরণে জাহেদুল ইসলাম ও নিপন চাকমা নামে দুই সেনা সদস্য নিহত হয়। এ ঘটনায় আরো ১০ জন সেনা সদস্য আহত হয়। এদিন আহত অবস্থায় নিপন চাকমাকে প্রথমে চট্টগ্রামের সাতকানিয়া বিজিবি হাসপাতালে নেয়া হয়। প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে হেলিকপ্টারে করে ঢাকা সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

এইচআর

 

চট্টগ্রাম: আরও পড়ুন

আরও