ধর্ষণের পর অন্তঃসত্ত্বাকে পুড়িয়ে হত্যায় ২ জনের যাবজ্জীবন

ঢাকা, ১৬ আগস্ট, ২০১৯ | 2 0 1

ধর্ষণের পর অন্তঃসত্ত্বাকে পুড়িয়ে হত্যায় ২ জনের যাবজ্জীবন

কুমিল্লা প্রতিনিধি ৮:৫৯ অপরাহ্ণ, মে ১৩, ২০১৯

ধর্ষণের পর অন্তঃসত্ত্বাকে পুড়িয়ে হত্যায় ২ জনের যাবজ্জীবন

কুমিল্লায় ধর্ষণের পর অন্তঃসত্ত্বা এক নারীকে কেরোসিন দিয়ে পুড়িয়ে মারার অভিযোগে তালেব হোসেন নামক একজনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড এবং অপর এক নারীকে যাবজ্জীবন ও অর্থদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত।

কুমিল্লার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-১ এর বিচারক এম এ আউয়াল সোমবার দুপুরে আসামিদের উপস্থিতিতে এ আদেশ দেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন মামলার রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী স্পেশাল পিপি অ্যাডভোকেট প্রদীপ কুমার দত্ত।

মামলার বিবরণে জানা যায়, কুমিল্লা সদর দক্ষিণ উপজেলার মাতাইনকোট গ্রামের মকবুল হোসেনের ছেলে তালেব হোসেন একই গ্রামের সেলিম মিয়ার মেয়ে নিলুফা আক্তারকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে শারীরিক সম্পর্ক গড়ে তুলেন। এরই এক পর্যায়ে নিলুফা আক্তার অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েন। এসময় তালেবকে বিয়ে করার জন্য চাপ দিতে থাকেন। তালেব টালবাহানা করে সময় ক্ষেপণ করেন। পরবর্তীতে ২০১১ সালের ২৩ জানুয়ারি রাতে একই গ্রামের আবদুল রহমানর স্ত্রী জোসনা বেগমকে দিয়ে নিলুফাকে ঘর থেকে ডেকে আনেন। এসময় জোসনা নিলুফার মুখ চেপে ধরেন এবং তালেব কেরোসিন ঢেলে আগুন লাগিয়ে দেন।

ঘটনাস্থল থেকে তাকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় প্রথমে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও পরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ৩১ জানুয়ারি চিকিৎসাধীন অবস্থায় ঢামেকে তিনি মারা যান।

এ ঘটনায় নিলুফা আক্তারের বাবা সেলিম মিয়া বাদী হয়ে তালেব হোসেন ও জোসনা বেগমকে আসামি করে থানায় মামলা করেন। পুলিশ তদন্ত শেষে ওই বছরের ১৭ এপ্রিল অভিযুক্ত দু’জনের নামে চার্জশীট দেয়।

এ মামলায় ১৮ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে সোমবার দুপুরে দুই আসামিকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ও অর্থদণ্ডাদেশের রায় দেন আদালত। 

জেডএস/এইচআর

 

চট্টগ্রাম: আরও পড়ুন

আরও