সোনাগাজীতে প্রধান শিক্ষককে লাঞ্ছনায় দপ্তরী চাকরিচ্যুত

ঢাকা, শনিবার, ২৩ মার্চ ২০১৯ | ৯ চৈত্র ১৪২৫

সোনাগাজীতে প্রধান শিক্ষককে লাঞ্ছনায় দপ্তরী চাকরিচ্যুত

ফেনী প্রতিনিধি ৭:২৪ অপরাহ্ণ, মার্চ ১৪, ২০১৯

সোনাগাজীতে প্রধান শিক্ষককে লাঞ্ছনায় দপ্তরী চাকরিচ্যুত

ফেনীর সোনাগাজীতে স্কুলের প্রধান শিক্ষককে লাঞ্ছিত করায় নৈশপ্রহরী কাম দপ্তরীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। অভিযুক্ত দপ্তরীর নাম জহির উদ্দিন (২৫)।

বৃহস্পতিবার সকালে পৌর শহরের সোনাগাজী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এ ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় দুপুরে বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদের জরুরি সভায় সর্বসম্মতিক্রমে জহির উদ্দিনকে বিদ্যালয়ের নৈশ প্রহরী কাম দপ্তরীর পদ থেকে চাকরিচ্যুত করা হয়েছে।

একই দিন বিকেলে ওই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. হোসাইন আহমেদ বাদী হয়ে জহির উদ্দিনকে আসামি করে সোনাগাজী মডেল থানায় মামলা করেছেন।

পুলিশ, মামলার সূত্র ও বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা জানান, ২০১৩ সালে সোনাগাজী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে নৈশ্য প্রহরী কাম দপ্তরী পদে জহির উদ্দিনকে নিয়োগ দেয়া হয়। নিয়োগের পর থেকে ছাত্রীদের যৌন হয়রানি, আপত্তিকর অঙ্গভঙ্গি উপস্থাপনসহ অভিভাকদের বিভিন্ন অভিযোগে বেশ কয়েকবার তাকে বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদের মুখোমুখি হতে হয়। এমনকি কয়েকজন ছাত্রীকে শ্লীলতাহানীর অভিযোগে তিনবার তাকে থানাহাজতে যেতে হয়েছে। তখন সে মুচলেকা দিয়ে ছাড়া পেয়েছিল।

বৃহস্পতিবার সকালে বিদ্যালয়ে এসে দপ্তরী জহির উদ্দিন কয়েকজন শিক্ষার্থীকে দিয়ে বিদ্যালয়ের কক্ষ ও আঙ্গিনা ঝাড়ু দিয়ে পরিষ্কার করাতে থাকে। বিষয়টি দুইজন অভিভাবকের নজরে আসলে তারা প্রধান শিক্ষক মো. হোসাইন আহমেদকে জানান।

পরে বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের উপস্থিতিতে অফিস কক্ষে জহিরকে ডেকে প্রধান শিক্ষক শিক্ষার্থীদেরকে দিয়ে ঝাড়ু দেয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে সে উত্তেজিত হয়ে প্রধান শিক্ষককে গালমন্দ করে তেড়ে গিয়ে তাকে (প্রধান শিক্ষক) শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করে। এসময় অন্য শিক্ষকরা তাকে আটক করে পুলিশে খবর দেয়। খবর পেয়ে সোনাগাজী মডেল থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে দফতরি জহির উদ্দিনকে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে আসেন।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. হোসাইন আহমেদ বলেন, নৈশ প্রহরী কাম দপ্তরী জহির উদ্দিন বেশ কয়েকবার শিক্ষার্থীদেরকে যৌন হয়রানি করেছিল। অভিভাবকদের অভিযোগের ভিত্তিতে তাকে শাস্তি ও মুচলেকা নিয়ে সর্তক করা হয়েছে। গতকাল সে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে তাকে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করেছে।

জানতে চাইলে বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি শেখ আবদুল হালিম বলেন, প্রধান শিক্ষককে লাঞ্ছিত করাসহ বিভিন্ন অভিযোগে পরিচালনা পর্ষদের জরুরি সভা ডেকে সিদ্ধান্ত নিয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও শিক্ষা কর্মকর্তার পরামর্শে নৈশ প্রহরী কাম দপ্তরী জহির উদ্দিনকে চাকরিচ্যুত করা হয়েছে।

সোনাগাজী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মোয়াজ্জেম হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, সরকারি কর্মচারী ও প্রধান শিক্ষককে লাঞ্ছিতের ঘটনায় এক দপ্তরীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে। তাকে আদালতে পাঠানোর প্রক্রিয়া চলছে।

এইচআর