ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় মাদক নিয়ে এসআইয়ের নয়-ছয়

ঢাকা, রবিবার, ২০ জানুয়ারি ২০১৯ | ৬ মাঘ ১৪২৫

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় মাদক নিয়ে এসআইয়ের নয়-ছয়

ব্রাহ্মণবাড়য়া প্রতিনিধি ২:৩৭ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১১, ২০১৯

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় মাদক নিয়ে এসআইয়ের নয়-ছয়

ব্রাহ্মণবাড়িয়া পুলিশের এক এসআইয়ের বিরুদ্ধে ভারতীয় ফেনসিডিল ও স্কফ সিরাপ জব্দের পর তা গোপন করার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

ওই এসআইয়ের নাম জমিরুল ইসলাম। তিনি ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানায় কর্মরত।

এর আগেও এসআই জমিরুলের বিরুদ্ধে অর্থের বিনিময়ে বিপুল পরিমাণ ভারতীয় যৌন উত্তেজক ট্যাবলেট ছেড়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছিল।

গত ৯ জানুয়ারি (বুধবার) জেলার কালাশ্রীপাড়া থেকে এসব মাদক উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় পরদিন ১০ জানুয়ারি (বৃহস্পতিবার) মাত্র পাঁচ বোতল স্কফ সিরাপ দিয়ে মামলা দেওয়া হয়।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন প্রত্যক্ষদর্শী জানিয়েছেন, বুধবার বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে শহরের কালাশ্রীপাড়ার গুদারাঘাট এলাকায় অভিযান চালিয়ে সুজন দেবনাথ (৪৫) নামে একজনকে আটক করা হয়। প্রত্যক্ষদর্শীদের সামনে সুজনের সঙ্গে থাকা বাজারের ব্যাগে তল্লাশি করে শতাধিক বোতল ফেনসিডিল ও স্কফ সিরাপ জব্দ করেন এসআই জমিরুল। পরে সুজন দেবনাথকে মাদকসহ আটক করে থানায় নিয়ে আসেন তিনি। 

এ ব্যাপারে বুধবার (৯ জানুয়ারি) সন্ধ্যা ৬টার দিকে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে এসআই জামিরুল বলেন, আটক মাদক গণনা হয়নি। রাত ৯টায় গণনা করা হবে। তখন জানানো হবে। পরবর্তীতে তাকে রাত ১০টায় মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি তখনো জানাতে ব্যর্থ হন।

বৃহস্পতিবার দুপুরে সদর মডেল থানা সূত্রে জানা যায়, মাদক আটকের ঘটনায় সুজন দেবনাথকে মাত্র পাঁচ বোতল স্কফ সিরাপ উদ্ধার দেখিয়ে মাদক নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা দেওয়া হয়েছে। মামলায় ঘটনার সময় উল্লেখ করা হয়েছে বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৯টা।

অথচ প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, বুধবার বিকেলের ওই ঘটনায় ফেনসিডিল ও স্কফ সিরাপ উদ্ধার হয়েছে শতাধিক বোতল।

এর আগে গত বছরের ২৮ নভেম্বর ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের বিশ্বরোড মোড়ে মনির নামে এক যুবককে বিপুল পরিমাণ ভারতীয় যৌন উত্তেজক ট্যাবলেটসহ আটক করেন এসআই জামিরুল। পরে ঘটনাস্থলেই সোর্সের মধ্যস্থতায় ৩০ হাজার টাকায় এ ঘটনা রফাদফা করেন বলে অভিযোগ আছে। 

এ বিষয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রেজাউল কবীর সাংবাদিকদের বলেন, বিষয়টি আমি অবগত নই। খোঁজ নিচ্ছি।

এএইচআর/এমএ