হামদর্দ এমডির বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলনে মারামারি

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৭ অক্টোবর ২০১৯ | ২ কার্তিক ১৪২৬

হামদর্দ এমডির বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলনে মারামারি

পরিবর্তন প্রতিবেদক: ৪:৩৭ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২২, ২০১৯

হামদর্দ এমডির বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলনে মারামারি

হামদর্দ ল্যাবরেটরীজ বাংলাদেশের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ইউছুফ হারুনের বিরুদ্ধে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে দুই পক্ষের মধ্যে মারামারির ঘটনা ঘটেছে।

রোববার সকালে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাগর-রুনি মিলনায়তনে এই সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে লিগ্যাল এইড অ্যান্ড হিউম্যান ডেভলপমেন্ট ফাউন্ডেশন।

সংবাদ সম্মেলনে সংগঠনটির উপদেষ্টা সুফি সাগর শামস বক্তব্য দেয়ার প্রস্তুতি নিলে হঠাৎ ফেস্টুন হাতে সেখানে প্রবেশ করেন একদল লোক। তারা আয়োজকদের বিরুদ্ধে স্লোগান দিতে শুরু করেন। তাদের হাতে থাকা ফেস্টুনেও সংগঠনটির উপদেষ্টা সুফির বিরুদ্ধে বিভিন্ন স্লোগান লেখা ছিল।

এমন পরিস্থিতিতে আয়োজকরা ওই লোকদের অনুষ্ঠানস্থল ত্যাগ করতে বললে শুরু হয় দুই পক্ষের মধ্যে বাকবিতন্ডা। এক পর্যায়ে তাদের মধ্যে মারামারির ঘটনা ঘটে।

আয়োজক সংগঠনের উপদেষ্টা সুফি সাগর শামস সাংবাদিকদের বলেন, সংবাদ সম্মেলন পন্ড করার জন্য হামদর্দ ল্যাবরেটরীজ বাংলাদেশের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ইউছুফ হারুনই এই লোকজনদের পাঠিয়েছে। তারা এসে আমাদের উপর হামলা চালিয়েছে।

অন্যদিকে উপস্থিত সাংবাদিকরা যখন ফেস্টুনধারী লোকজনের পরিচয় জানতে চান, তখন তারা কোন জবাব না দিয়েই ঘটনাস্থল ত্যাগ করেন।

সংবাদ সম্মেলনে সাগর শামস বলেন, একাত্তরে লক্ষীপুরের রায়পুরে রাজাকার কমান্ডার ছিলেন ইউছুফ হারুন। তার নির্দেশে চার শতাশিক মুক্তিযোদ্ধা ও সাধারণ মানুষকে হত্যা করা হয়।

এ সময় ইউছুফ হারুনের বিচার ও সর্বোচ্চ শাস্তির দাবি জানিয়ে তিনি বলেন, স্বাধীনতার ৪৮ বছর পরও ইউছুফ হারুনের মত রাঘব-বোয়ালদের নাম রাজাকারের তালিকায় না আসাটা দুঃখজনক।

সাগর শামস আরো বলেন, ইউছুফ হারুন হামদর্দের একজন বিক্রয়কর্মী থেকে প্রতিষ্ঠানটির এমডি হয়েছেন। সরকারের অনুমোদন ছাড়াই সরকারি প্রতিষ্ঠান বিজি প্রেসকে বিভ্রান্ত করে একটি গেজেট প্রকাশ করে নিজেকে হামদর্দের আজীবন ব্যবস্থাপনা পরিচালক, চিফ মুতাওয়াল্লি এবং তার অবর্তমানে তার উত্তসূরিদের স্থলাভিষিক্ত হবেন মর্মে ঘোষণা দিয়েছেন।

সংবাদ সম্মেলনে রায়পুরের মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার, শহীদ পরিবারের সদস্য ও প্রত্যক্ষদর্শীদের রেকর্ড (ভিডিও) করা বক্তব্যও উপস্থাপন করা হয়।

ওএস/পিএসএস

 

রাজধানী: আরও পড়ুন

আরও