‘ক্যাসিনোতে জড়িতরা প্রভাবশালী হলেও ব্যবস্থা’ 

ঢাকা, রবিবার, ২০ অক্টোবর ২০১৯ | ৪ কার্তিক ১৪২৬

‘ক্যাসিনোতে জড়িতরা প্রভাবশালী হলেও ব্যবস্থা’ 

পরিবর্তন প্রতিবেদক ২:২০ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১৯, ২০১৯

‘ক্যাসিনোতে জড়িতরা প্রভাবশালী হলেও ব্যবস্থা’ 

জুয়ার আস‌রের স‌ঙ্গে জ‌ড়িতরা যত প্রভাবশালীই হোক না কেন, তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার (ডিএমপি) শফিকুল ইসলাম।

বৃহস্পতিবার দুপুরে ডিএমপি সদর দপ্তরে নিজ কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

কমিশনার বলেন, র‌্যাব ক্যাসিনোতে অভিযান শুরু করেছে, পুলিশও করবে। এরই মধ্যে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকার জুয়ার বোর্ড ও ক্যাসিনোর তালিকা করতে নির্দেশ দিয়েছি। একটি জোনের তালিকা হাতেও পেয়েছি। স্পষ্ট করে বলছি, ঢাকার কোথাও জুয়ার আসর বসতে দেয়া হবে না।

তিনি বলেন, ক্যাসিনোর মালিক ও এর সঙ্গে জড়িতরা যত প্রভাবশালী-ই হোক না কেন তাদের আইনের আওতায় আনা হবে। পুলিশ কিংবা আইনশৃংখলা বাহিনীর কেউ যদি ক্যাসিনো ব্যবসায় জড়িত থাকে তার বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এক প্রশ্নের জবাবে কমিশনার বলেন, ক্যাসিনোতে যারা জুয়া খেলতে আসেন, তারাই মাদক সেবন করেন। ক্যাসিনো যদি বন্ধ হয়ে যায় তাহলে সেখানে মাদক সেবনও বন্ধ হবে।

ক্যাসিনো বন্ধ করেও যদি কেউ মাদকের কারবার চালানোর চেষ্টা করে তবে কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

যুবলীগ নেতা খালেদকে আটকের পর সংগঠনটির চেয়ারম্যান ওমর ফারুক চৌধুরী প্রশ্ন তুলেছেন, ক্যাসিনো ব্যবসা তো আগে থেকে চলছে, এতদিন কেন আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ব্যবস্থা নেয়নি।

এ বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করলে শফিকুল ইসলাম বলেন, আমরা অবশ্যই কঠোরভাবে আইন প্রয়োগ করবো। এর মধ্যে সংশ্লিষ্ট জোনের ডিসিদের আমি জানিয়ে দিয়েছি এই ধরণের ঘটনা একেবারেই সহ্য করা হবে না। এরপরও কেউ জুয়ার আসর চালালে তার বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।

উল্লেখ্য, বুধবার সন্ধ্যায় ফকিরাপুলে ইয়ংমেন্স ক্লাবে অবৈধভাবে জুয়ার আসর চালানোর অভিযোগে যুবলীগের ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সাংগঠনিক সম্পাদক খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়াকে গ্রেফতার করে র‌্যাব। গুলশানে নিজ বাসা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

একই সময় ফকিরাপুলের ওই ক্লাবে অভিযান চালিয়ে দুই নারীসহ ১৪২ জনকে আটক করে বিভিন্ন মেয়াদে দণ্ড দেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। ক্লাবে পাওয়া যায় মদ আর জুয়ার বিপুল আয়োজন। সেখান থেকে জব্দ করা হয় বিপুল পরিমাণ অর্থও।

এরপর রাতেই আরো তিনটি ক্যাসিনোতে অভিযান চালায় র‌্যাব। এসব ক্লাবে অবৈধভাবে জুয়ার আসর বসানোয় আরো ৩৯ জনকে আটক করা হয়েছে, উদ্ধার করা হয় জুয়ার ২৩ লাখ টাকা। ক্লাবগুলো হলো- ফকিরাপুলের ঢাকা ওয়ান্ডারার্স ক্লাব, গুলিস্তানের মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ক্রীড়াচক্র এবং বনানীর আহমদ টাওয়ারের গোল্ডেন ঢাকা বাংলাদেশ।

পিএসএস/এএসটি

 

রাজধানী: আরও পড়ুন

আরও