গুলশানে ১৭ ভরি সোনা ‘চুরি’ করলো মিস্ত্রী

ঢাকা, ২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ | 2 0 1

গুলশানে ১৭ ভরি সোনা ‘চুরি’ করলো মিস্ত্রী

পরিবর্তন প্রতিবেদক ৬:৫২ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১১, ২০১৯

গুলশানে ১৭ ভরি সোনা ‘চুরি’ করলো মিস্ত্রী

রাজধানীর গুলশানের একটি বাসায় গিজারের পাইপ ঠিক করতে গিয়ে ১৭ ভরি স্বর্ণালংকার চুরি করে চম্পট দেয় স্যানিটারি মিস্ত্রী। পরে বাড়ির মানুষের অভিযোগের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে পুলিশ ওই মিস্ত্রী ও তার সহযোগীকে গ্রেফতার করে।

গ্রেফতাররা হলেন- মো. সালাম (স্যানিটারি মিস্ত্রি) ও মো. পলাশ।

চুরি হওয়া ১৭ ভরি স্বর্ণালংকারের মধ্যে ১০ ভরি স্বর্ণ তাদের কাছ থেকে উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে।

বুধবার গুলশান থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এস এম কামরুজ্জামান পরিবর্তন ডটকমকে এ তথ্য জানান।

ওসি গুলশান জানান, পম্পি মজুমদার নামে গুলশানের নিকেতনে এক বাসিন্দা থানায় এসে অভিযোগ করেন। তিনি গত ২৩ আগস্ট তার বাবা-মার সাথে নিকেতনের বাসা তালাবদ্ধ করে ফেনীতে গ্রামের বাড়িতে যান। ২৬ আগস্ট তাদের বাড়িওয়ালা তার বাবাকে ফোন করে জানান, তাদের বাসার গিজারের পাইপ ফেটে পানি লিক করেছে।

এস এম কামরুজ্জামান জানান, বাড়ির মালিক মুঠোফোনে স্যানিটারি মিস্ত্রি এনে পম্পিদের ফ্ল্যাটের গিজারের পাইপ ঠিক করার অনুমতি চান। তখন তার বাবা বাড়ির মালিককে উপস্থিত থেকে পাইপ ঠিক করার অনুমতি দেন। অনুমতি পেয়ে বাড়ির মালিক ওইদিন স্যানিটারি মিস্ত্রি সালামকে এনে পাইপ ঠিক করে দেন। গত ৭ সেপ্টেম্বর রাত সাড়ে ৯টায় পম্পি মজুমদার তার বাবা-মার সাথে নিকেতনের বাসায় ফিরে আসেন। বাসায় এসে দেখেন যে বাসার ফলস সিলিংয়ে আটকানো কাঁচের লাইট কভারের ভিতরে গচ্ছিত ১৭ ভরি স্বর্ণালংকার চুরি হয়ে গেছে।

ওসি গুলশান জানান, পম্পি মজুমদারের অভিযোগের ভিত্তিতে ৯ সেপ্টেম্বর গুলশান থানায় একটি মামলা হয়। মামলাটির তদন্ত শুরু করে থানা পুলিশ। মঙ্গলবার স্যানিটারি মিস্ত্রি সালামকে গ্রেফতার করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদে সে চুরির কথা স্বীকার করে। সালামের দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে তার অপর সহযোগী পলাশকে রাতেই নরসিংদীর বেলাবো এলাকা থেকে গ্রেফতার করে পুলিশ। গ্রেফতারের পর তাদের কাছ থেকে ১০ ভরি চোরাই স্বর্ণালংকার উদ্ধার করা হয়। গ্রেফতারদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে বলেও জানান ওসি কামরুজ্জামান।

পিএসএস/এসবি

 

রাজধানী: আরও পড়ুন

আরও