‘বাড্ডায় গণপিটুনিতে নিহত রেনু ছেলেধরা ছিলেন না’

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৫ ডিসেম্বর ২০১৯ | ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

‘বাড্ডায় গণপিটুনিতে নিহত রেনু ছেলেধরা ছিলেন না’

ঢামেক প্রতিনিধি ১১:১০ অপরাহ্ণ, জুলাই ২০, ২০১৯

‘বাড্ডায় গণপিটুনিতে নিহত রেনু ছেলেধরা ছিলেন না’

রাজধানীর বাড্ডায় গণপিটুনিতে নিহতের পরিচয় পাওয়া গেছে। শনিবার সকালে ছেলেধরা সন্দেহে গণপিটুনিতে নিহত হন তাসলিমা বেগম রেনু (৪০)। ৫ বোন ও ১ ভাইয়ের মধ্যে রেনু ছিলেন সবার ছোট।

সন্তানকে স্কুলে ভর্তি করার জন্য স্কুলে খোঁজ নিতে গিয়ে গণপিটুনিতে প্রাণ হারিয়েছেন তিনি।

মৃতের ভাগিনা সৈয়দ নাসির উদ্দিন টিটু লাশ শনাক্ত করেন।

তিনি বলেন, তাসলিমা বেগম রেনু মহাখালীর জিপি জ ৩৩/৩ ওয়ারলেস গেট এলাকায় থাকতেন। তার ১ ছেলে তাহসিন আলমাহিদ (১১)ও এক মেয়ে তাসমিন তাবা (৪)কে ভর্তি বিষয়ে স্কুলে গিয়েছিলেন।

রেনু এরআগে ওই স্কুলেরই পাশে আলী মোড় এলাকায় স্বামী তসলিম হোসেনের সাথে পরিবার থাকতেন। গত দুই বছর আগে পারিবারিক কলহের কারণে তাদের মধ্যে ডিভোর্স হয়ে যায়। এরপর থেকে সন্তানদের নিয়ে মহাখালীতেই থাকেন।

টিটু বলেন, আজ শনিবার সকালে উত্তর বাড্ডায় ঐ স্কুলে গিয়েছিলেন সন্তানকে ভর্তি করার জন্য খোঁজখবর নিতে। আর সেখানে তাকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে।

আক্ষেপ করে তিনি বলেন, পুলিশ প্রশাসন থাকতে কীভাবে ঐ এলাকার লোকজন তাকে পিটিয়ে হত্যা করলো! আমি এর বিচার দাবি করি।

বাড্ডা থানার ওসি অপারেশন ইয়াসিন গাজী বলেন, প্রাথমিকভাবে শনাক্ত করেন নিহত হওয়া নারীর ভাগিনাসহ স্বজনরা।

এ ঘটনায় মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। ময়নাতদন্তের জন্য মৃতদেহটি ঢামেক মর্গে রয়েছে।

উল্লেখ্য, শনিবার সকালে উত্তর বাড্ডা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে ছেলেধরা সন্দেহে ঐ নারীকে পিটেয়ে হত্যা করা হয়েছে।

এআরই

 

রাজধানী: আরও পড়ুন

আরও