নকল সন্তান নিয়ে রাস্তায় ভিক্ষা, কথিত বাবা আটক

ঢাকা, বুধবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৯ | ২৯ কার্তিক ১৪২৬

নকল সন্তান নিয়ে রাস্তায় ভিক্ষা, কথিত বাবা আটক

ঢামেক প্রতিনিধি ১০:৫৮ অপরাহ্ণ, জুলাই ১৭, ২০১৯

নকল সন্তান নিয়ে রাস্তায় ভিক্ষা, কথিত বাবা আটক

অসুস্থ শিশু নিয়ে ভিক্ষাবৃত্তি করতে গিয়ে ধরা পড়লো এক দম্পতি। কথিত বাবা আটক হলেও কথিত মা শিশুটির সাথে রয়েছেন।

বুধবার বিকেলে শাহাবাগ থানাধীন শিক্ষা ভবন সংলগ্ন হাইকোর্টের সামনে দাড়িয়ে জহিরুল নামে এক ব্যাক্তি ভিক্ষাবৃত্তি করছিলেন।

এ সময় ঐ পথ দিয়ে যাচ্ছিলেন পুলিশের সিনিয়র এসি সুলনতানা ইশরাত জাহান। তিনি পুলিশ হেডকোয়ার্টারে কর্মরত রয়েছেন। তিনি অফিস শেষে বাসায় ফেরার পথে শিশুটিকে দেখতে পান।

তিনি সাংবাদিকদের বলেন, বিষয়টি আমার সন্দেহ হয়। একজন পিতা অসুস্থ শিশুকে নিয়ে কিভাবে সাহায্য চাচ্ছেন!

তিনি বলেন, আমি লোকটিকে জিঙ্গাসাবাদ করলে সে সঠিক উত্তর না দিয়ে সে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। সে সময় শাহাবাগ পুলিশকে দিয়ে ঐ লোকটিকে শাহাবাগ থানায় সোপর্দ করা হয়।

এদিকে শিশুটির কথিত মা জোসনাকে সাথে করে অসুস্থ শিশুটিকে চিকিৎসার জন্য দ্রুত ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল নিয়ে আসা হয়। শিশুটির পিঠে পুরাতন পোড়া জখম রয়েছে এবং বেশ অসুস্থ।

তিনি বলেন, শিশুটিকে প্রথমে বার্ন ইউনিটে নেওয়া হয়।

সেখানকার চিকিৎসক জানিয়েছেন, শিশুটিকে জেনারেল ওয়ার্ডে নেওয়ার পরামর্শ দেন। সেখান থেকে জরুরি বিভাগে আনা হয়। এখানে প্রথমে ভর্তি না নিতে চাইলেও, পরে তারা ভর্তি নেন শিশু ওয়ার্ডে।

সেখানে নেওয়ার পর সেই ওয়ার্ডের চিকিৎসকরা তাকে (শিশুটিকে) দেখে বলেন, শিশুটির অবস্থা খুবই খারাপ। তাকে এখানে রাখা যাবে না, তার এই মুহূর্তে আইসিইউ দরকার। কিছুক্ষণ পর সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা শিশুটিকে মহাখালীর সংক্রমণ ব্যাধী হাসপাতালে রেফার্ড করেন। পরে রাত সাড়ে ৮টার দিকে মহাখালীর ঐ হাসপাতালের উদ্দেশ্যে রওনা হন।

এসি সুলনতানা ইশরাত জাহান আরও বলেন, মানবিক দিক থেকে শিশুটিকে বাঁচানোর জন্য আমার যতটুকু চেষ্টা করা দরকার আমি তাই করবো।

এদিকে শাহাবাগ থানার উপপরিদর্শক (এসআই)শফিউল আলম বলেন, শিশুটির কথিত বাবাকে আটক করে থানায় রাখা হয়েছে। কথিত মা আছে শিশুটির সাথে।

তিনি বলেন, শিশুটির মা জোসনা বলেছেন, তারা হাইকোর্টে ফুটপাতে থাকে। ভাসমান এবং ভিক্ষাবৃত্তি করে।

পুলিশের জেরার মুখে জোসনা বলেন, গত ৭ মাস পূর্বে এক মহিলা তার কাছে শিশুটিকে দিয়ে চলে যান। সেই থেকে আমাদের কাছে থাকে শিশুটি। তার নাম রাখা হয়েছে, সানজিদা।

শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত শিশুটিকে মহাখালী থেকে আবার ঢামেকের ২০৮নং ওয়ার্ডে নিয়ে আসা হয়েছে।

এআরই

 

রাজধানী: আরও পড়ুন

আরও