‘রমজানে হামলার ঝুঁকি ছিল, রুখে দিয়েছি’

ঢাকা, ২৩ আগস্ট, ২০১৯ | 2 0 1

‘রমজানে হামলার ঝুঁকি ছিল, রুখে দিয়েছি’

পরিবর্তন প্রতিবেদক ৬:১৯ অপরাহ্ণ, জুলাই ১৬, ২০১৯

‘রমজানে হামলার ঝুঁকি ছিল, রুখে দিয়েছি’

পুলিশের কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিটের (সিটিটিসি) প্রধান মনিরুল ইসলাম বলেছেন, নিউজিল্যান্ড ও শ্রীলঙ্কায় হামলার পর বাংলাদেশে জঙ্গি হামলার ঝুঁকি ছিল। রমজানে সেই ঝুঁকি আরও বেশি ছিল, তবে আমরা রুখে দিয়েছি।

তিনি বলেন, হলি আর্টিজান বেকারিতে হামলার পর দেশবাসীর সহযোগিতায় জঙ্গি সংগঠনগুলো ধ্বংস করা হয়েছে। তবে জঙ্গি বা উগ্রবাদের মতবাদ ধ্বংস করা যায়নি। এটা রয়ে গেছে। উগ্র মতাদর্শকে সঠিক মতাদর্শ দিয়েই প্রতিরোধ করতে হবে।

মঙ্গলবার দুপুরে লালমাটিয়া মহিলা কলেজ অডিটোরিয়ামে আয়োজিত জঙ্গিবাদবিরোধী শপথ বাক্য পাঠ ও সহিংস উগ্রবাদ বিরোধী বিতর্ক প্রতিযোগিতায় বিজয়ী দলগুলোর সংবর্ধনা প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

মনিরুল ইসলাম বলেন, জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসবাদ একদিনে হয়ে ওঠেনি। দীর্ঘ প্রক্রিয়ার মাধ্যমে তারা এ সহিংস উগ্রবাদের পথে এসেছে বিধায় একদিনেই বা দ্রুত সময়ে এটা দমন করা সম্ভব না। সহিংস উগ্রবাদ রুখে দিতে পারলে, বাংলাদেশে জঙ্গিবাদ হবে না।

সিটিটিসি প্রধান বলেন, আমরা গবেষণা করে দেখেছি ১৫-৩০ বছর বয়সের তরুণ-তরুণী উগ্রবাদের সাথে যুক্ত হচ্ছে। উগ্রবাদ শুধুমাত্র ধর্মের কারণে হয় না। তবে এটি ঠেকাতে ধর্মের প্রকৃত শিক্ষা দিয়ে সহিংস উগ্রবাদ রুখে দেয়ার জন্য মননশীল মানুষ তৈরি করতে হবে।

ডিবেট ফর ডেমোক্রেসি’র আয়োজনে এই বিতর্ক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়।

সংবর্ধনা প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান বক্তা হিসেবে শিক্ষক-শিক্ষার্থীসহ সংশ্লিষ্ট সকলকে জঙ্গিবাদ বিরোধী শপথ বাক্য পাঠ করান ডিবেট ফর ডেমোক্রেসি’র চেয়ারম্যান হাসান আহমেদ চৌধুরী কিরণ।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন অনুষ্ঠানের সভাপতি লালমাটিয়া মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর ড. মো. রফিকুল ইসলাম, আহবায়ক ড. তাজুল ইসলাম চৌধুরী তুহিন, মানুষের জন্য ফাউন্ডেশনের ডেপুটি প্রোগ্রাম ম্যানেজার মো. মনিরুজ্জামান মুকুল ও লালমাটিয়া মহিলা কলেজ ডিবেটিং ক্লাবের মডারেটর ড. ফেরদৌস আরা খানম।

পিএসএস/এসবি

 

রাজধানী: আরও পড়ুন

আরও