মায়ের কোলে ফিরলেন সৌরভ

ঢাকা, বুধবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৯ | ২৯ কার্তিক ১৪২৬

মায়ের কোলে ফিরলেন সৌরভ

পরিবর্তন প্রতিবেদক ১:৫৭ অপরাহ্ণ, জুন ২০, ২০১৯

মায়ের কোলে ফিরলেন সৌরভ

‘আমরা এখন সৌরভের জন্য অপেক্ষা করছি, সে পথে আছে। খুব কাছেই আছে। আমার সাথে সৌরভের মা ইয়াসমিন আপা ও বাবা মানিক ভাই আছেন। আমরা সবাই অপেক্ষা করছি ও খুব শিগগিরই চলে আসবে। বাইরে সাংবাদিক ভাইরাও সৌরভের আসার অপেক্ষায় রয়েছে।’

ভাগ্নে সৌরভের সন্ধান পাওয়ার পর ঢাকায় সৌরভদের বাসায় দাঁড়িয়ে এভাবেই ফেসবুক লাইভ করছিলেন সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী সোহেল তাজ। লাইভে থাকা অবস্থায়ই সৌরভকে কিভাবে উদ্ধার করা হলো তা সাংবাদিকদের জানান তিনি।

সোহেল তাজ বলেন, সকালে ময়মনসিংহের যে অটো রাইস মিল থেকে সৌরভকে উদ্ধার করা হয়, সেখানকার কর্মচারীরা আমাদের ফোন করে খবরটি জানায়। তখন আমরা চট্টগ্রাম মহানগর পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের ডিসি মোহাম্মদ শহীদুল্লাহর সাথে যোগাযোগ করি। তিনি সঙ্গে সঙ্গে ব্যবস্থা নিয়েছেন এবং ময়মনসিংহের পুলিশ সুপার আবিদ হোসেনের সাথে যোগাযোগ করেছেন। পরে এসপি আবিদ সাহেব আমার সাথে যোগাযোগ করেন এবং নিজে গিয়ে সৌরভকে উদ্ধার করেন।

‘আমরা জানতে পেরেছি সৌরভকে বাঁধা অবস্থায় পাওয়া গেছে। ওর গায়ে কোনো জামা ছিল না, শুধু পায়জামা পরা ছিল। চোখও বাঁধা অবস্থায় ছিল। এসপি আবিদ বাসায় নিয়ে তার গোসল, জামাকাপড় ও নাস্তার ব্যবস্থা করে দেন।’, বলেন সোহেল তাজ।

অপহরণের পেছনে কারা থাকতে পারে, তাদের নাম প্রকাশ করবেন কিনা এমন প্রশ্নে সোহেল তাজ বলেন, ছেলেটি ১১দিন ধরে নিখোঁজ ছিল, এখন এসব প্রশ্নের উত্তর দেয়ার সময় না। এখন তার পরিবারের মুখে হাসি ফোটানোর সময়। 

এরপর বেলা ১১টা ৩৩ মিনিটে পুলিশের একটি প্রিজনভ্যান বাসার সামনে আসে, তার পেছনেই ছিল একটি মাইক্রোবাস। সোহেল তাজ সেটি ভেতরে ঢুকিয়ে দিতে বলেন। সেই মাইক্রোবাস থেকেই নেমে আসেন সৌরভ। নেমেই মাকে জড়িয়ে ধরেন, মায়ের বুকে মুখ লুকিয়ে ফুঁপিয়ে কাঁদতে থাকেন।

তারপর বাবা ও মামা সোহেল তাজকে বুকে জড়িয়ে ধরেন সৌরভ। এ সময় গণমাধ্যম কর্মীরা তার সঙ্গে কথা বলতে চাইলে সৌরভকে নিয়ে তার বাবা, মা ও সোহেল তাজ লিফটের দিকে এগিয়ে যান। লিফটে উঠে সোহেল তাজ শরীর কেমন জিজ্ঞাসা করলে সৌরভ উত্তরে ভালো আছি জানায়।

প্রসঙ্গত, চট্টগ্রাম থেকে নিখোঁজ হওয়ার ১১ দিনের মাথায় বৃহস্পতিবার ভোর সোয়া ৫টার দিকে অপহরণকারীরা সৌরভকে তারাকান্দার বটতলা বাজারে ফেলে রেখে যায়। পরে খবর পেয়ে তাকে উদ্ধার করে ময়মনসিংহ জেলা পুলিশ সুপার (এসপি) শাহ আবিদ হোসেন।

পুলিশ সুপার বলেন, ভোর ৫টা থেকে সোয়া ৫টার দিকে সমির নামে অটো রাইস মিল ম্যানেজার সৌরভের পরিবারকে প্রথমে ফোন করে তাকে পাওয়ার তথ্য জানায়। এরপর চট্টগ্রাম মহানগর পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের ডিসি মোহাম্মদ শহীদুল্লাহ আমাকে ফোন করে বিষয়টি জানালে আমি ৫টা ৫০ মিনিটের দিকে তারাকান্দার বটতলা বাজারে পৌঁছে তাকে উদ্ধার করি।

শাহ আবিদ হোসেন বলেন, সৌরভ সম্পূর্ণ সুস্থ আছেন। তবে যেহেতু ১১ দিন তিনি নিখোঁজ ছিলেন, এজন্য তার পোশাক-আশাক পুরাতন ছিল। আমার এখানে নিয়ে আসার পর ফ্রেশ হয়ে পোশাক চেঞ্জ করে তিনি খাওয়া-দাওয়া করেছেন।

পিএসএস/এসবি

 

রাজধানী: আরও পড়ুন

আরও