কুমারী মা নিজেই নবজাতককে ছুড়ে ফেলেন

ঢাকা, ২১ জুন, ২০১৯ | 2 0 1

কুমারী মা নিজেই নবজাতককে ছুড়ে ফেলেন

পরিবর্তন প্রতিবেদক ৪:৩৯ অপরাহ্ণ, মে ২৬, ২০১৯

কুমারী মা নিজেই নবজাতককে ছুড়ে ফেলেন

মিরপুরের রূপনগর আবাসিক এলাকায় ৫ তলা থেকে সদ্যোজাত এক শিশুকে নিচে ফেলে দেওয়ার ঘটনায় ওই শিশুর মাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। জিজ্ঞাসাবাদে কেন শিশুটিকে হত্যা করা হয়েছে সে বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য জানিয়েছে ওই মা।

রূপনগর থানা পুলিশ জানিয়েছে, শিশুটির মা এখনও অপ্রাপ্তবয়স্কা। স্থানীয় একটি স্কুল থেকে এবার এসএসসি পাস করেছে। ওই মেয়ের ইচ্ছার বিরুদ্ধে অবৈধভাবে শারীরিক সম্পর্ক স্থাপনের কারণে এই শিশুটির জন্ম হয়।

ছুড়ে ফেলা শিশুটির মা জানান, তার মা দুই বিয়ে করেছেন। সে মায়ের প্রথম স্বামীর স্ত্রী। তবে রূপনগরের ওই বাসায় মা ও সৎ বাবা শাহ আলমের কাছেই থাকতো সে। তার সৎ বাবার ছোটভাই বিল্লাল হোসেন বিদেশে থাকেন। সম্প্রতি তিনি বাংলাদেশে এসে ওই বাসায় উঠেছিলেন। সেই সময় বিল্লাল ইচ্ছার বিরুদ্ধে ওই মেয়ের সঙ্গে অবৈধভাবে শারীরিক সম্পর্ক স্থাপন করে। এতে ওই মেয়ে অন্ত:স্বত্ত্বা হয়ে পড়ে।

পরবর্তীতে বিল্লাল বিদেশে চলে গেলে, বিষয়টি জানাজানি হওয়ার পর মেয়েটির মা ও সৎ বাবা শাহ আলম গর্ভপাত করার জন্য মেয়েটিকে চাপ দিতে থাকে। এরই মধ্যে শনিবার সকালে মেয়েটির প্রসববেদনা উঠে। তখন সে নিজেই টয়লেটে গিয়ে বাচ্চা প্রসব করে এবং সদ্যভূমিষ্ট শিশুটিকে টয়লেটের ভেন্টিলেটর দিয়ে নিচে ফেলে দেয়।

রূপনগর থানার উপ-পরিদর্শক পরিমল পরিবর্তন ডটকমকে বলেন, স্থানীয়দের কাছ থেকে খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে সদ্য প্রসব করা ওই শিশুর মরদেহ দেখতে পাই, তার মাথা ফেটে মগজ বের হয়ে গেছে। ওই ঘটনায় শনিবার রাতে শিশুটির মাকে গ্রেফতার করে জিজ্ঞাসাবাদের পর জানা যায় পুরো ঘটনা।

তিনি আরো বলেন, সদ্যোজাত শিশুটিকে হত্যার ঘটনায় রূপনগর থানায় শিশুটির মাসহ চারজনের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে।

মামলার অন্য তিন আসামি হলেন মেয়েটির মা, তার সৎ বাবা শাহ আলম ও বিল্লাল হোসেন। তাদের মধ্যে ছুড়ে ফেলা শিশুটির মাকে প্রাথমিক চিকিৎসার জন্য পুলিশি হেফাজতে শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। আর গ্রেফতার করা হয়েছে শাহ আলমকে। তবে শাহ আলমের স্ত্রী অন্ত:স্বত্ত্বা হওয়ায় তাকে গ্রেফতার না করে নজরদারিতে রাখা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, রাজধানীর মিরপুরের রূপনগর আবাসিক এলাকার একটি বাসার ৫ তলা থেকে শনিবার দুপুর পৌনে ১২টায় সদ্যোজাত এক শিশু সন্তানকে নিচে ফেলে দেওয়ার ঘটনা ঘটে। এতে ঘটনাস্থলেই শিশুটির মৃত্যু হয়।

প্রত্যক্ষদর্শী আনিসুর রহমান পরিবর্তন ডটকমকে বলেন, ১০ নম্বর রোডের ১৮ নম্বর বাড়ির পাঁচ তলা থেকে দুপুর পৌনে ১২টার দিকে একটি শিশুকে বাথরুমের ভেন্টিলেটর দিয়ে নিচে ফেলে দেওয়া হয়। নিচে পড়ার সাথে সাথেই শিশুটি মারা যায়। এসময় তার নাড়ি-ভুড়ি বের হয়ে মাথা ফেটে যায়।

পিএসএস/এএসটি

আরও পড়ুন...
৫ তলা থেকে ছুড়ে ফেলা হলো সদ্যোজাত সন্তানকে!

 

রাজধানী: আরও পড়ুন

আরও