আজকের মতো অবরোধ তুলে নিয়েছে শিক্ষার্থীরা

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০১৯ | ১২ বৈশাখ ১৪২৬

আজকের মতো অবরোধ তুলে নিয়েছে শিক্ষার্থীরা

পরিবর্তন প্রতিবেদক ৭:১৩ অপরাহ্ণ, মার্চ ১৯, ২০১৯

আজকের মতো অবরোধ তুলে নিয়েছে শিক্ষার্থীরা

পুলিশ, জনপ্রতিনিধি এবং বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের অনুরোধে দিনভর বিক্ষোভের পর মঙ্গলবার সন্ধ্যায় সড়ক অবরোধ তুলে নিয়েছেন আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা।

তবে, আগামীকাল বুধবার সকাল ৮টা থেকে ফের আন্দোলন শুরু হবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষার্থীরা।

অবরোধ তুলে নেওয়ায় সন্ধ্যা ৬টার পর সেখানে যান চলাচল স্বাভাবিক হয়।

এর আগে সকালে নদ্দার বসুন্ধরা আবাসিক এলাকার গেইটে সুপ্রভাত কোম্পানির একটি বাসের চাপায় নিহত হন বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনালসের (বিইউপি) শিক্ষার্থী আবরার আহমেদ চৌধুরী।

তার মৃত্যুর খবর পেয়ে যমুনা ফিউচার পার্কের সামনের সড়ক অবরোধ করে দোষী চালকের শাস্তির দাবিতে স্লোগান দিতে থাকেন বিশ্ববিদ্যালয়টির শিক্ষার্থীরা।

বিক্ষোভের এক পর্যায়ে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের নতুন মেয়র আতিকুল ইসলাম সেখানে উপস্থিত হয়ে শিক্ষার্থীদের দাবি পূরণে পদক্ষেপ নেওয়ার আশ্বাস দেন। কিন্তু তার আশ্বাসেও সড়ক ছাড়েনি শিক্ষার্থীরা।

মেয়র চলে যাওয়ার পর সেখানে সুপ্রভাত পরিবহনের একটি বাসে আগুন দেওয়া হয়। এরপরও সড়ক আটকে বিক্ষোভ করতে থাকেন শিক্ষার্থীরা।

শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের মধ্যে বিকেল ৫টার দিকে সেখানে গিয়ে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের সঙ্গে একাত্মতা প্রকাশ করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ-ডাকসুর নবনির্বাচিত ভিপি নুরুল হক নূর।

এরপর সন্ধ্যার ৬টার দিকে বিক্ষোভ কর্মসূচি শেষ করার ঘোষণা দেন আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা।

বিশ্ববিদ্যালয়টির একজন শিক্ষার্থী সাংবাদিকদের বলেন, সন্ধ্যা ৬টায় তারা সড়ক অবরোধ তুলে নিয়েছেন। বুধবার সকাল ৮টায় আবার সড়কে অবস্থান নেবেন।

সহপাঠীদের বসুন্ধরা আবাসিক এলাকার গেইটে আসার আহ্বান জানান তিনি।

এছাড়া বাসচাপায় বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রের মৃত্যুর প্রতিবাদে সারা দেশের স্কুল, কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ে ক্লাস-পরীক্ষা বর্জনের আহ্বান জানান ওই শিক্ষার্থী।

আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা ৮ দফা দাবি জনিয়েছেন। দাবিগুলো হলো—

১) পরিবহন সেক্টরকে রাজনৈতিক প্রভাবমুক্ত করতে হবে এবং প্রতি মাসে বাসচালকের লাইসেন্সসহ সব প্রয়োজনীয় কাগজপত্র চেক করতে হবে।

২) আটক চালক ও সম্পৃক্ত সবাইকে দ্রুত সময়ের মধ্যে সর্বোচ্চ শাস্তির আওতায় আনতে হবে।

৩) আজ থেকে ফিটনেসবিহীন বাস ও লাইসেন্সবিহীন চালককে দ্রুত সময়ে অপসারণ করতে হবে।

৪) ঝুঁকিপূর্ণ ও প্রয়োজনীয় সব স্থানে আন্ডারপাস, স্পিড ব্রেকার এবং ফুট ওভারব্রিজ নির্মাণ করতে হবে।

৫) চলমান আইনের পরিবর্তন করে সড়ক হত্যার সাথে জড়িত সবাইকে সর্বোচ্চ শাস্তির আওতায় আনতে হবে।

৬) দায়িত্ব অবহেলাকারী প্রশাসন ও ট্রাফিক পুলিশকে স্থায়ী অপসারণ করে প্রয়োজনীয় আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।

৭) প্রতিযোগিতামূলক গাড়ি চলাচল বন্ধ করে নির্দিষ্ট স্থানে বাসস্টপ এবং যাত্রী ছাউনি করার জন্য যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে এবং

৮) ছাত্রদের হাফ পাস (অর্ধেক ভাড়া) অথবা আলাদা বাস সার্ভিস চালু করতে হবে।

ওএস/এসবি

আরও পড়ুন...
ঢাকায় বাসের ধাক্কায় ছাত্র নিহত, সড়ক অবরোধ
সড়কে চলবে না সুপ্রভাত, আবরারের নামে ফুটওভার ব্রিজ: আতিকুল (ভিডিও)
সংহতি জানিয়ে ছাত্র বিক্ষোভে ভিপি নূর